২৫ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

বুড়িমারী স্থলবন্দরের এসির সততার পুরস্কার ষ্ট্যান্ডরিলিজ


নিজস্ব সংবাদদাতা, লালমনিরহাট ॥ জেলার পাটগ্রাম উপজেলার বুড়িমারী স্থলবন্দরে দুই মাস পূর্বে কাষ্টমস্ দপ্তরে নতুন সহকারি কাষ্টমস্ কমিশনার হুমায়ুন হাফিজ যোগদান করেন। যোগদানের পরেই তিনি একটি পাথর আমদানী কারক কোম্পানীর প্রায় ৭ কোটি টাকার কর ফাঁকির ঘটনা ধরে ফেলেন। বুড়িমারী স্থলবন্দরের সিন্ডিকেট চক্র বেকায়দায় পড়ে যায়। সৎ মানুষ হিসেবে বুড়িমারীতে দুই মাসের মধ্যে এসি সুনাম অর্জন করে।

তার সততা ও নিষ্ঠার কাছে টিকতে না পেরে বুড়িমারীর স্থলবন্দরের সিন্ডিকেট ঢাকায় তদবির করে তাকে বদলি করায়। এসি যাতে বদলি সংক্রান্ত কোন তদবির করতে না পারে। সেই পথ বন্ধ করতে তাকে ষ্ট্যান্ড রিলিজ করানো হয়। বুড়িমারী স্থলবন্দরে যখন যে দল ক্ষমতায় আসে। তখন সেই দলের স্থানীয় নেতাদের নেতৃত্বে ট্রাক্স ফাঁকির সিন্ডিকেট গড়ে উঠে। এই সিন্ডিকেটের সাথে যারা সখ্যতা বজায় রেখে চলে তারা বুড়িমারী স্থল বন্দরে টিকে যায়। যেসব কর্মকর্তা বুড়িমারী স্থলবন্দরে অবৈধ কার্যক্রমে সহায়তা করে না, তারা এইখানে চাকরি করতে পারে না। এই সিন্ডিকেট চক্রের কারনে বুড়িমারী স্থলবন্দর দিয়ে সুটকী মাছসহ ১৮টি পন্য আমদানী নিষিদ্ধ রয়েছে। সৎ ব্যবসায়ী ও সিএন্ডএফ এজেন্টগণ তাদের ব্যবসা গুড়িয়ে নিয়েছে। তারা অন্য বন্দরে গিয়ে ব্যবসা খুলে বসেছে। বুড়িমারী স্থল বন্দরটি উত্তরাঞ্চলের একমাত্র ত্রি দেশীয় স্থল বন্দর। এই বন্দর দিয়ে ভারত, ভুটান ও নেপালে পন্য আমদানী রফতানী হয়ে আসছে। ভারত সরকার সিকিমের গ্যাংটকে চীনকে করিডোর দিলে এই বন্দর দিয়ে স্থল পথে চীনও বাংলাদেশের সাথে পন্য আমদানী ও রফতানী করতে পারবে।

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: