১৮ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

জোকোভিচকে হারিয়ে মারের ইতিহাস


জোকোভিচকে হারিয়ে মারের ইতিহাস

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ প্রথমবারের মতো ক্লে কোর্টে নোভাক জোকোভিচকে পরাজিত করে শিরোপার স্বাদ পেলেন বৃটিশ টেনিস তারকা এ্যান্ডি মারে। রবিবার ছিল তার ২৯তম জন্মদিন। আর এদিনই রোম মাস্টার্সের ফাইনালে বিশ্বের এক নাম্বার খেলোয়াড় নোভাক জোকোভিচকে পরাজয়ের লজ্জা উপহার দেন তিনি। স্কটিশ টেনিস তারকা এদিন ৬-৩ এবং ৬-৩ সেটে পরাজিত করে শিরোপা লাভ করেন। সার্বিয়ান তারকা জোকোভিচের বিপক্ষে ১৪তম প্রচেষ্টায় এটা মাত্র দ্বিতীয় জয় মারের। শুধু তাই নয়, মাত্র এক সপ্তাহ আগে মাদ্রিদ মাস্টার্সের ফাইনালেও এই জোকোভিচের কাছে হেরে শিরোপা হাতছাড়া করেছিলেন মারে। রোম ওপেনে শীর্ষ তারকাকে হারিয়ে তাই মধুর প্রতিশোধটাও নিয়ে নিলেন তিনি।

জন্মদিনের আয়োজন উদযাপনের উপলক্ষ হিসেবে পুরস্কার বিতরণীর সময় মারেকে একটি কেক উপহার দেয়া হয়। রোমে এটি মারের প্রথম শিরোপা। ফ্রেঞ্চ ওপেন শুরুর ঠিক সপ্তাহ খানেক আগে এই শিরোপা নিঃসন্দেহেই স্কটিশ তারকাকে অন্যদের তুলনায় কিছুটা হলেও এগিয়ে রাখবে। ১৯৩১ সালে প্যাট হিইজেসের পরে বৃটিশ কোন খেলোয়াড়ের এই টুর্নামেন্টের শিরোপা প্রাপ্তি এটাই প্রথম। ক্লে কোর্টে এর আগে খেলা চারটি ম্যাচের প্রতিটিতেই জোকোভিচের কাছে পরাজিত হয়েছিলেন মারে। কিন্তু এবারের চিত্রনাট্যটা ছিল একটু ব্যতিক্রম। কেননা টুর্নামেন্টের শুরু থেকেই যে দুর্দান্ত খেলছেন তিনি। তারকা খেলোয়াড়দের হারিয়েই টুর্নামেন্টের ফাইনাল নিশ্চিত করেন মারে। তাই নোভাক জোকোভিচের জন্য শেষ ম্যাচটা ছিল বেশ কঠিনই। এছাড়া বাম গোঁড়ালিতে ব্যান্ডেজ নিয়ে কোর্টে নেমেছিলেন মারে।

এ বছরের ফেব্রুয়ারির শুরুতেই প্রথমবারের মতো কন্যা সন্তানের বাবা হন মারে। বাবা হওয়ার পর এটাই জোকোভিচের প্রথম শিরোপা জয়ের স্বাদ। এ্যান্ডি মারে জানান, তার কন্যা সন্তানের আগমনই নাকি তাকে বদলে দিয়েছে। এ বিষয়ে স্কটিশ এই টেনিস তারকা বলেন, ‘আমার ক্যারিয়ারে ইতিবাচক প্রভাব ফেলছে। কোর্টে যাওয়ার আগে আমার চোখের সামনে সর্বশেষ যে জিনিসটা ভেসেছিল তা হলো আমার মেয়ের ছবি।’ আর টেনিস কোর্টের চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী জোকোভিচ সম্পর্কে মারে বলেন, ‘তার বিপক্ষে আমি যখনই কোর্টে নামি তখনই মনে হয় যে, আমাকে আরও ভাল খেলতে হবে। আর তার মতো খেলোয়াড়কে আপনি যে কোন সময়ই হারান না কেন নিঃসন্দেহে সেটাই হবে আপনার বড় জয়।’ আগামী সপ্তাহ থেকেই শুরু হবে মৌসুমের দ্বিতীয় গ্র্যান্ডসøাম টুর্নামেন্ট ফ্রেঞ্চ ওপেন। তার আগেই রোম জয়। মারের জন্য এর চেয়ে ভাল প্রস্তুতি আর কি হতে পারে! এদিকে গত মৌসুমে চার গ্র্যান্ডসøাম টুর্নামেন্টের তিনটিতেই চ্যাম্পিয়ন হয়েছেন জোকোভিচ। শুধু ফ্রেঞ্চ ওপেনের শিরোপাটাই জিততে পারেননি তিনি। ফ্রেঞ্চ ওপেনের ঠিক আগে রোম ওপেনে হারায় এবারও যে বড় একটা ধাক্কা খেলেন জোকোভিচ! তবে এখান থেকে শিক্ষা নিয়ে রোঁলা গ্যাঁরোয় নিজেকে শুধরে সার্বিয়ান তারকা নিশ্চিত আরও ভাল করতে চাইবেন।

এদিকে রোম ওপেনের মহিলা এককে অল-আমেরিকান ফাইনালে স্বদেশী মেডিসন কেইসকে হারিয়ে আবারও স্বরূপে ফেরার ইঙ্গিত দিয়েছেন সেরেনা উইলিয়ামস। এটি তার দীর্ঘ নয় মাস পর প্রথম কোন শিরোপা জয়ের স্বাদ। গত আগস্টে সিনসিনাতি মাস্টার্সের শিরোপা জিতেছিলেন আমেরিকান তারকা। এরপর ইনজুরির কারণে প্রায়ই কোর্টের বাইরে থাকা সেরেনা মাত্র চারটি টুর্নামেন্টে অংশ নিয়েছেন। আর রোম মাস্টার্সের দ্বৈতে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার সৌজন্যে বছরের পঞ্চম শিরোপা জয়ের কৃতিত্ব দেখিয়েছেন বিশ্বের এক নাম্বার ডাবলস জুটি সানিয়া মির্জা ও মার্টিনা হিঙ্গিস। ইতালির রাজধানীর এই টুর্নামেন্টের ফাইনালে ইন্দো-সুইস জুটি ৬-১, ৬-৭ (৫/৭) এবং ১০-৩ সেটে রাশিয়ান জুটি এলিনা ভেসনিনা ও একাটেরিনা মাকারোভাকে পরাজিত করে শিরোপা লাভ করেন। রোমে এটাই তাদের প্রথম শিরোপা।