২৫ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

আন্তর্জাতিক মানের এলইডি টিভি কারখানা স্থাপন করল গোল্ডেন স্টার


অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ দেশেই চালু হলো আন্তর্জাতিক মানের এলইডি টিভি সংযোজন কারখানা। ঢাকার অদূরে ধামরাইয়ের বিসিক শিল্প নগরীতে এই অত্যাধুনিক সংযোজন কারখানাটি গড়ে তুলেছে গোল্ডেন স্টার ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড। চীনা প্রযুক্তি সহায়তায় গত মার্চ থেকে কারখানাটি পরীক্ষামূলক উৎপাদন শুরু করেছে। কারখানায় উৎপাদিত এলইডি টিভি গোল্ডেন স্টার ব্রান্ডেই বাজারজাত করা হচ্ছে।

এ প্রসঙ্গে গোল্ডেন স্টার ইন্ডাস্ট্রিজের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আলী আজগার টগর এমপি সাংবাদিকদের বলেন, ‘দেশেই উৎপাদনের কারণে এলইডি টিভি এখন ক্রেতাদের ক্রয় ক্ষমতার মধ্যে চলে এসেছে। ক্রেতা সাধারণ এখন আন্তর্জাতিক মানের দেশীয় এলইডি টিভি পাচ্ছেন মাত্র অর্ধেক দামে।’ অদূর ভবিষ্যতে বাংলাদেশ থেকে বিদেশে এলইডি টিভি রফতানির পরিকল্পনার কথা জানান তিনি।

সম্প্রতি ঢাকার এক দল সাংবাদিক ধামরাইয়ে দেশের প্রথম এলইডি টিভি সংযোজন কারখানা পরিদর্শন করে। কারখানার বিভিন্ন দিক ঘুরিয়ে দেখানা আলী আজগার টগর। এ সময় তিনি বলেন, এলইডি সংযোজন অংশটি খুবই স্পর্শকতার একটি বিষয়। সম্পূর্ণ ডাস্টমুক্ত অবস্থায় এ অংশটি সংযোজন করতে হয়। এজন্য প্ল্যানটিকে দুটি ভাগে ভাগ করা হয়েছে। একটি এলইডি সংযোজন অংশ এবং অপরটি মাদার বোর্ড সংযোজন অংশ। এলইডি সংযোজন অংশটিতে ডাস্টমুক্ত রাখার জন্য পৃথক নিরাপত্তামূলক ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। সেই সঙ্গে প্রতিনিয়ত ডাস্ট দূর করার জন্য ব্লোয়ারের ব্যবস্থা করা হয়েছে।

চীন থেকে এলইডি বাল্ব, টিভির ব্যাক মডিউল ও প্যানেলসহ অন্যান্য অংশ তৈরি করে সিকেডি অবস্থায় দেশে আনা হয়। সেগুলোকে এই কারখানায় নির্দিষ্ট তাপমাত্রা ও আদ্রতায় অত্যন্ত দক্ষতার সঙ্গে সংযোজন করা হয়। কারখানায় দ্বিতীয় অংশ সংযোজন করা হয় মাদার বোর্ড তথা পিসিবি ও অন্যান্য যন্ত্রাংশ। মোট ১৮ ধাপে একটি এলইডি টিভি তৈরির পর তার মান পরীক্ষার করা হয়। মান পরীক্ষায় উত্তীর্ণ টিভিই বাজারজাতের জন্য কারখানা থেকে ছাড় করা হয়।

এ প্রসঙ্গে আলী আজগার টগর জানান, প্রতি টিভিতে তিন বছরের ওয়ারেন্টি দেয়া হচ্ছে। দেশে তৈরির কারণেই ক্রেতাদের এই বিক্রয়োত্তর সেবা দেয়া সম্ভব হচ্ছে বলে জানান তিনি।

বর্তমানে একটি শিফটে এলইডি টিভি উৎপাদিত হচ্ছে। এই এক শিফটে টিভি উৎপাদনের ক্ষমতা ১২৫। এই টিভি উৎপাদনের জন্য চীন থেকে কর্মীদের প্রশিক্ষণ দিয়ে নিয়ে আসা হয়েছে। তাছাড়া চীনা প্রকৌশলীরা কারখানায় থেকে কর্মীদের প্রশিক্ষণ দিয়ে গেছে। কারখানায় সর্বনিম্ন ১৯ ইঞ্চি থেকে সর্বোচ্চ ৫৫ ইঞ্চি সাইজের টিভি উৎপাদন করা হচ্ছে।

স্মাটফোনের মতোই দেশে এলইডি টিভির চাহিদা দ্রুত বাড়ছে। বর্তমানে দেশে টিভির চাহিদা প্রায় ১৩ লাখ। ইতোমধ্যে এর ৪০ শতাংশ স্থান দখল করে নিয়েছে এলইডি টিভি। সেই চাহিদাকে সামনে রেখেই দেশে বিশ্বমানের এলইডি টিভি সংযোজন কারখানা স্থাপন করেছে গোল্ডেন স্টার ইন্ডাস্ট্রিজ। উল্লেখ্য, বিগত এক দশকেরও বেশি সময় ধরে দেশে গৃহস্থালি ইলেক্ট্র্রনিক্স পণ্য বাজারজাত করে আসছে গোন্ডেন স্টার।

দেশে এ ধরনের সংযোজন শিল্পের প্রসারের জন্য উদ্যোক্তাদের শুল্ক সুবিধা প্রদানের দাবি জানিয়েছেন আলী আজগার টগর এমপি। তিনি লেভেল প্লেইং ফিল্ড দাবি করে বলেন, অনেকে সিকেডির এলসি খুলে মিথ্যা ঘোষণা দিয়ে সম্পূর্ণ তৈরি টিভি নিয়ে আসছে। এতে সরকার যেমন রাজস্ব হারাচ্ছে, তেমনি উদ্যোক্তারাও ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। তিনি টিভি শিল্পের যন্ত্রাংশ আমদানির ক্ষেত্রে উদ্যোক্তাদের জন্য বিশেষ সুবিধা প্রদানের দাবি জানান।