৯ ডিসেম্বর ২০১৯, ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, সোমবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
 
সর্বশেষ

জ্বালানি খাতের ৪৭.৩৬ ভাগ কোম্পানির মুনাফা বেড়েছে

প্রকাশিত : ১৭ মে ২০১৬

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত বিদ্যুত ও জ্বালানি খাতের ১৯ কোম্পানির মধ্যে নয়টি মুনাফা দেখিয়েছে। অর্থাৎ মোট ৪৭.৩৬ ভাগ কোম্পানির আগের তুলনায় মুনাফা বেড়েছে। এপ্রিল ও মে মাসে প্রকাশিত ১৫ কোম্পানির বিভিন্ন প্রান্তিকের অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদনে এই চিত্র তুলে ধরা হয়েছে।

এগুলোর মধ্যে ১১ কোম্পানি তৃতীয় প্রান্তিকের মুনাফা প্রকাশ করেছে। এর মধ্যে পাঁচ কোম্পানির শেয়ারপ্রতি মুনাফা (ইপিএস) বেড়েছে, চারটির কমেছে ও দুটি লোকসান করেছে।

প্রথম প্রান্তিকের প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে চার কোম্পানি, যার মধ্যে সবই ইপিএস বেড়েছে।

ইপিএস বেড়েছে ॥ চলতি বছরের জানুয়ারি-মার্চ সময়ে বারাকা পাওয়ারের ইপিএস আগের বছরের একই সময়ের তুলনায় ৯ দশমিক ৮৬ শতাংশ বেড়ে হয়েছে ৭৮ পয়সা; নয় মাসে ১৫ শতাংশ বেড়ে হয়েছে ২ টাকা ৩৯ পয়সা।

ইস্টার্ন লুব্রিকেন্টসের ইপিএস তৃতীয় প্রান্তিকে আগের বছরের তুলনায় ২১ গুণ বেড়ে ১৬ টাকা ০৯ পয়সা হয়েছে। আর নয় মাসে ১০৬৮ শতাংশ বেড়ে হয়েছে ২৬ টাকা ৭৫ পয়সা।

তৃতীয় প্রান্তিকে যমুনা অয়েলের ইপিএস আগের বছরের একই সময়ের তুলনায় ২৮ শতাংশ বেড়ে হয়েছে ৩ টাকা ০৪ পয়সা; নয় মাসে ইপিএস ১২ শতাংশ কমে হয়েছে ১১ টাকা ৪২ পয়সা।

মেঘনা পেট্রোলিয়ামের ইপিএস তৃতীয় প্রান্তিকের ৩৯ দশমিক ০৩ শতাংশ বেড়ে হয়েছে ৪ টাকা ৭৯ পয়সা হয়েছে; আর ৯ মাসে ইপিএস এক দশমিক ৬ শতাংশ বেড়ে হয়েছে ১৩ টাকা ২৮ পয়সা। এই সময় পদ্মা অয়েলের ইপিএস ২৬ শতাংশ বেড়ে হয়েছে ৩ টাকা ৮০ পয়সা হয়েছে। তবে নয় মাসে ইপিএস ৬ শতাংশ কমে হয়েছে ১১ টাকা ৩০ পয়সা হয়েছে। প্রথম প্রাান্তিকে জিবিবি পাওয়ারের ইপিএস বেড়েছে ১৭ শতাংশ বেড়ে হয়েছে ৩৫ পয়সা ।

এই সময় ইউনাইটেড পাওয়ারের ইপিএস ৩৯ শতাংশ বেড়ে ৩ টাকা ০২ পয়সা হয়েছে।

লিন্ডে বাংলাদেশের প্রথম প্রাান্তিকে ইপিএস ৭২ শতাংশ বেড়ে হয়েছে ১৬ টাকা ৭৪ পয়সা।

এই সময় এমজেএল বাংলাদেশের ইপিএস ১১৩ শতাংশ বেড়ে এক টাকা ৫১ পয়সা হয়েছে।

ইপিএস হ্রাস ॥ তৃতীয় প্রান্তিকে সিভিও পেট্রোকেমিক্যালের ইপিএস আগের বছরের তুলনায় ২৮ দশমিক ৫ শতাংশ কমে হয়েছে এক টাকা ২৩ পয়সা হয়েছে। তবে ৯ মাসে ইপিএস ৭২ শতাংশ বেড়ে হয়েছে ৭ টাকা ১২ পয়সা হয়েছে।

এই সময়ে পাওয়ার গ্রিড কোম্পানি অব বাংলাদেশের ইপিএস ১০ শতাংশ কমে ৬৫ পয়সায় নেমেছে। আর ৯ মাসে ইপিএস হয়েছে এক টাকা ৯৫ পয়সা। আগের বছরে এ সময় কোম্পানির লোকসান ছিল ১১ পয়সা।

শাহজিবাজার পাওয়ারের ইপিএস ৩৫ শতাংশ কমে হয়েছে এক টাকা ২৬ পয়সায় নেমেছে; নয় মাসে ৪২ শতাংশ কমে ৩ টাকা ৫৯ পয়সা।

তিতাস গ্যাস ট্রান্সমিশন এ্যান্ড ডিস্ট্রিবিউশনের ইপিএস ৪৯ শতাংশ কমে ৯৬ পয়সায় নেমেছে; আর ৯ মাসে ইপিএস ৫৪ শতাংশ কমে ২ টাকা ৮৫ পয়সায় নেমেছে।

লোকসান ॥ তৃতীয় প্রান্তিকে ঢাকা ইলেকট্রিক সাপ্লাই কোম্পানির শেয়ারপ্রতি লোকসান হয়েছে ২৪ পয়সা; তবে নয় মাসে ৬১ শতাংশ কমে হয়েছে ২ টাকা ৯০ পয়সা। এই সময়ে ডরিন পাওয়ার জেনারেশনস এ্যান্ড সিস্টেমের লিমিটেডের লোকসান হয়েছে ৯ পয়সা; নয় মাসে ইপিএস ৬৯ শতাংশ কমে হয়েছে এক টাকা ৭৯ পয়সা।

প্রকাশিত : ১৭ মে ২০১৬

১৭/০৫/২০১৬ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


শীর্ষ সংবাদ:
নোয়াখালী থেকে আনসারুল্লাহর চার জঙ্গী গ্রেফতার || বর্ণচ্ছটায় উজ্জল ॥ বঙ্গবন্ধু বিপিএল উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী || জীবনঘনিষ্ঠ চলচ্চিত্র চাই ॥ পুরস্কার বিতরণে প্রধানমন্ত্রী -মাদক সন্ত্রাস জঙ্গীবাদ দুর্নীতিসহ সামাজিক অবক্ষয় রোধে || ৩০ মুক্তিযোদ্ধাকে সংবর্ধনা দেবে ভারত || ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্যমেলা শুরু হচ্ছে ১ জানুয়ারি || সময়োপযোগী পদক্ষেপেই বাংলাদেশ আজ খাদ্যে উদ্বৃত্ত ॥ কৃষিমন্ত্রী || প্রেমিক সৈকত ৪ দিনের রিমান্ডে || চলমান দুর্নীতিবিরোধী অভিযান বন্ধ হবে না ॥ দুদক চেয়ারম্যান || এনডিসি গ্র্যাজুয়েটদের জ্ঞান উন্নয়নের কাজে লাগানোর আহ্বান রাষ্ট্রপতি || বঙ্গবন্ধু বিপিএলের উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী ||