২৫ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

ছায়ানটে শ্রোতার আসরে গাইলেন প্রমিতা ও লিসা


ছায়ানটে শ্রোতার আসরে গাইলেন প্রমিতা ও লিসা

স্টাফ রিপোর্টার ॥ তাঁরা দুজনেই রবীন্দ্রসঙ্গীত শিল্পী। গাইলেন ঐতিহ্যবাহী সাংস্কৃতিক সংগঠন ছায়ানটের শ্রোতার আসরে। এই শিল্পীদ্বয়ের একজন বাংলাদেশের লাইসা আহমদ লিসা ও অপরজন ভারতের প্রমিতা মল্লিক। সোমবার সন্ধ্যায় কবিগুরুর বাণীর আশ্রয়ে সুরের মূর্ছনা ছড়ালেন দুই শিল্পী। বিমোহিত করলেন উপস্থিত শ্রোতাদের।

পরিবেশনার প্রথমেই মঞ্চে আসেন লিসা। নিবেদিতপ্রাণ এই শিল্পীর গান ও গায়কী মন ছুঁয়ে যায় সুর রসিকদের। দরদমাখা কণ্ঠের খেলায় রাঙিয়ে দেন শ্রোতার আসর। এই শিল্পীর গান প্রাণভরে উপভোগ করলেন দর্শক-শ্রোতা। তাঁর পরিবেশিত প্রথম গানের বাণী ছিলÑ প্রভু তোমার লাগি আঁখি জাগে/দেখা নাই পাই/পথ চাই/সেও মনে ভালো লাগে...। এরপর একে একে গেয়ে শোনান ‘কে বসিলে আজি’, ‘প্রভু আজি তোমার’, ‘দীপ নিবে গেছে’, ‘কাল রাতের বেলা’, ‘শুধু তোমার বাণী নয় গো’ ও ‘আজি তোমায়’। এরপরে মঞ্চে আসেন কলকাতার প্রখ্যাত রবীন্দ্রসঙ্গীত শিল্পী প্রমিতা মল্লিক। অনবদ্য কণ্ঠের মহিমায় শ্রোতার অন্তরে ছড়িয়ে দেন ভাললাগার আবেশ। গানে গানে শ্রোতার সঙ্গে শিল্পীর সংযোগে সঙ্গীতাসরটি হয়ে ওঠে অনবদ্য।

গণগ্রন্থাগারে আবৃত্তিসন্ধ্যা ‘মা, আমার মা’ ॥ পদ্য ও গদ্যের আলোকে মায়ের প্রতি জানানো হলো ভালবাসা। উঠে এলো মায়ের যাপিত জীবনের সুখ-দুঃখের কথা। আনন্দ কিংবা বেদনার দৃশ্যকাব্য। শিল্পিত উচ্চারণে প্রকাশিত হলো সন্তানের প্রতি মায়ের অনুভূতি। সোমবার সন্ধ্যায় এভাবেই বাচিকশিল্পীদের কণ্ঠে উচ্চারিত হলো জননীর জীবনচিত্র। সুফিয়া কামাল জাতীয় গণগ্রন্থাগারের শওকত ওসমান মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হলো ‘মা, আমার মা’ শীর্ষক আবৃত্তি প্রযোজনা। মা দিবস উপলক্ষে প্রযোজনাটি মঞ্চস্থ করে চারুকণ্ঠ আবৃত্তি সংসদ। গ্রন্থনার পাশাপাশি প্রযোজনাটির নির্দেশনা দিয়েছেন অধ্যাপক নিরঞ্জন অধিকারী। মাকে নিয়ে লেখা কবিতা, পত্র-পত্রিকায় প্রকাশিত চিঠিপত্র, নিবন্ধ সমন্বয়ে গ্রন্থিত হয়েছে প্রযোজনাটি। জুড়ে দেয়া হয়েছে জসীম উদ্্দীন, অমিয় চক্রবর্তী, শামসুর রাহমান, রুদ্র মুহম্মদ শহীদুল্লাহ, দেবী রায়, মোহন রায়হানসহ কয়েকজন কবির কবিতা। এসব কবিতার সঙ্গে প্রযোজনাটিতে সম্মিলন ঘটেছে লুৎফর রহমান রিটনের লেখা চিঠিসহ বিভিন্ন লেখকের রচিত প্রবন্ধ ও নিবন্ধ। মাকে নিবেদিত প্রযোজনাটিতে অংশ নেন আবৃত্তিশিল্পী জি এম মোর্শেদ, আনোয়ার পারভেজ, ফারজানা রোজি, গুলশান আরা লুনা, তাবাস্সুম মুন্নী ও নিরঞ্জন অধিকারী।

শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসের আয়োজন ॥ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে আলোচনাসভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করে বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক ফোরাম। সোমবার বিকেলে শিল্পকলা একাডেমির সঙ্গীত ও নৃত্যকলা কেন্দ্র মিলনায়তনে আয়োজনটি অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু। বিশেষ অতিথি ছিলেন সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর। প্রধান আলোচক ছিলেন সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি গোলাম কুদ্দুছ। সভাপতিত্ব করেন আয়োজক সংগঠনের সহ-সভাপতি মনোরঞ্জন ঘোষাল।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে আমির হোসেন আমু বলেন, শেখ হাসিনা যেদিন দেশে ফিরে আসেন সেদিন বিমানবন্দরে লাখো মানুষের ঢল নেমেছিল। দেশের মানুষ সেদিন যেন জেগে উঠেছিল। পরিবার হারানোর শোকে অনেকটাই বাকরুদ্ধ শেখ হাসিনা সেদিন কান্নাজড়িত কণ্ঠে যে কথাটি বার বার বলেছিলেন তা হলো ‘গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের’ কথা। অনুষ্ঠানে আলোচনা পর্ব শেষে ছিল সাংস্কৃতিক পরিবেশনা।

সর্বাধিক পঠিত:
পাতা থেকে: