২২ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

বাঁশখালীতে সীমানা বিরোধকে কেন্দ্র করে বসত ঘরে হামলা, লুটপাত


বাঁশখালীতে সীমানা বিরোধকে কেন্দ্র করে বসত ঘরে হামলা, লুটপাত

নিজস্ব সংবাদদাতা, বাঁশখালী ॥ চট্টগ্রামের বাঁশখালী উপজেলার সরল ইউনিয়নের কাহারঘোনা গ্রামের লক্ষীয়া বাপের বাড়িতে সীমানা বিরোধকে কেন্দ্র করে বসত ঘরে হামলা, ভাংচুর, লুটপাটের ঘটনা ঘটেছে। এ সময় দুর্বৃত্তদের হামলায় ষাটোর্ধ বৃদ্ধা মহিলা ছকিনা বেগম (৬৫) সহ আহত হয়েছে অন্তত ৪ জন। আহত বৃদ্ধাকে আশংকাজনক অবস্থায় চমেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় সোমবার আহত ঐ বৃদ্ধা মহিলা বাদী হয়ে ১০ জন আসামী করে বাঁশখালী থানায় মামলা দায়ের করেছে। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে বর্তমানে এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে। ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বাঁশখালী থানা পুলিশের এসআই কামরুল হাসান কায়কোবাদ জানান, হামলার ঘটনায় একটি নিয়মিত মামলা দায়ের করেছে নির্যাতিতা বৃদ্ধা। অভিযুক্তদের আটকের অভিযান চলছে।

স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, উপজেলার সরলের কাহারঘোনা গ্রামের এজাহারুল হকের সাথে একই এলাকার আলী আহমদের মধ্যে বসত ভিটার সীমানা নিয়ে দীর্ঘদিন বিরোধ চলে আসছিল। সেই বিরোধকে কেন্দ্র করে থানা ও আদালতে একাধিক বিচার চলমান। এই বিরোধের জের ধরে রবিবার হঠাৎ এজাহারুল হকের বাড়ীর পুরুষ সদস্যদের অনুপস্থিতিতে আলী আহমদ ৩০-৪০ জন বহিরাগত সন্ত্রাসীদের দল নিয়ে বসত ঘরে হামলা করে। এ সময় দুর্বৃত্তরা এজাহারুল হকের বাড়ীর আসবাবপত্র ভাংচুর, মালামাল লুট ও বাড়ীর মহিলাদেরকে এলোপাথাড়ি মারধর করেছে। তাদের হামলায় এজাহারুল হকের স্ত্রী ছকিনা বেগমের ডান হাত ভেঙে যায় এবং শরীরের বিভিন্ন স্থানে রক্তাক্ত জখম হয়। বাড়ীর মহিলাদের শোর চিৎকারে আশপাশের লোকজন এগিয়ে আসলে দুর্বৃত্তের পালিয়ে যায়। গুরুতর আহত ছকিনা বেগমকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আশংকাজনক অবস্থায় ভর্তি করা হয়েছে। ঘটনায় পারভিন আক্তার (৪৫), এজাহারুল হক (৭২) ও অপর আরেকজনসহ মোট ৩ জনকে বাঁশখালী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এলাকায় বহিরাগত সন্ত্রাসীদের দ্বারা বসত ঘরে হামলার ঘটনায় এলাকাবাসীর মধ্যে উত্তেজনা চলছে।

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: