২০ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট ৭ ঘন্টা পূর্বে  
Login   Register        
ADS

লা লিগার রাজা এখন সুয়ারেজ


লা লিগার রাজা এখন সুয়ারেজ

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ অবশেষে স্প্যানিশ লা লিগায় দুই মহাতারকা লিওনেল মেসি ও ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডোর একতরফা আধিপত্যের অবসান ঘটিয়েছেন লুইস সুয়ারেজ। দুই সুপারস্টারকে পেছনে ফেলে গত সাত বছরের মধ্যে এই প্রথমবারের মতো লা লিগার সর্বোচ্চ গোলের পুরস্কার জিতেছেন উরুগুইয়ান সুপারস্টার। দলকে চ্যাম্পিয়ন করানোর পথে সর্বোচ্চ ৪০ গোল করে ‘পিচিটি ট্রফি’ জয় নিশ্চিত করেছেন ২৯ বছর বয়সী সুয়ারেজ। অর্থাৎ রোনাল্ডো-মেসি নন লা লিগার রাজা এখন কামড়কা-ের সেই খলনায়কই!

২০১৫-১৬ মৌসুমে ৫৯ গোল করা সুয়ারেজ লা লিগায় করেছেন সর্বোচ্চ ৪০ গোল। শুধু তাই নয়, ২৬টি গোলে সতীর্থদের সহায়তাও করেছেন। সর্বোচ্চ গোলদাতা হিসেবে সাত বছরে প্রথমবারের মতো মেসি ও রোনাল্ডোকে পেছনে ফেলেছেন। অর্থাৎ ২০০৯ সালের পর মেসি ও রোনাল্ডোর বাইরে অন্য কেউ সর্বোচ্চ গোলের পুরস্কারটি জিতলেন। ২০০৯-১০ থেকে গত মৌসুম পর্যন্ত মোট তিনবার করে পুরস্কারটি ভাগাভাগি করে নেন রোনাল্ডো-মেসি। লা লিগার ইতিহাসে মেসি ও রোনল্ডো ছাড়া প্রথম খেলোয়াড় হিসেবে এক মৌসুমে ৪০ গোলের কীর্তিও গড়েছেন উরুগুয়ের এই তারকা স্ট্রাইকার। বার্সিলোনার জার্সিতে দ্বিতীয় মৌসুমেই অসাধারণ এই কীর্তি গড়া সুয়ারেজ দলের শিরোপা জয়েরও মূল নায়কও। পুরো মৌসুম জুড়েই প্রয়োজনীয় মুহূর্তে অবদান রাখেন তিনি। গত এপ্রিলে টানা তিন ম্যাচ হেরে কোণঠাসা হয়ে পড়া দলকে পথ দেখাতে সবচেয়ে বড় অবদান তার। শেষ পাঁচ ম্যাচে দলের ২৪ গোলের মধ্যে একাই করেছেন ১৪টি। অসাধারণ এই পথচলায় মোট ছয়টি হ্যাটট্রিক করেন সুয়ারেজ। এ মৌসুমে ইউরোপের শীর্ষ পাঁচটি লীগে অন্য কেউ তিনটির বেশি করতে পারেননি। শুধু তাই নয়, ইউরোপের সেরা পাঁচটি লীগের মধ্যে সবচেয়ে বেশি গোল করার কৃতিত্বও সুয়ারেজের। এ কারণে দ্বিতীয়বারের মতো ইউরোপিয়ান গোল্ডেন স্যু জেতাও নিশ্চিত হয়েছে সাবেক লিভারপুল তারকা। সর্বাধিক গোলের তালিকায় সুয়ারেজের চেয়ে ৫ গোল কম নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে আছেন রোনাল্ডো। ২০১৪ সালে বার্সিলোনায় যোগ দিয়েই দারুণ সাফল্য পেতে থাকেন সুয়ারেজ। ২০১৪-১৫ মৌসুমে বার্সিলোনা জয় করে মৌসুমের তিনটি বড় শিরোপা। ৪৩ ম্যাচে ২৫ গোল করে সুয়ারেজও বড় ভূমিকা রেখেছিলেন কাতালানদের ট্রেবল জয়ে। কিন্তু লা লিগার প্রথম মৌসুমে সুয়ারেজ যেন সময় নিয়েছিলেন মানিয়ে নেয়ার জন্য। এবারের মৌসুমে উরুগুয়ের এই স্ট্রাইকার জ্বলে উঠেছেন দারুণভাবে। লা লিগায় ৩৫ ম্যাচে ৪০ গোলসহ সবমিলিয়ে ৫২টি ম্যাচে মাঠে নেমে করেছেন ৫৯ গোল। এবার লা লিগায় সর্বোচ্চ গোলদাতার তালিকায় সুয়ারেজের পেছনে আছেন যথাক্রমে রোনাল্ডো, মেসি ও নেইমার। ৩৫ গোল করে দ্বিতীয় স্থানে আছেন রিয়াল তারকা। মেসি এবারের মৌসুমে করেছেন ২৬ গোল। ২৪টি করে গোল করেছেন নেইমার ও করিম বেনজামা। হ্যাটট্রিক করার দিক দিয়েও রোনাল্ডোকে পেছনে ফেলেছেন সুয়ারেজ। এবারের মৌসুমে তিনি করেছেন ছয়টি হ্যাটট্রিক। এর মধ্যে দুটি ম্যাচে সুয়ারেজ করেছেন চারটি করে গোল। অন্যদিকে রোনাল্ডো করেছেন তিনটি হ্যাটট্রিক। মজার বিষয় হলো ‘মেসি-রোনাল্ডো যুগ’ শুরুর আগে ২০০৮-০৯ মৌসুমেও লা লিগার সর্বোচ্চ গোলদাতার পুরস্কারটি উঠেছিল একজন উরুগুয়ের ফুটবলারের হাতে। সেবার এ্যাটলেটিকো মাদ্রিদের জার্সি গায়ে ৩২ গোল করে সর্বোচ্চ গোলদাতা হয়েছিলেন দিয়াগো ফোরলান।

২০১৫ সালে ফিফা বর্ষসেরা ফুটবলারের পুরস্কারের দৌড়ে জায়গা করে নিতে পারেননি সুয়ারেজ। মেসি ও রোনাল্ডোর সঙ্গে তৃতীয় সেরা খেলোয়াড় নির্বাচিত হয়েছিলেন নেইমার। তবে এবার শীর্ষ তিন ফুটবলারের মধ্যে সুয়ারেজের নাম থাকলে অবাক হওয়ার কিছু থাকবে না। কেননা লা লিগার সর্বোচ্চ গোলদাতার লড়াইয়ে যেভাবে মেসি-রোনাল্ডোর আধিপত্য ভেঙ্গে দিয়েছেন, তেমনি বর্ষসেরা ফুটবলারের পুরস্কারটাও হয় তো জিতে নিতে পারেন। গত আট বছর ধরে ফিফা সেরার এই পুরস্কারও নিজেদের মধ্যে ভাগাভাগি করে নিচ্ছেন মেসি ও রোনাল্ডো। এতসব অর্জনের সবকিছুই সতীর্থদের জন্য হয়েছে বলে আরও একবার বলেছেন সুয়ারেজ। পুরো কৃতিত্ব সতীর্থদের দিয়ে তিনি বলেন, তাদের ছাড়া এর কিছুই করা হতো না। আমি আজকে এখানে থাকতাম না। ওরা আমার কাজটা এত সহজ করে দিয়েছিল, আমাকে কেবল আলতো টোকা দিয়ে বলটা জালে পাঠাতে হতো। ওরা সব সময় আমাকে দিয়ে গোল করাতে চেয়েছে। লা লিগার রাজা এতেই তৃপ্ত নন। চান আরও সাফল্য। বলেন, আমাদের কাপ ফাইনাল নিয়ে ভাবতে হবে। অবশ্য আপাতত লা লিগার শিরোপা উপভোগ করাই উচিত। এবার লীগে আমরা সবাই বছরজুড়ে কঠোর পরিশ্রম করেছি, শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত। সেটারই ফল পেয়েছি। এ সাফল্য ধরে রাখাই আমাদের চ্যালেঞ্জ।