১৯ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট পূর্বের ঘন্টায়  
Login   Register        
ADS

বেয়ার্ন মিউনিখের শিরোপা উৎসব


বেয়ার্ন মিউনিখের শিরোপা উৎসব

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ আগেই নিশ্চিত হয়েছিল শিরোপা। উৎসবটাও শুরু হয়ে গিয়েছিল এলিয়াঞ্জ এ্যারেনায়। কিন্তু ট্রফি নিয়ে সেই উৎসবটা করতে পারেনি জার্মান জায়ান্ট বেয়ার্ন মিউনিখ। অবশেষে বুন্দেসলিগার শেষ ম্যাচে শনিবার রাতে হ্যানোভার ৯৬কে ৩-১ গোলে হারিয়ে ট্রফিটা হাতে তুলেছে বাভারিয়ানরা। বুন্দেসলিগার ইতিহাসে প্রথম ক্লাব হিসেবে টানা চতুর্থ শিরোপা জিতল তারা। শেষ ম্যাচে লীগে নিজের ৩০তম গোল করেছেন বেয়ার্নের পোলিশ ফরোয়ার্ড রবার্ট লেভানডোস্কি। তিনিই লীগে এ মৌসুমের সর্বোচ্চ গোলদাতা। আরও আগেই নিশ্চিত ছিল কোচের দায়িত্ব মৌসুম শেষেই ছাড়ছেন পেপ গার্ডিওলা। তিনি শিরোপা দিয়েই শেষ করলেন জার্মানে নিজের দায়িত্ব। পরের মৌসুমে তাকে দেখা যাবে ইংলিশ প্রিমিয়ার লীগে ম্যানচেস্টার সিটিতে।

বেয়ার্নের আবারও বুুন্দেসলিগা শিরোপা জয়ের ক্ষেত্রে বড় ভূমিকা ছিল তরুণ ফরোয়ার্ড লেভানডোস্কির। এ মৌসুমে লীগে তার পা থেকে এসেছে সর্বাধিক গোল। সবমিলিয়ে ৩০ গোল করেছেন পোলিশ এ তারকা। সর্বশেষটি করলেন শনিবার রাতে চ্যাম্পিয়ন বেয়ার্নের শেষ ম্যাচে। হ্যানোভারের বিরুদ্ধে ৩-১ গোলের জয়ে প্রথম গোলটিই আসে লেভানডোস্কির পা থেকে। ম্যাচের ১২ মিনিটের সময় গোল করেন তিনি। আর মারিও গোয়েটজে ২৮ ও ৫৪ মিনিটে দুটি গোল করেন। ৬৬ মিনিটের সময় একটি গোল পরিশোধ করে হ্যানোভার, লক্ষ্যভেদ করেন সোবিয়েচ। লীগে ২৫ গোল করে লেভানডোস্কির পর দ্বিতীয় স্থানে আছেন বরুসিয়া ডর্টমুন্ডের পিয়েরে এমেরিক অবামেয়াং। প্রথম বিদেশী স্ট্রাইকার হিসেবে বুন্দেসলিগায় ৩০ গোল করার গৌরব দেখালেন লেভানডোস্কি। আর লীগ ইতিহাসে ১৯৭৬-৭৭ মৌসুমে কোলনের পক্ষে ডিয়েটার মুয়েলার ছাড়া আর কেউ ৩০ গোল করতে পারেননি। সর্বোচ্চ গোলদাতার পুরস্কার হিসেবে লেভানডোস্কি পেয়েছেন গোল্ডেন ক্যানন। ডর্টমুন্ডের হয়ে ২০১৩-১৪ মৌসুমেও ২০ গোল করে এ পুরস্কার জিতেছিলেন ২৭ বছর বয়সী লেভানডোস্কি।

দলে এমন একজন খেলোয়াড় থাকলে কোচের জন্য যেমন কাজের সুবিধা এবং ভারমুক্ত হয়ে কৌশল খাটানো ও সেই অনুসারে পরিকল্পনা আঁটা সহজ হয়ে যায়, তেমনি দলও সুফল পায়। এবারও তাই হয়েছে বেয়ার্নের জন্য। কোচ গার্ডিওলা ছিলেন ভারমুক্ত। সাফল্য নিয়েই শেষ করলেন তিনি তার জার্মান পর্ব। এবার লীগে বেয়ার্ন ৩৪ ম্যাচের মধ্যে হেরেছে মাত্র দুটি আর জিতেছে ২৮টি। সে কারণেই নিজেদের ২৬তম বুন্দেসলিগা ট্রফি ঘরে তুলেছে বাভারিয়ানরা। আর গার্ডিওলা তার ক্যারিয়ারে দলকে জেতালেন ২০তম শিরোপা। এর মধ্যে স্প্যানিশ জায়ান্ট বার্সিলোনার হয়েই তিনি ১৪টি জিতেছেন মাত্র ৪ বছরের দায়িত্ব পালনকালে। আর তিন বছরের দায়িত্বে তিনি বেয়ার্নকে জিতিয়েছেন ৬ শিরোপা। আগামী সপ্তাহে জার্মান কাপের ফাইনাল ম্যাচ। বেয়ার্নের চিরশত্রু ডর্টমুন্ডের বিরুদ্ধে সেই একটা ম্যাচ, এরপরই এলিয়াঞ্জ এ্যারেনার পাট চুকেবুকে যাবে স্প্যানিশ এ কোচের। শিরোপা এলিয়াঞ্জ এ্যারেনায় আসার পর দারুণ উচ্ছ্বাসিত গার্ডিওলা বলেন, ‘এটা অনেক দারুণ একটা দিন। সাধারণত এ ধরনের খেলা অসন্তোষজনক এবং একঘেয়েমিপূর্ণ হয়। কারণ মনোযোগ কিছুটা কম থাকে। কিন্তু তেমন কিছু দেখা যায়নি।

এখন আমরা পুরো একটা দিন ধরে আনন্দ-উৎসব করব। এরপর আগামী শনিবার বরুসিয়া ডর্টমুন্ডের বিরুদ্ধে খেলার জন্য প্রস্তুত হব।’ উল্লেখ্য, আগামী শনিবার জার্মান কাপের ফাইনালে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ডর্টমুন্ডের বিরুদ্ধে আরেকটি শিরোপা জেতার সুযোগ। জিতলেই জার্মানিতে সাফল্যের ষোলোকলা পূর্ণ করে ইংল্যান্ডে পাড়ি জমাতে পারবেন গার্ডিওলা।

সর্বাধিক পঠিত:
পাতা থেকে: