২২ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট ৫ ঘন্টা পূর্বে  
Login   Register        
ADS

বিমানের মাস্কাট ফ্লাইটের পাইলটসহ ৪ জন সাসপেন্ড


 বিমানের মাস্কাট ফ্লাইটের পাইলটসহ ৪ জন সাসপেন্ড

স্টাফ রিপোর্টার ॥ চট্টগ্রামের শাহ আমানত বিমানবন্দরে উড্ডয়নের পূর্ব মুহূর্তে উড়োজাহাজের দরজা বন্ধ না হওয়ার কারণে মাস্কাটগামী বাংলাদেশ বিমানের যাত্রীবাহী একটি ফ্লাইটের যাত্রা বাতিলের দায়ে পাইলটসহ চারজনকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। দায়িত্বে চরম অবহেলার অভিযোগে বিমান তাদের বিরুদ্ধে এ ব্যবস্থা নেয়। এদিকে উড়োজাহাজটির ত্রুটিপূর্ণ দরজা খুলে রবিবার ঢাকায় আনা হয়েছে। ওটা ঠিক করার জন্য যন্ত্রাংশ চেয়ে বার্তা পাঠানো হয়েছে বোয়িং কোম্পানির কাছে। এ ঘটনায় রবিবার একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

দায়িত্ব পালনে অদক্ষতা ও ব্যর্থতার অভিযোগে সাময়িক বরখাস্তকৃতরা হলেন বোয়িং ৭৭৭ ফ্লাইটের পাইলট ক্যাপ্টেন ইসমত, ফার্স্ট অফিসার ফারিয়া, টেকনিশিয়ান রউফ এবং অপারেটর সনু মিয়া।

বিমানের ব্যবস্থাপনা পরিচালক উইং কমান্ডার আসাদ্জ্জুামান জনকণ্ঠকে বলেন, কি জন্য উড্ডয়নের আগে দরজা লাগেনি সেটা পাইলটের দোষে, নাকি অন্য কোন কারণে সেটা বের করার জন্যই তো তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। তদন্তের আগে কিছুই বলা যাবে না। এখন আমরা জরুরী ভিত্তিতে উড়োজাহাজটির দরজা রিপ্লেস করার চেষ্টা করছি।

উল্লেখ্য, শনিবার সকাল সাড়ে ৯টার দিকে শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে ওমানের রাজধানী মাস্কাট যাচ্ছিল বোয়িং ৭৭৭ উড়োজাহাজটি। বোর্ডিং ব্রিজের সঙ্গে ফ্লাইটের দরজা আটকে সেটি বন্ধ না হওয়ায় দুই শতাধিক যাত্রী নিয়ে আটকা পড়ার পর যাত্রা বাতিল করতে বাধ্য হন ক্যাপ্টেন। পরে দুপুর আড়াইটার দিকে ঢাকা থেকে আরেকটি উড়োজাহাজ এনে মাস্কাটের উদ্দেশে যাত্রী নিয়ে রওনা দেন।

ওই বিমানের এক যাত্রী জানান, বিমানটি উড্ডয়নের ঠিক আগ মুহূর্তে যাত্রীরা নিজ নিজ আসন গ্রহণ করার পর বোর্ডিং ব্রিজের সঙ্গে ফ্লাইটের দরজাটি আটকে যায়। কিন্তু ফ্লাইটটি কিছুটা পিছনে সরে আসলে দরজাটি খুলে নিচে পড়ে যায়। এ সময় যাত্রীদের মধ্যে আতঙ্ক দেখা দেয়। পরে যাত্রা বাতিল করে যাত্রীদের সবাইকে নিরাপদে নামিয়ে আনা হয়।