১৮ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

সমস্যার তাৎক্ষণিক সমাধানে আরও ক্ষমতা চান মেয়র আনিসুল হক


স্টাফ রিপোর্টার ॥ সিটি কর্পোরেশনের মেয়রের সাংবিধানিকভাবে প্রশাসনিক কার্যক্রম গ্রহণের কোন ক্ষমতা নেই। পরিবহন সমস্যা, জননিরাপত্তা এবং শহরকে নারীবান্ধব করতে মেয়র ও কাউন্সিলরদের আরও কিছু বিষয়ে সমস্যার তাৎক্ষণিক সমাধান করতে সরকারকে আরও ক্ষমতা প্রদানের অনুরোধ জানিয়েছেন ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র আনিসুল হক। একইসঙ্গে বর্তমানের চলা কর্মকা- ও গৃহীত পরিকল্পনা বাস্তবায়িত করা গেলে আগামী ৪ বছরে ঢাকার চেহারা পাল্টে দেয়ার ঘোষণা দিয়েছেন তিনি। এজন্য তিনি সকল শ্রেণীর নাগরিকদের সহযোগিতা কামনা করেন। রবিবার সিরডাপ মিলনায়তনে বাংলাদেশ মহিলা পরিষদের উদ্যোগে ‘শক্তিশালী, কার্যকর সিটি কর্পোরেশন ও নিরাপদ, নারীবান্ধব ঢাকা মহানগর’ শীর্ষক মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের নির্বাচিত জনপ্রতিনিধিদের সঙ্গে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় উপস্থাপিত মূলপ্রবন্ধের কথা উল্লেখ করে মেয়র আরও বলেন, এতে দুইবারে ২৯টি ও ৩৪টি দাবি ও সুপারিশ তুলে ধরা হয়েছে যার মধ্যে মেয়রের এখতিয়ারে মধ্যে আছে তিন থেকে চারটি। তবে এই সমস্যা সমাধানে প্রাতিষ্ঠানিকভাবে এর জন্য দায়ী না হলেও নীতিগতভাবে তিনি দায়ী বলে মন্তব্য করেন।

বাংলাদেশ মহিলা পরিষদের কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি আয়শা খানমের সভাপতিত্বে সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন অনলাইন পত্রিকা বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমের প্রধান সম্পাদক তৌফিক ইমরোজ খালিদী।

স্বাগত বক্তব্য দেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক মালেকা বানু। মূলপ্রবন্ধ উপস্থাপন করেন সংগঠনের কেন্দ্রীয় কমিটির আন্দোলন সম্পাদক কাজী সুফিয়া আখ্তার। প্রধান অতিথির বক্তব্যে আনিসুল হক বলেন, এই ঢাকা শহর ভাল খারাপ মিলে এক থেকে সোয়া কোটি লোকের খাদ্যের সংস্থান, বেঁচে থাকার সংস্থান করে থাকে।

তিনি বলেন, টয়লেটের জন্য কাজ করা হচ্ছে এবং এখনও করার চেষ্টা করা হচ্ছে কিন্তু টয়লেটের জায়গা নেই। ৮৬টি পেট্রোল পাম্পের সঙ্গে বসে তাদের কাছে জায়গা চাওয়া হয়েছে কিন্তু তারা দিচ্ছে না। ৪ বছর পর ঢাকা শহরে পর্যাপ্ত মাঠ হবে বলে আশা প্রকাশ করেন তিনি। ৪ বছর পর এখানে প্রতিটি সেক্টরেই উন্নতি সাধিত হবে বলেও আশা প্রকাশ করেন তিনি। মুক্ত আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের কাউন্সিলর শাহনাজ পারভিন মিতুু, আজাদ সুরাইয়া ডেইজি, হাবিবুর রহমান মিজান, শামিমা রহমান, মাসুদা আক্তার, নাজমুন নাহার হেলেন, রাশেদা আক্তার ঝর্ণা, ফোরকান, দেওয়ান আব্দুল মান্নœান।