২০ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

ধামরাইয়ে তিন যুবলীগ নেতাকে কুপিয়ে জখম


নিজস্ব সংবাদদাতা, সাভার, ১৫ মে ॥ ধামরাইয়ে নির্বাচনী সহিংসতায় শনিবার রাতে ‘নৌকা’ প্রতীক ক্যাম্পে অতর্কিত হামলা চালায় দুর্বৃত্তরা। এ সময় যুবলীগের তিন নেতাকে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে জখম করা হয়। এ ঘটনায় এলাকাবাসী একজনকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করে। এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে। জানা গেছে, সুতিপাড়া ইউনিয়নের শ্রীরামপুর বাজারে আওয়ামী লীগ প্রার্থী রেজাউল করিমের রাজার নির্বাচনী ক্যাম্পে শনিবার রাতে কয়েকজন নেতাকর্মী অবস্থান করছিল। রাত দশটার দিকে ১০-১২ জনের একদল দুর্বৃত্ত ক্যাম্পে অতর্কিত হামলা চালায় এবং ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে ঢাকা জেলা যুবলীগের স্বাস্থ্য ও পরিবেশবিষয়ক সম্পাদক শহিদুল ইসলাম, উপজেলা যুবলীগ নেতা শাহজাহান কবির সাজু ও সুতিপাড়া ইউনিয়ন যুবলীগের প্রচার ও প্রকাশনাবিষয়ক সম্পাদক ছানোয়ারকে কুপিয়ে আহত করে পালিয়ে যায়। এলাকাবাসী আল-আমীন নামে একজনকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করে। পরে স্থানীয়রা আহতদের উদ্ধার করে সাভার এনাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে।

মাগুরায় আহত ছাত্রের মৃত্যু

নিজস্ব সংবাদদাতা মাগুরা থেকে জানান, সদর উপজেলার দক্ষিণ নোয়াপাড়া গ্রামে নির্বাচনপরবর্তী সংঘর্ষে আহত ষষ্ঠ শ্রেণীর ছাত্র আল আমীন (১২) ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শনিবার রাতে মারা গেছে। রবিবার ভোরে তার লাশ গ্রামের বাড়িতে আনা হয় এবং দাফন করা হয়েছে। তার পিতার নাম ইউসুফ সর্দার এবং সে সদর উপজেলার তিতার খাপাড়া বিদ্যালয়ের ষষ্ঠ শ্রেণীর ছাত্র । নিহত আল আমীন গত ১২ মে সংঘর্ষে আহত হয়েছিল।

পূর্বধলায় চেয়ারম্যান প্রার্থীর

ওপর হামলা

নিজস্ব সংবাদদাতা নেত্রকোনা থেকে জানান, পূর্বধলা উপজেলার বিশকাকুনি ইউনিয়নে রবিবার সকালে নির্বাচনী প্রতিপক্ষের হামলায় এক স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থীসহ কমপক্ষে ৮-১০ জন আহত হওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ সময় চারটি মোটরসাইকেলও ভাংচুর করা হয়। আহত স্বতন্ত্র প্রার্থী আল আমিনকে পূর্বধলা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

আওয়ামী লীগের মনোনয়নবঞ্চিত প্রার্থী আল আমিন জানান, রবিবার সকাল ১০টার দিকে তিনি ও তার সমর্থকরা নির্বাচনী প্রচারের উদ্দেশ্যে বালুচড়া এলাকায় গেলে আওয়ামী লীগ দলীয় প্রার্থী আমজাদ হোসেনের লোকজন তাদের ওপর হামলা চালায়। এতে তার হাতের কয়েক স্থান কেটে যায়। এছাড়া ফয়জুল্লাহ, হাসান মিয়া ও ইজাজুল ইসলামসহ তার ৮-১০ সমর্থক আহত হয়। এ সময় তারা চারটি মোটরসাইকেলও ভাংচুর করে। এ বিষয়ে নৌকার প্রার্থী আমজাদ হোসেন বলেন, স্বতন্ত্র প্রার্থী আল আমিন ও তার লোকজন আমার পোস্টার ছেঁড়ার সময় জনতার ধাওয়ায় পড়ে গিয়ে আহত হয়।

তিতাসে বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় চেয়ারম্যান

নিজস্ব সংবাদদাতা দাউদকান্দি থেকে জানান, তিতাস উপজেলার জিয়ারকান্দি ইউনিয়ন থেকে আওয়ামী লীগের প্রার্থী উপজেলা যুবলীগের যুগ্ম-আহ্বায়ক মোঃ মনির হোসেন সরকার বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় ইউপি চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন। বিএনপি প্রার্থী বর্তমান চেয়ারম্যান এমদাদ হোসেন আখন্দ বৃহস্পতিবার তার মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করে নেয়ায় ওই ইউনিয়নে নির্বাচনী মাঠে আর কোন প্রতিদ্বন্দ্বী না থাকায় তিনি নির্বাচিত হয়েছেন।

হবিগঞ্জে ৩০ বিদ্রোহী প্রার্থীকে

আ’লীগ থেকে বহিষ্কার

নিজস্ব সংবাদদাতা হবিগঞ্জ থেকে জানান, কেন্দ্রীয় নির্দেশ উপেক্ষা করে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নামায় ৩০ বিদ্রোহী প্রার্থীকে বহিষ্কার করেছে হবিগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগ। শনিবার মধ্যরাতে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আবু জাহির এমপি ও সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মজিদ খান এমপির নির্দেশে দফতর সম্পাদকের জারি করা এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ সিদ্ধান্তের কথা জানানো হয়।

বহিষ্কৃতরা হলেনÑ জেলার মাধবপুর উপজেলাধীর বহরা ইউনিয়নের আরিফুর রহমান, আদাওর ইউনিয়নের জহিরুল ইসলাম, আন্দিউড়া ইউনিয়নের মিজানুর রহমান, শাহজাহানপুর ইউনিয়নের বাবুল হোসেন খান, তৌফিকুর রহমান চৌধুরী ও মিজানুর রহমান, ছাতিয়ান ইউনিয়নের আব্দুস শহিদ ও বাঘাসুরা ইউনিয়নের শাহাব উদ্দিন।

নবীগঞ্জ উপজেলার ইনাতগঞ্জ ইউনিয়নের সায়েদ উদ্দিন সায়েদ, কুর্শি ইউনিয়নের আব্দুল মুকিত, আব্দুল বাছিত চৌধুরী, সদর ইউনিয়নের মিরাজ আলী, গজনাইপুর ইউনিয়নের অভিযুক্ত যুদ্ধাপরাধী আবুল খায়ের গোলাপ, সফিকুল ইসলাম, কালিয়ার ভাঙ্গা ইউনিয়নের নজরুল ইসলাম। লাখাই উপজেলার মুড়াকড়ি ইউনিয়নের আবুল কাশেম মোল্লা ফয়সল, সালাউদ্দিন সুমন, মোঃ সোবহান মিয়া, মোড়াকুড়ি ইউনিয়নের মাসুক মিয়া তালুকদার, বামৈ ইউনিয়নের সর্দার ওমর ফারুক, ফারুক আহমেদ, হারুনুর রশীদ নাঈম, কাউছার আহমেদ, জীবন মিয়া, এনামুল হক মামুন, করাব ইউনিয়নের জুয়েল রানা, সফিল মিয়া, বুল্লা ইউনিয়নের এ্যাডভোকেট মোশারফ হোসেন শিপন, গিয়াস উদ্দিন ও অমূল্য রায়।

বাঘারপাড়ার স্বতন্ত্র

প্রার্থীকে হুমকি

স্টাফ রিপোর্টার যশোর অফিস থেকে জানান, বাসুয়াড়ি ইউনিয়নে স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী আবু সাঈদ সরদারের নির্বাচনী অফিস দখল করে নিয়েছে আওয়ামী লীগ প্রার্থীর সমর্থকরা। একই সঙ্গে তাকে হত্যা ও ষড়যন্ত্রমূলক মামলায় ফাঁসানোর হুমকি দেয়া হয়েছে। রবিবার যশোর প্রেসক্লাব মিলনায়তনে সংবাদ সম্মেলনে এ অভিযোগ করেছেন স্বতন্ত্র প্রার্থী আবু সাঈদ সরদার। স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক আবু সাঈদ সরদার এ সময় জানান, তিনি স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচনে অংশ নেয়ায় আওয়ামী লীগের প্রার্থী আমিনুর রহমান সরদার নানা হুমকি-ধমকি দিয়ে আসছেন।