২০ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট পূর্বের ঘন্টায়  
Login   Register        
ADS

মূলধন ঘাটতি নেই জনতা ব্যাংকে


অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ বর্তমানে জনতা ব্যাংকের কোনো মূলধন ঘাটতি নেই। সরকারের কাছ থেকে পুনঃমুলধনীকরনের কোন প্রয়োজনীয়তাও নেই। তাছাড়া গত বছরে ব্যাংকের মূলধন পর্যাপ্ততার হার বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্ধারিত ন্যূনতম হার ১০ শতাংশ থেকে বেশী হয়েছে। ২০১৫ সালে জনতা ব্যাংক কর ও প্রভিশন বাদে ৪৮০ দশমিক ৭৯ কোটি টাকা নীট মুনাফা অর্জন এবং শেয়ার প্রতি ২৫ দশমিক ১২ টাকা আয় করে। ওই বছর ব্যাংকের মোট সম্পদ ৮ দশমিক ৭১ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়ে ৬৮ হাজার ৩১৬ কোটি টাকায় উন্নীত হয়েছে। গেল বছর শ্রেণীকৃত ঋণের হার ১২ দশমিক ৩৪ শতাংশে দাঁড়ায়, যা রাষ্ট্র মালিকানাধীন ব্যাংকগুলোর মধ্যে সবচেয়ে কম। এছাড়া গতবছর আয়কর, ভ্যাট, আবগারী শুল্ক, উৎসে করসহ ব্যাংকটি ৭৮৯.৬৬ কোটি টাকা সরকারী কোষাগারে জমা করে। রবিবার জনতা ব্যাংক লিমিটেডের ৯ম বার্ষিক সাধারণ সভায় (এজিএম) এসব তথ্য তুলে ধরা হয়।

প্রধান কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত সভায় সভাপতিত্ব করেন ব্যাংকের চেয়ারম্যান শেখ মো. ওয়াহিদ-উজ-জামান। উপস্থিত ছিলেন ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের অতিরিক্ত সচিব গকুল চাঁদ দাস এবং ব্যাংকের পরিচালক মো. এমদাদুল হক, এ কে এম কামরুল ইসলাম, এফসিএ, মানিক চন্দ্র দে, খন্দকার সাবেরা ইসলাম, মো. মোফাজ্জল হোসেন, মসিহ্ মালিক চৌধুরী এফসিএ, এ কে ফজলুল আহাদ, সিইও এ্যান্ড ম্যানেজিং ডিরেক্টর মো. আবদুস সালাম, এফসিএ, ব্যাংকের ডিএমডি হাসান ইকবাল, আফরোজা গুল নাহার, মো. গোলাম ফারুক, মো. আব্দুছ ছালাম আজাদ এবং কোম্পানী সচিব মো. মোসাদ্দেক-উল-আলমসহ মহাব্যবস্থাপকবৃন্দ।

ব্যাংকের চেয়ারম্যান শেখ মো. ওয়াহিদ-উজ-জামান বলেন, আধুনিক ব্যাংকিং সেবা জনগনের দোড়গোড়ায় পৌঁছানোর লক্ষ্যে কাজ করছে জনতা ব্যাংক। এ ব্যাংকের রিয়েল টাইম অন-লাইন ব্যাংকিং সেবার মাধ্যমে সম্মাণিত গ্রাহকবৃন্দ দ্রুততম সময়ে ব্যাংকিং সেবা পাচ্ছেন। এ ছাড়া ব্যবসাবান্ধব নতুন নতুন পণ্য, এসএমই ঋণ ও নারী উদ্যোক্তাদের মাঝে ঋণ বিতরনসহ ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের ঋণ প্রদানে অগ্রাধিকার দিচ্ছে জনতা ব্যাংক। ব্যাংকের ব্রান্ডিং ইমেজ বৃদ্ধিতে ব্রান্ড ম্যানুয়াল তৈরি করা হয়েছে। সে প্রেক্ষিতে শাখা সমূহের অভ্যন্তরীন ও বাহ্যিক সাজ-সজ্জার মাধ্যমে পরিমার্জিত ও আকর্ষনীয় করা হচ্ছে। সিইও এবং ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. আবদুস সালাম এফসিএ ব্যাংকের বিভিন্ন কর্মকান্ডে আর্থিক ফলাফলের বিস্তারিত বিবরনসহ ভবিষ্যত কর্মপন্থা তুলে ধরেন। তিনি জানান, গ্রাহকদের রিয়েল টাইম অনলাইন ব্যাংকিং সেবা প্রদানের জন্য চলতি বছরের মধ্যে ব্যাংকের সকল শাখা অনলাইনের আওতায় আনা হচ্ছে। বর্তমানে ব্যাংকের ৫২৬টি শাখা অনলাইন সেবার আওতায় এসেছে। ব্যাংকের নিজস্ব সফটওয়ারের মাধ্যমে অনলাইন সুবিধার মতই ইতিমধ্যে গ্রাহকরা ব্যাংকের যে কোন শাখা থেকে সর্বোচ্চ ১০ লক্ষ টাকা পর্যন্ত জমা বা উত্তোলন করতে পারছেন।

সভায় উপস্থাপিত আর্থিক প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়, ২০১৫ সালে ব্যাংকটির পরিচালন মুনাফা ছিল ১,০৭২.০৫ কোটি টাকা। ২০১৪ সালের তুলনায় গত বছর ব্যাংকের আমানত ৮ দশমিক ৮০ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়ে ৫৬ হাজার ৮৯১ কোটি টাকায় উন্নীত হয়। সভায় ২০১৫ সালে অনুষ্ঠিত ৮ম বার্ষিক সাধারণ সভার কার্যবিবরণী নিশ্চিতকরন, ২০১৫ সালের নিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন এবং ২০১৬ সালের জন্য অডিটর নিয়োগ ও ব্যাংকের পরিচালনা পর্ষদের পরিচালকগণের অবসরগ্রহন ও পুনঃ নির্বাচন অনুমোদিত হয়। এছাড়া সভায় বিগত বছরগুলোর ন্যায় এ বছরও জনতা ব্যাংক সরকারকে এক কোটি টাকা নগদ লভ্যাংশ প্রদানের সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: