২১ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট ৭ ঘন্টা পূর্বে  
Login   Register        
ADS

আজ স্বরূপে ফিরবেন মুস্তাফিজ?


স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ টানা দুই ম্যাচে উইকেটশূন্য, দিল্লী ডেয়ারডেভিলসের বিপক্ষে শেষ ম্যাচে রান দিয়েছেন ৩৯Ñ ভক্তকুল তো বটেই, শত্রুরও বিশ্বাস করতে কষ্ট হচ্ছে! এ কোন মুস্তাফিজুর রহমান? আধুনিক টি২০তে দুটি ম্যাচ খারাপ গেলে প্রশ্নের অবকাশ নেই। কিন্তু বোলারটির নাম যখন মুস্তাফিজ তখন যুক্তি ছাপিয়ে আবেগটাই বড় হয়ে ওঠে। যে জায়গাটা তিনি নিজেই তৈরি করেছেন। ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লীগে (আইপিএল) অভিষেক আসরেই ক্রিকেট বিশ্বে ‘অন্যরকম এক ঝড়’ তুলেছেন টাইগার-কাটার মাস্টার। দুরন্ত সব সেøায়ার-ইয়র্কারে বিরাট কোহলি, এবি ডি ভিলিয়ার্সের মতো রাঘব বোয়াল উইলোবাজদের নাস্তানাবুদ করে ছাড়ছেন। সেই তাকেই কিনা মুদ্রার উল্টো পিঠও দেখতে হচ্ছে! কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবের বিপক্ষে আজ মাঠে নামছে মুস্তাফিজদের সানরাইজার্স হায়দরাবাদ। সব ছাপিয়ে তাই প্রশ্ন, স্বরূপে ফিরবেন মুস্তাফিজ? এর আগে রাইজিং পুনে সুপারজায়ান্টসের বিপক্ষে দুটি ম্যাচে উইকেট পাননি। পুনে কোচ স্টিফেন ফ্লেমিং বলেছিলেন, মুস্তাফিজ-রহস্য আবিষ্কার করেছেন তারা। কিউই গ্রেটের কণ্ঠে অবশ্য প্রশংসাও ছিল। আর বাংলাদেশী পেসারকে ঠেকিয়ে দেয়ার পর দিল্লী অলরাউন্ডার ক্রিস মরিস জানিয়েছেন, ‘দ্যা ফিজকে’ নিয়ে তাদের দলে ব্যাপক গবেষণা হয়েছে,‘অনেকেই জানেন না, পর্দার পেছনে আমাদের কতটা পরিশ্রম করতে হয়েছে। মুস্তাফিজের ভিডিও বিশ্লেষণের পর আমরা একটা পরিকল্পনা তৈরি করেছিলাম। সৌভাগ্যবসত সেটা কাজে লেগে গেছে!’ মুস্তাফিজকে সেদিন বেধড়ক পিটিয়েছেন সঞ্জু স্যামসন, কুইন্টন ডি কক ও ঋষভ পান্থের মতো তরুণ ব্যাটসম্যান। ঝড় তুলে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে আসা একজন বোলারকে নিয়ে কাটাছেঁড়া হবে সেটাই স্বাভাবিক। আইপিএলে যোগ দেয়ার সময়ই অনেক বিশ্লেষক বলেছিলেন, এটা তার জন্য নতুন পরীক্ষা।

কিন্তু তিনটি ম্যাচে খারাপ করায় এখনই তাকে হিসেবের খাতা থেকে বাদ দিলে ভুল হবে, সেটিও স্মরণ করিয়ে দিয়েছেন মরিস। মুস্তাফিজের বলের বিপক্ষে এলবিডব্লিউ কিংবা ওয়াইড দিতে গিয়ে বিভ্রান্তির কথা স্বীকার করছেন খোদ আম্পায়ার! ১১ ম্যাচে ১৩ উইকেট নিয়ে টুর্নামেন্টের তৃতীয় সর্বোচ্চ উইকেট শিকারি আজ জ্বলে উঠবেন, তার ভক্ত ও দল দিল্লীর তেমনটাই চাওয়া। ১১ ম্যাচে ৭ জয়ে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে ডেভিড ওয়ার্নারের দল। ব্যাটে-বলে হায়দরাবাদকে ওড়ানোর রূপকার ওয়ার্নার, শিখর ধাওয়ান, মুস্তাফিজ, আশিষ নেহরা, ভূবনেশ্বর কুমার। অন্যদিকে ৮ হারে কার্যত কোয়ালিফাইং রাউন্ডে যাওয়ার আশা শেষ প্রতিপক্ষ পাঞ্জাবের। মুরলি বিজয়-ডেভিড মিলারদের হারানোর কিছু নেই! আছেন হাসিম আমলা, মান ভোরা, ঋদ্ধিমান সাহার মতো ক্রিকেটার। দিনের অপর ম্যাচে এগিয়ে থাকবে দিল্লী। ১০ ম্যাচে ৬ জয়ে পয়েন্ট টেবিলের তৃতীয় স্থানে জহির খানের দল। ব্যাটে-বলে ভাল করছেন ডি কক, স্যামসনরা। আছেন জেপি ডুমিনি, ক্রিস মরিসের মতো বিদেশী। নাথান কাল্টার নাইল, মোহাম্মদ সামি ও স্পিনার অমিত মিশ্র চমৎকার বল করছেন। ১২ ম্যাচে ৬ জয়ে টেবিলের পঞ্চম স্থানে ‘ডিফেন্ডিং’ চ্যাম্পিয়ন মুম্বাই। শেষ চারের রেসে টিকে থাকতে ম্যাচটা রোহিত শর্মাদের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। আছেন কাইরন পোলার্ড, হরভজন সিং, মিচেল ম্যাকক্লেনঘান, জস বাটলারের মতো ক্রিকেটার।

সর্বাধিক পঠিত:
পাতা থেকে: