২২ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে তিনটি সেতুর মূল পাইলিংয়ের কাজ আগামী সেপ্টেম্বরে শুরু হবে: ওবায়দুল কাদের


নিজস্ব সংবাদদাতা, নারায়ণগঞ্জ ॥ সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ঢাকা চট্টগ্রাম মহাসড়কের দ্বিতীয় কাচঁপুর, মেঘনা, মেঘনা-গোমতী নতুন চার লেন বিশিষ্ট তিনটি সেতুর মূল পাইলিংয়ের কাজ আগামী সেপ্টেম্বর মাসে শুরু হবে। ২০১৮ সালের নির্ধারিত সময়ের দুই মাস আগে অথাৎ সেপ্টম্বর-অক্টোবর মাসে সেতু তিনটির নির্মাণ কাজ শেষ হবে। ওই বছরই জনগণের যানচলাচলের জন্য সেতু তিনটি উন্মোক্ত করে দেয়া হবে।

শনিবার দুপুরে নারায়ণগঞ্জে মেঘনা নদীর উপর নির্মিত দ্বিতীয় মেঘনা সেতুর নির্মাণ কাজের অগ্রগতি পরির্দশনে এসে তিনি সাংবাদিকদের এ সব কথা বলেন। এ সময় মন্ত্রীর সঙ্গে ছিলেন সেতু বিভাগ ও জাপানের টোকিও কনস্ট্রাকশশেন উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন, জাপানের আর্থিক সহায়তায় সাড়ে আট সাড়ে আট হাজার কোটি টাকা ব্যয়ে অত্যাধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহার করে সেতু তিনটি নির্মাণ করা হচ্ছে। জাপানের টোকিও কনট্রাকশন ফার্ম সেতু তিনটির নির্মাণ কাজটি করছে। ওবায়দুল কাদের আরো বলেন, তিনটি সেতুর নির্মাণ কাজের বেশ দৃশ্যমান অগ্রগতি হয়েছে। সেতুর বেশ কিছু কাজ দেশের বাইরে সিঙ্গাপুরে চলছে। এর মধ্যে রয়েছে সিঙ্গাপুরে ৪০টি বার্জ, ২৪ টি ক্রেন, কংক্রিট ব্যাচিং প্লান্ট এবং ১৭টি ড্রাইভিং হ্যামারের নির্মাণ কাজ শেষ পর্যায়ে। ইতিমধ্যে ৪টি বার্জ চট্টগ্রাম বন্দরে কাষ্টমস ক্লিয়ারেন্সের জন্য অপেক্ষামান। দুই সপ্তাহের মধ্যে আরো ৬টি বার্জ চট্টগ্রাম বন্দরে আসবে। জুনের মধ্যে আরো ৬টি বার্জ চট্টগ্রাম বন্দর হয়ে সাইটে পাওয়া যাবে। একই সঙ্গে ক্রেন, কংক্রিট ব্যাচিং প্লান্ট এবং ড্রাইভিং হ্যামার সাইটে চলে আসবে। নদীর তলদেশে কাউরিংয়ের জন্য এসপি এসপি নির্মাণ কাজ চলছে। যেগুলি খুবই আধুনিক প্রযুক্তির নির্ভর। তিনি বলেন, নতুন সেতু তিনটি নির্মাণ শেষে ২০১৮ সালের ডিসেম্বরে পুরাতন সেতু তিনটি পুণর্বাসন কাজ শুরু করে ২০১৯ সালের অক্টোবর মাসে তা সম্পন্ন করা হবে।

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: