২১ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

ওয়ারীকে হারিয়ে ঊষার শুভসূচনা


স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ ক’দিন আগেই ক্লাব কাপ হকিতে রানার্সআপ হয়েছে ঊষা ক্রীড়া চক্র। ফাইনালে আগে গোল করেও শোচনীয়ভাবে ৫-১ গোলে হেরে গিয়েছিল ঢাকা আবাহনী লিমিটেডের কাছে। সেই হারের দগদগে ঘা এখনও শুকায়নি ঊষা শিবিরের সবার। এই ঘা শুকানোর মোক্ষপ উপায় একটাইÑ ‘গ্রিন ডেল্টা ইন্স্যুরেন্স প্রিমিয়ার বিভাগ হকি লীগ’-এর শিরোপাটা নিজেদের করে নেয়া। সেই লক্ষ্যে শুক্রবার শুভসূচনা করেছে দেশীয় হকির অন্যতম এই পরাশক্তি। মওলানা ভাসানী জাতীয় হকি স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত খেলায় তারা ৪-১ গোলে হারায় ওয়ারী ক্লাবকে। ম্যাচের প্রথমার্ধে বিজয়ী দল এগিয়ে ছিল ৩-০ গোলে।

বিজয়ী দল ম্যাচের আগাগোড়াই প্রতিপক্ষের ওপর আধিপত্য বিস্তার করে খেলে এবং একের পর এক গোল আদায় করে নেয়। ম্যাচের ৭ মিনিটে গোল করে এগিয়ে যায় ঊষা। সতীর্থের সহায়তায় নাইম উদ্দিন চমৎকার ১টি ফিল্ড গোল করে এগিয়ে দেন দলকে (১-০)। এরপর ২২ মিনিটে পেনাল্টি কর্নার থেকে আরেকটি গোল করে ব্যবধান দ্বিগুণ করে ঊষা। গোলদাতা মাহবুব হোসেন। ঊষার তারকা খেলোয়াড় কৃষ্ণ কুমার ম্যাচের ৩৪ মিনিটে ফিল্ড গোল করলে ব্যবধান দাঁড়ায় ৩-০। এই স্কোরেই বিরতিতে যায় উভয় দল।

বিরতির পর ওয়ারী কিছুটা ঘুরে দাঁড়ানোর চেষ্টা করে। তাদের নেই চেষ্টা সফলতার মুখ দেখে ম্যাচের ৫২ মিনিটে। সিহান একটি গোল পরিশোধ করেন (১-৩)। এই গোলে ম্যাচে কিছুটা উত্তেজনার সৃষ্টি হয়। গ্যালারিতে উপস্থিত দর্শকরা যখন ধরে নিয়েছিলেন ওয়ারী হয় তো আরও দুটি গোল করে ম্যাচে সমতা এনে ফেলবে। ঠিক তখনই ঊষার হাসান যুবায়ের নিলয় ৬০ মিনিটে একটি ফিল্ড গোল করলে সেই ধারণা ভুল প্রমাণিত হয় (৪-১)। খেলা শেষে পূর্ণ পয়েন্ট নিয়ে মাঠ ছাড়ে ঊষা ক্রীড়া চক্র। এবারের লীগের দলগুলো হলো : আবাহনী, মোহামেডান, ঊষা, সোনালী ব্যাংক, আজাদ, ওয়ারী, অ্যাজাক্স, মেরিনার, সাধারণ বীমা, বাংলাদেশ স্পোর্টিং, রেলওয়ে এবং ওয়ান্ডারার্স।

লীগে অংশ নিচ্ছে ১২ দল। দলগুলো প্রথম পর্বে সরাসরি লীগ পদ্ধতিতে খেলবে। প্রথম পর্ব শেষে সর্বোচ্চ পয়েন্ট পাওয়া ৬ দল খেলবে সুপার সিক্স লীগে। লীগের প্রতি খেলায় বিজয়ী দল ৩, ড্র হলে ১ ও হারলে শূন্য পয়েন্ট পাবে। প্রথম পর্বে অর্জিত পয়েন্ট যোগ করে প্রিমিয়ার বিভাগে সুপার সিক্স লীগের স্থান নির্ধারিত হবে। প্রথম পর্বের গোলসংখ্যা সুপার সিক্সে যোগ হবে না। সুপার সিক্সে পক্ষে এবং বিপক্ষে গোল স্থান নির্ধারণের জন্য ধরা হবে। তবে এই নিয়ম চ্যাম্পিয়ন ও রানার্সআপ দলের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য হবে না।

প্রথম পর্ব ও সুপার সিক্স খেলা শেষে সর্বোচ্চ পয়েন্ট পাওয়া দলকে লীগ চ্যাম্পিয়ন ও দ্বিতীয় সর্বোচ্চ পয়েন্ট পাওয়া দলকে রানার্সআপ হিসেবে ঘোষণা করা হবে। তবে পয়েন্ট সমান হলে গোল পার্থক্য ধরা হবে না। সর্বোচ্চ পয়েন্ট অর্জনকারী দলের সংখ্যা বেশি হলে প্লে অব ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে। ওই ম্যাচ ড্র হলে পেনাল্টি শূট আউটের মাধ্যমে খেলার ফল নিষ্পত্তি করা হবে।

লীগের চ্যাম্পিয়ন দল পাবে ১ লাখ এবং রানার্সআপ দল পাবে ৫০ হাজার টাকা। ফেয়ার প্লে খেলা দল পাবে ট্রফি। সেরা খেলোয়াড় ও সর্বোচ্চ গোলদাতাকেও দেয়া হবে পুরস্কার।

সর্বাধিক পঠিত:
পাতা থেকে: