২০ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

৮১ বছর বয়সেও ভাতা পাননি তারিনী


বিশ্বজিৎ মনি, নওগাঁ ॥ সংখ্যালঘু বৃদ্ধ তারিনী মহন্তের বয়স ৮১ বছর পেরিয়ে গেলেও তার ভাগ্যে জোটেনি বয়স্ক ভাতার কার্ড! পরিবার ও সরকারীভাবে কোন সহায়তা না পাওয়ার তাকে এ বয়সেও কামলা দিয়ে জীবিকা নির্বাহ করতে হচ্ছে। বর্তমানে বয়সের ভারে অনেকটাই ন্যুয়ে পড়েছে তার শরীর। মানবেতর জীবনযাপন করছেন তিনি।

তারিনী মহন্তের বাড়ি ধামইরহাট উপজেলার জাহানপুর ইউনিয়নের নানাইচ বৈরাগীপাড়া গ্রামে। বাবা কৃষ্টলাল মহন্তের ৪ ছেলের মধ্যে একজন তারিনী মহন্ত। বাবার জোত জমি বলতে কিছু নেই। মাত্র ১৪ শতাংশ জমি রয়েছে। সেই জমিতে কোন রকমে বসবাস করছেন তারিনী। তারিনী মহন্ত ও তার বড় ভাই বিশ্বনাথ মহন্ত (৮৪) বিয়ে করেননি। চিরকুমার তারিনী ও তার বড় ভাই অন্য এক ভাইয়ের ছেলে নরেন বাবুর ঘরের বারান্দায় বর্তমানে তাদের বসবাস। ভাইপোদের ফসলের কোন জমি নেই। অন্যের জমিতে কামলা দিয়ে তাদের সংসার চলে। বয়সের ভারে ন্যুইয়ে পড়া দুই ভাইয়ের শরীরে বিভিন্ন রোগবালাই বাসা বাঁধতে শুরু করেছে। তারা আর আগের মতো মাঠে কাজ করতে পারে না। বিশ্বনাথ মহন্ত মাঠ থেকে গাভী নিয়ে বাড়ি ফেরার পথে পড়ে গিয়ে তার ডান পা ভেঙ্গে গেছে। প্রায় দুই মাস থেকে সে কষ্ট ভোগ করছে। অর্থের অভাবে চিকিৎসা নিতে পারছে না। এছাড়া সমস্ত শরীরে বাতের ব্যথা, দৃষ্টিশক্তি কমে যাওয়া, শরীর দুর্বলসহ বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হয়ে বর্তমানে তিনি বিছানাগত রয়েছেন।