মেঘলা, তাপমাত্রা ৩১.১ °C
 
২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ১১ আশ্বিন ১৪২৪, মঙ্গলবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
সর্বশেষ

যুবতী ও গৃহবধূসহ চার খুন

প্রকাশিত : ১৪ মে ২০১৬

জনকণ্ঠ ডেস্ক ॥ সুনামগঞ্জে হোটেল কক্ষে যুবতীকে খুন করা হয়েছে। এছাড়া সীতাকু- ও টঙ্গীতে দুই গৃহবধূ খুন ও এক নারীর বস্তাবন্দী লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। খবর নিজস্ব সংবাদদাতাদের।

সুনামগঞ্জ ॥ শহরের পুরাতন বাসস্টেশন এলাকার একটি আবাসিক হোটেল থেকে এক যুবতীর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। শুক্রবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে আল হেলাল ইন্টার ন্যাশনাল নামের হোটেলটির নিচতলার একটি কক্ষ থেকে চুমকি আক্তার (২২) এ যুবতীর লাশ উদ্ধার করা হয়।

পুলিশ ও হোটেলকর্মীদের দেয়া তথ্য অনুযায়ী বৃহস্পতিবার রাতে স্বামী-স্ত্রী পরিচয় দিয়ে মহিম নামের এক ব্যক্তি ও চুমকি কক্ষটি ভাড়া নিয়েছিল। সকালে হোটেল থেকে মহিম কৌশলে পালিয়ে যায়। পরে পচ্ছিন্নতাকর্মী কক্ষটিতে গিয়ে চুমকির লাশ দেখতে পেয়ে পুলিশে খবর দেয়।

সীতাকু- (চট্টগ্রাম) ॥ সীতাকু-ে স্বামী ও শ্বশুর-শাশুড়ির পাশবিক নির্যাতনে বিবি জোহরা (৩০) নামে এক গৃহবধূর মৃত্যু হয়েছে। বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ১০টায় চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। এদিকে এ ঘটনার পর হাসপাতালে গৃহবধূর লাশ রেখে পালিয়ে যায় তার স্বামী, শ্বশুর-শাশুড়িসহ অন্যরা। নিহত জোহরা দুই সন্তানের জননী ও উপজেলার পূর্ব মুরাদপুর ইউনিয়নের হাসনাবাদ এলাকার মৃত নুরুল হুদার পুত্র স্বপনের স্ত্রী। এ ঘটনায় শুক্রবার দুপুরে জোহরার বড় ভাই বাদী হয়ে সীতাকু- মডেল থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।

জানা যায়, পারিবারিক কলহের জের ধরে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় বিবি জোহরার ওপর পাশবিক নির্যাতন চালায় তার শ্বশুরালয়ের লোকজন। নির্যাতনের এক পর্যায়ে গৃহবধূ অজ্ঞান হয়ে পড়লে তারা তাকে সীতাকু- স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। এ সময় গৃহবধূর অবস্থা সংকটাপন্ন হওয়ায় চিকিৎসক জোহরাকে চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেন। হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাতে তার মৃত্যু হয়।

টঙ্গী ॥ স্বামীর নির্যাতনে অবশেষে মারা গেল গৃহবধূ ঝর্ণা আক্তার (২৪)। পুলিশ ঘাতক স্বামী নয়ন মিয়াকে শুক্রবার টঙ্গীর সাতাইশ মাতবর মার্কেট থেকে গ্রেফতার করেছে।

স্থানীয়রা জানান, নয়ন মিয়া কথায় কথায় ঝর্ণাকে নির্যাতন করত। তার নির্যাতনে ঝর্ণা প্রায়ই অসুস্থ হয়ে পড়ত। গত বৃহস্পতিবার দুপুরে ভাত রান্নায় দেরি হওয়ায় ঝর্ণাকে বেদড়ক মারপিট করে নয়ন। এতে ঝর্ণা অসুস্থ হয়ে পড়লে প্রতিবেশীরা স্থানীয় একটি ফার্মেসিতে নিয়ে প্রাথমিক চিকিৎসা দেন। বৃহস্পতিবার রাত ১টার দিকে ঝর্ণার অবস্থার অবনতি ঘটলে প্রতিবেশীদের চাপে নয়ন ঝর্ণাকে স্থানীয় একটি প্রাইভেট মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার পথে সে মারা যায়। নয়ন লাশ নিয়ে বাসায় ফিরলে স্থানীয়রা তাকে আটক করে থানায় খবর দেয়। শুক্রবার পুলিশ নয়নকে আটক করে। ঝর্ণা শেরপুর সদরের মোচারের চরের আইন উদ্দিনের মেয়ে। নয়নের বাড়ি সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়ায়।

অজ্ঞাত এক নারীর (৩২) বস্তাবন্দী লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। শুক্রবার সকালে টঙ্গীর খরতৈল ব্যাংকপাড়া এলাকায় রাস্তার পাশ থেকে মরদেহটি উদ্ধার করা হয়। পুলিশ জানান, শুক্রবার সকালে টঙ্গীর খরতৈল ব্যাংকপাড়া এলাকায় রাস্তার পাশে বস্তাবন্দী লাশটি পড়ে থাকতে দেখে স্থানীয়রা থানায় খবর দেন। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে লাশটি উদ্ধার করে।

প্রকাশিত : ১৪ মে ২০১৬

১৪/০৫/২০১৬ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

দেশের খবর



শীর্ষ সংবাদ: