২১ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট পূর্বের ঘন্টায়  
Login   Register        
ADS

ম্যারাথনে ছুটবেন হাত-পা বিহীন শালিনী


ম্যারাথনে ছুটবেন হাত-পা বিহীন শালিনী

অনলাইন ডেস্ক॥ জটিল অসুখে দুই হাত ও দুই পা খুইয়েছেন, তবু শুধুমাত্র অদম্য মনোবল সম্বল করে বেঙ্গালুরু ম্যারাথনে নামছেন ৩৭ বছরের শালিনী।

বিরল ব্যাকটেরিয়া সংক্রমণের ফলে জীবনটাই পাল্টে গেছে শালিনীর। বিয়ের ৪ বছর পর তিনি যখন সন্তানসম্ভবা, সেই সময় মৃদু জ্বর দিয়ে শুরু হয়েছিল সেই অধ্যায়। ধীরে ধীরে তা মাল্টি অর্গ্যান ফেইলিওরে পরিণত হয়। গ্যাংগ্রিনের প্রকোপে শরীর থেকে বাদ পড়ে দুই হাত ও দুই পা। নষ্ট হয় গর্ভজাত শিশু। চিকিত্‍‌সকরা জানান, তাঁর বেঁচে থাকার সম্ভাবনা মাত্র ৫%। জীবনের এই কঠিনতম সময় তাঁকে ভরসা দিয়েছিল তীব্র ইচ্ছাশক্তি। সেই সঙ্গে অবশ্যই ছিল স্বামী পার্শ্বনাথ চৌদাপ্পা ও গোটা পরিবারের সহযোগিতা। তাই শেষ পর্যন্ত যাবতীয় প্রতিকূলতা জয় করতে পেরেছেন এক বেসরকারি সংস্থায় জেনারেল ম্যানেজার পদে অধিষ্ঠিত শালিনী সরস্বতী।

চার হাত-পায়ের একটিও অবশিষ্ট নেই, তবু ভারতনাট্যম শিল্পী হিসেবে প্রশংসা কুড়িয়েছেন শালিনী। শুধু তাই নয়, কৃত্রিম রানিং ব্লেডের সাহায্যে দূরপাল্লার রেসে নামার সাহসও দেখিয়েছেন। আগামী রবিবার বেঙ্গালুরুতে টিসিএস বিশ্ব ১০০০০ মিটার ম্যারাথনে নামছেন তিনি। প্রশিক্ষক বি পি আইয়াপ্পা কখনও তাঁকে বিশেষ ক্ষমতা সম্পন্ন কোয়াড্রুপল অ্যাম্প্যুটি অ্যাথলিট হিসেবে বিবেচনা করেন না, জানিয়েছেন শালিনী। অন্যান্য ছাত্র-ছাত্রীদের মতোই প্রতিদিন তাঁকে কঠিন পরিশ্রম করতে হয় বলে জানা গেছে।

কোচ জানিয়েছেন, 'আমি ওকে কখনো বিশেষ ক্ষমতা সম্পন্ন অ্যাথলিট হিসেবে দেখিনি। গত শনিবার শালিনী ১০০০০ মিটার রেস শেষ করেছে। আশা করছি রবিবার ও ৯০ মিনিটে রেস শেষ করতে পারবে।'

তবে এতেই থেমে থাকতে নারাজ শালিনী। আগামী ২০২০ সালের প্যারালিম্পিক্সে তিনি অংশগ্রহণ করার ব্যাপারে আশাবাদী। যে কার্বন ফাইবার রানিং ব্লেড পায়ে গলিয়ে শালিনী দৌড়ান, তার দাম ১০ লাখ টাকা। এক জার্মান সংস্থা রবিবারের রেসের জন্য ব্লেডজোড়া তাঁকে ধার দিয়েছে।

বেঙ্গালুরু ম্যারাথনে অংশগ্রহণ করতে চলেছেন বেশ কিছু চিত্র তারকা, ভিভিআইপি, সিইওদের মতো হেভিওয়েট দৌড়বাজ। নিঃসন্দেহে তাঁদের সকলের চেয়ে উজ্জ্বল উপস্থিতি থাকবে অপরিমিত ইচ্ছাশক্তির অধিকারী শালিনীর। আসুন তাঁর সাফল্যের জন্য প্রার্থনা করি।

সূত্র: এই সময়

সর্বাধিক পঠিত:
পাতা থেকে: