২৪ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট ৫ ঘন্টা পূর্বে  
Login   Register        
ADS

বোমা হামলায় আহত অনিক ও হৃদয় জিপিএ-৫ পাওয়ায় প্রধানমন্ত্রীর অভিনন্দন


২০১৪ সালে বিএনপি-জামায়াতের লাগাতার সহিংস জ্বালাও-পোড়াও আন্দোলন চলাকালে বোমা হামলায় আহত ফেনী সরকারী পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের ছাত্র মিনহাজুল ইসলাম অনিক ও শাহরিয়ার হৃদয় এবার এসএসসি পরীক্ষায় জিপিএ-৫ পাওয়ায় তাদের অভিনন্দন জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আর প্রধানমন্ত্রীর অভিনন্দন বার্তা পেয়ে আবারও অভিভূত ও কৃতজ্ঞ অনিক ও হৃদয়। খবর বাসসর।

বিএনপি-জামায়াতের সহিংস আন্দোলনে বোমা হামলায় আহত এই দুই ছাত্র পরবর্তীতে প্রধানমন্ত্রীর তদারকিতে চিকিৎসায় সুস্থ হয়ে ওঠে এবং জীবন সংগ্রামে এগিয়ে যাওয়ার প্রেরণা খুঁজে পায়। শেখ হাসিনার সহৃদয় চিকিৎসা সহায়তায় সুস্থ হয়ে এবার এসএসসি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে অনিক ও হৃদয় জিপিএ-৫ লাভ করে। তাদের এই কৃতিত্বের সংবাদ শুনে আনন্দে আপ্লুত হয়ে অনিক ও হৃদয়কে অভিনন্দন বার্তা পাঠিয়েছেন শেখ হাসিনা।

শুভেচ্ছা বার্তা পেয়ে আবেগাপ্লুত কৃতী এই দুই শিক্ষার্থী ও তাদের পরিবার প্রধানমন্ত্রীর প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। প্রধানমন্ত্রীর উপ-প্রেস সচিব আশরাফুল আলম খোকন বৃহস্পতিবার এসব কথা জানান। অনিক ও হৃদয় হচ্ছে ফেনী সরকারী পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের ছাত্র। ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারি দেশব্যাপী চলছিল বিএনপি-জামায়াতের অবরোধ, সন্ত্রাস আর সহিংস আন্দোলন, চলছিল তাদের পেট্রোলবোমা ও অগ্নি-সন্ত্রাসের ত্রাস। দেশজুড়ে হাজার হাজার মানুষ তাদের পেট্রোলবোমায় হতাহতের শিকার হন। এ নির্মম আন্দোলনের নিষ্ঠুরতা থেকে রেহাই পায়নি এই দুই পরীক্ষার্থী। কোচিং থেকে বাসায় ফিরছিল। পথে তারা শিকার হয় বিএনপি-জামায়াতের বোমা সন্ত্রাসের। চোখে-মাথায় মারাত্মক আঘাত পায় অনিক ও হৃদয়। একদিকে সামনে এসএসসি পরীক্ষা, অন্যদিকে চিকিৎসার ব্যয়ভার। এ সময় এই দুটি পরিবারের মধ্যে পথের দিশারী হয়ে আসেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। জামায়াত-বিএনপির সহিংসতার শিকার হাজার হাজার অসহায় পরিবারের মতো তাদেরও চিকিৎসার ব্যয়ভার নেন প্রধানমন্ত্রী।

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: