২১ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

মেসি-রোনাল্ডোর রাজত্ব ভাঙছেন সুয়ারেজ


স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ নিজেকে কি দুর্দান্তভাবেই না পাল্টে ফেলেছেন লুইস সুয়ারেজ। মাঠে অনাকাক্সিক্ষত কামড় কা-ের কাহিনীর জন্য উরুগুইয়ান এ তারকার ক্যারিয়ারই হুমকি মধ্যে পড়েছিল। ব্রাজিল বিশ্বকাপে এই ‘আকাম’ করে নিষিদ্ধ হয়েছিলেন সব ধরনের ফুটবল থেকে।

সেই থেকে নিজেকে বদলানোর শুরু সুয়ারেজের। এটি আরও বেগবান হয়েছে স্প্যানিশ পরাশক্তি বার্সিলোনায় নাম লিখিয়ে। কাতালান ক্লাবে এসে লিওনেল মেসি ও নেইমারের ছোঁয়ায় আমূলে পাল্টে ফেলেছেন নিজেকে। তাই তো চলতি মৌসুমে স্প্যানিশ লা লিগার সর্বোচ্চ দোলদাতা মর্যদার এ্যাওয়ার্ড ‘পিচিটি ট্রফি’ জিততে চলেছেন সুয়ারেজ। অসামান্য এই কীর্তির সন্নিকটে এখন তিনি। আর এজন্য সাবেক লিভারপুল তারকা দুই সতীর্থ মেসি ও নেইমারের অবদান সবচেয়ে বেশি বলে জানিয়েছেন।

সুয়ারেজ এক সাক্ষাতকারে জানিয়েছেন, যদি ‘পিচিচি’ ট্রফি জিতেই যান, তবে সেক্ষেত্রে মেসি আর নেইমারের অবদান থাকবে সবচেয়ে বেশি। চলতি মৌসুমে লা লিগায় আর একটি করে ম্যাচ খেলবে দলগুলো। ইতোমধ্যে সুয়ারেজ ৩৪ ম্যাচ খেলে করেছেন ৩৭ গোল। এক ম্যাচ বেশি খেলে রিয়াল মাদ্রিদের পর্তুগীজ ফরোয়ার্ড রোনল্ডো ৩৩ গোল করে ‘পিচিচি’ ট্রফি জেতার দৌড়ে আছেন দ্বিতীয় স্থানে। ৩২ ম্যাচ খেলে মেসি করেছেন ২৬ গোল। তাই চার গোলের ব্যবধানে এগিয়ে থাকা সুয়ারেজের সম্ভাবনাই বেশি থাকছে গৌরবময় পুরস্কারটি জেতার।

শেষ পর্যন্ত এটি হলে অসাধারণ কীর্তিই গড়বেন সুয়ারেজ। কেননা ২০০৯-১০ মৌসুম থেকে লা লিগার সর্বোচ্চ গোলদাতার পুরস্কার নিজেদের মধ্যেই ভাগাভাগি করে নিচ্ছেন রোনাল্ডো ও মেসি। ছয় মৌসুমে দুজনেই এই পুরস্কার জিতেছেন তিনবার করে। বিষয়টা অনেকটা ফিফা সেরা পুরস্কারের মতো। এবার সেই ধারাটি ভাঙতে চলেছেন অপ্রতিরোধ্য সুয়ারেজ। মজার বিষয় হলো ‘মেসি-রোনাল্ডো যুগ’ শুরুর আগে ২০০৮-০৯ মৌসুমেও লা লিগার সর্বোচ্চ গোলদাতার পুরস্কারটি উঠেছিল একজন উরুগুয়ের ফুটবলারের হাতে। সেবার এ্যাটলেটিকো মাদ্রিদের জার্সি গায়ে ৩২ গোল করে সর্বোচ্চ গোলদাতা হয়েছিলেন দিয়াগো ফোরলান। এ প্রসঙ্গে সুয়ারেজ জানিয়েছেন, পিচিচি ট্রফি জেতাতে আমাকে সব থেকে বেশি সাহায্য করছে মেসি-নেইমার। আমি যদি এই ট্রফি শেষ পর্যন্ত জিতেই যাই, তাহলে দলের বাকিদেরও আমি ধন্যবাদ দেব। সব ক্লাব সতীর্থ আমার দিকে তাকিয়ে আছে। আমি নিজেও জানি এই ট্রফি জিততে আমিই এগিয়ে আছি। সুয়ারেজ আরও জানান, দলের পেনাল্টি কিক নেয়ার জন্য মেসি আর নেইমার স্পেশালিস্ট হিসেবেই মাঠে উপস্থিত থাকে। তবে তারা আমাকে বার বার অনুরোধ করছে পেনাল্টি কিক নিয়ে নিজের গোল বাড়িয়ে নেয়ার জন্য। এ থেকেই বোঝা যায়, দলের বাকিদের মতো তারাও চায় আমি যেন ‘পিচিচি’ ট্রফি জিতে স্পেনের সর্বোচ্চ গোলদাতাদের তালিকায় শীর্ষস্থানটি পাই। শুধু তাদের জন্যই আমি আমার সর্বোচ্চ চেষ্টা করে যাব এই ট্রফি জিততে।

আর অসাধারণ এই স্বীকৃতির পথে রেকর্ড ভাঙ্গা গড়ার খেলাও খেলছেন সুযারেজ। এই যেমন আর মাত্র এক গোল করলেই তিনি হয়ে যাবেন উরুগুয়ের খেলোয়াড় হিসেবে বার্সিলোনার পক্ষে সর্বোচ্চ গোল করার নতুন রেকর্ডের মালিক। উরুগুয়ের ফুটবলার হিসেবে বার্সিলোনার জার্সি গায়ে সর্বোচ্চ ৮১ গোল করার রেকর্ডটি দীর্ঘদিন ধরে ছিল র?্যামন আলবার্তো ভিলাভার্ডে ভারকুয়েজের দখলে। ১৯৫৪ সাল থেকে দশ মৌসুমে মোট ২২৪ ম্যাচ খেলে ৮১ গোল করেছিলেন উরুগুয়ের সাবেক এই ফরোয়ার্ড। আর সুয়ারেজ ভারকুয়েজকে ছুঁয়ে ফেলেছেন দুটি মৌসুমেই। এখন পর্যন্ত ৯৪ ম্যাচ খেলেই ৮১ গোল করে ফেলেছেন সুয়ারেজ।