২৪ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

তিতাসে সংঘর্ষে আহত ৮


নিজস্ব সংবাদদাতা, দাউদকান্দি, ১২ মে ॥ তিতাসে দুই মেম্বার প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনায় আহত হয়েছে ৮ জন। এর মধ্যে দুই জনকে ঢাকা মেডিক্যালে প্রেরণ করা হয়। উভয় প্রার্থীর মামলায় ১ মেম্বারপ্রার্থীসহ ৪ জনকে গ্রেফতার করে কোর্টে প্রেরণ করেছে থানা পুলিশ। বুধবার রাত ৮টায় উপজেলার গৌরীপুর-হোমনা সড়কের বন্দরামপুর বাস স্টেশনে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। জানা যায়, উপজেলার কড়িকান্দি ইউনিয়নের বন্দরামপুর ৪নং ওয়ার্ডের মেম্বার প্রার্থী মোঃ ছাদির মেম্বার ও আবুল কাসেম মেম্বারের সমর্থকের মধ্যে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এ সময় উভয়পক্ষের সমর্থকদের মধ্যে ধাওয়া পাল্টাধাওয়া, দোকান ভাংচুরের ঘটনা ঘটে। এ সময় গৌরীপুর- হোমনা সড়কের যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। উক্ত ঘটনায় কাসেম মেম্বারের সমর্থকরা ছাদির মেম্বারের সমর্থক সামছুদ্দিন, সাইদুল ইসলাম, আক্তার হোসেন, মাইনুদ্দিন ভূঁইয়া, কাউসার ভূঁইয়া, আব্দুল কাদির ও মাসুদ ভূঁইয়াকে কুপিয়ে ও পিটিয়ে আহত করে।

রাজবাড়ীতে হামলার প্রতিবাদ

নিজস্ব সংবাদদাতা, রাজবাড়ী থেকে জানান, বিএনপির প্রার্থী ও কর্মী সমর্থকদের ওপর হামলা মামলা হুমকি ধমকি ও নির্যাতনের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন করেছে জেলা বিএনপি। বৃহস্পতিবার দুপুর ১২টায় জেলা বিএনপি তাদের জেলা কার্যালয়ে এ সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। এ সময় জেলা বিএনপির সভাপতি আলী নেওয়াজ মাহমুদ খৈয়ম তার বক্তব্যে বলেন, চলমান ইউপি নির্বাচনে জনগণের মতামতকে প্রতিষ্ঠিত করার জন্য বিএনপি অংশ নিয়েছে। কিন্তু সরকার এটিকে প্রহসনের নির্বাচন হিসেবে প্রমাণ করেছে। রাজবাড়ীতে ইউপি নির্বাচনকে কেন্দ্র করে বিএনপির নেতাকর্মী, সমর্থক এবং প্রার্থীদের ওপর নগ্ন হামলা হয়েছে। অজস্র মিথ্যা মামলা দেয়া হয়েছে। মারধর, বাড়িঘর ভাংচুর, অগ্নিসংযোগসহ প্রার্থীদের প্রাণনাশের হুমকি দেয়া হয়েছে। এর ফলে ভোটাররা নির্ভয়ে তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে পারেনি। প্রার্থীরাও স্বাধীনভাবে নির্বাচন করতে পারেনি।

লক্ষ্মীপুরে দুই চেয়ারম্যান প্রার্থীর ওপর হামলা

নিজস্ব সংবাদদাতা লক্ষ্মীপুর থেকে জানান, কমলনগর উপজেলার চরলরেন্স ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) বর্তমান চেয়ারম্যান ও আসন্ন ষষ্ঠ ধাপের ইউপি নির্বাচনে বিএনপি মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী মোশারফ হোসেন খোকন এবং স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী খোকনের স্ত্রী ফরিদা ইয়াসমিনের ওপর হামলা চালিয়েছে প্রতিপক্ষ আওয়ামী লীগ চেয়ারম্যান প্রার্থীর কর্মী-সমর্থকরা। বুধবার রাতে উপজেলার করইতলা বাজারে এ হামলার ঘটনা ঘটে।

হামলার শিকার দুই চেয়ারম্যান প্রার্থী অভিযোগ করেন, বর্তমান চেয়ারম্যান ও বিএনপি মনোনীত মোশারফ হোসেন খোকন তার স্ত্রীসহ করইতলা বাজারে একটি ফার্মেসিতে বসে কথা বলছিলেন। এ সময় উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও ওই ইউনিয়নের চেয়ারম্যান প্রার্থী নুরুল আমিন মাস্টারের ছেলে স্থানীয় যুবলীগ নেতা মোঃ সোহেল লোকজন দিয়ে তাদের ওপর হামলা চালায়। এতে চেয়ারম্যান খোকন আহত হন। এ সময় বাধা দিতে গেলে তার স্ত্রী স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী ফরিদা ইয়াসমিনকে লাঞ্ছিত করে সোহেল।

নওগাঁয় দুই কেন্দ্রে পুনর্ভোট দাবি

নিজস্ব সংবাদদাতা, নওগাঁ থেকে জানান, সাপাহার সদর ইউনিয়নের দু’টি কেন্দ্রে পুনর্নির্বাচনের দাবিতে বৃহস্পতিবার সকাল ১০টায় সাপাহার প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলন করেছেন পরাজিত স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী মোসাঃ নার্গিস সরকার (আনারস)। তিনি এ সময় ওই দু’টি ভোটকেন্দ্রে ব্যাপক অনিয়মের অভিযোগ তুলে ধরেন। প্রেসক্লাবে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, আমি ইউনিয়নে বিদ্রোহী প্রার্থী হওয়ায় আমার বিরুদ্ধে নানা অপপ্রচার চালানোর পর আমাকে দমাতে না পের সু-কৌশলে আমাকে নির্বাচনে পরাজিত করার নানা পরিকল্পনা চলতে থাকে। অবশেষে নির্বাচনের দিন ভোট গণনার সময় আমার পোলিং এজেন্টকে ভয় দেখিয়ে ইউনিয়নের মদনশিং ও মানিকুড়া কেন্দ্রে ভোট গণনায় ব্যাপক অনিয়ম করে পরিকল্পিতভাবে ৩০৭ ভোট কম দেখিয়ে আমাকে পরাজিত করা হয়েছে।

মুন্সীগঞ্জে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় দুই চেয়ম্যাান

স্টাফ রিপোর্টার, মুন্সীগঞ্জ থেকে জানান, দুই ইউনিয়নে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন। দুজনই আওয়ামী লীগের প্রার্থী। এঁরা হলেন সদর উপজেলার বাংলাবাজার ইউপিতে সোহরাব হোসেন ও গজারিয়া উপজেলার বাউশিয়া ইউপিতে মিজানুর রহমান। পঞ্চম দফার এ নির্বাচনে প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ দিনে বৃহস্পতিবার মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেন পাঁচ প্রার্থী। এরপরই তাঁরা একক প্রার্থী রয়ে যান।