২৩ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

অভিনয়কেই ভালবাসি...


এই নামে দ্বিতীয় কোন নারী আছে কী না জানা নেই। পুত্র সন্তানের আশায় গর্ভে থাকাকালীন নামটা ঠিক করে রেখেছিলেন তার বাবা। ছোটবেলা থেকেই অভিনয় তার খুব পছন্দ। গ্রামে ছিলেন বলে অভিনয়ে আসা সম্ভব ছিল না। ষোল বছর বয়সে গ্রাম ছেড়ে পড়াশোনার উদ্দেশ্যে ঢাকায় আসেন ১৯৯৬ সালে। ৯৭ সালে তার প্রথম নাটক ‘গোধূলীয়া’ প্রচারিত হয় বাংলাদেশ টেলিভিশনে। একই সময়ে থিয়েটারেও যোগ দেন। মঞ্চে অভিনয়, নাটক এবং বিজ্ঞাপন সমান তালে চলতে থাকে। বিজ্ঞাপন সংস্থা ‘প্রবাহ’ আর ‘মাত্রা’র কাজ ছিল উল্লেখযোগ্য। শুরু করেন চাকরি জীবনও। এক সময় প্রেমে পড়েন। প্রেমকে সফল করার জন্য অভিনয় এবং চাকরি ছেড়ে দিয়ে বিয়ের পিঁড়িতে বসেন। স্বামীর সরকারী চাকরি বদলির সুবাদে চলে যান ঢাকার বাইরে। বেশ কয়েক বছর কাটিয়ে আবার ঢাকায় ফিরেন। ঘর-সংসার সামলে শুরু করেন অভিনয়। দীপ্ত টিভিতে ‘পালকি’, একুশে টিভিতে ‘শেয়ার বাজার ডট কম’, দেশ টিভিতে ‘কলিংবেল’ ধারাবাহিকগুলো বর্তমানে প্রচারিত হচ্ছে। সেই সঙ্গে টেলিফিল্ম এবং এক ঘণ্টার নাটকও বিভিন্ন চ্যানেলে প্রচারিত হচ্ছে। প্রচারের অপেক্ষায় আছে ‘মশা মাছির উৎপাত’ ‘নোনাজলে কুমিরের বাস’ ধারাবাহিক দুটি। নাজমা আনোয়ার, মমতাজ উদ্দিন আহমেদ, মামুনুর রশিদ, রোজি সিদ্দিকি, ফেরদৌসি মজুমদার এবং সালমান শাহ’র অভিনয় তাকে অনুপ্রেরণা যোগায়। মানানসই যে কোন চরিত্রেই অভিনয় করতে স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করেন। টেলিভিশনের পাশাপাশি চলচ্চিত্রেও অভিনয় করার ইচ্ছে আছে।

আনন্দকণ্ঠ ডেস্ক