১৫ ডিসেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

জাতীয় ফুটবল দলের অনুশীলন শুরু


জাতীয় ফুটবল দলের অনুশীলন শুরু

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ আগামী জুনের প্রথম সপ্তাহে দুটি আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলতে যাচ্ছে বাংলাদেশ জাতীয় ফুটবল দল। এএফসি এশিয়ান কাপের বাছাইপর্বের প্লে অফ ম্যাচে ২ ও ৭ জুন তাজিকিস্তানের বিপক্ষে খেলবে ‘বেঙ্গল টাইগার্স’ দল। এ উপলক্ষে মঙ্গলবার ৩৪ জনের প্রাথমিক দল ঘোষণা করে বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন (বাফুফে)। বুধবার থেকে শুরু হয়েছে জাতীয় দলের অনুশীলন। যদিও প্রথমদিনের অনুশীলনে সব ফুটবলার হাজির ছিলেন না। দলের ম্যানেজার সত্যজিৎ দাস রূপুর কাছে প্রথমদিনে সশরীরে রিপোর্টিং করে ২১ ফুটবলার। তাদের নিয়েই বিকেলে বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে অনুশীলন পর্ব সেরে নেন দলের সহকারী কোচ সাইফুল বারী টিটু। দলের হেড কোচ লোডভিক ডি ক্র্ইুফ হল্যান্ড থেকে বাংলাদেশে এসে দলের দায়িত্ব বুঝে নেবেন আগামী ১৫ মে। ম্যানেজার রূপু জানান, ‘ছয় ফুটবলার ফোনে রিপোর্টিং করেছেন। তারা ঢাকার বাইরে আছেন, কাল (বৃহস্পতিবার) তারা ক্যাম্পে যোগ দেবেন। আর দেশের বাইরে থাকায় বাকি সাত ফুটবলার পরে ক্যাম্পে যোগ দেবেন।’ ২৩ জনের চূড়ান্ত দল কবে ঘোষিত হবেÑ এই প্রশ্নের জবাবে রূপু জানান, ‘সেটা ক্রুইফই নির্ধারণ করবেন। আন্দাজ করছি ২০ তারিখের আগে না।’

ফোনের মাধ্যমে যে ছয় ফুটবলার রিপোর্টিং করেছেন, তারা হলেন : ইয়ামিন মুন্না, নাসিরউদ্দিন চৌধুরী, কৌশিক বড়ুয়া, রুবেল মিয়া, নাবিব নেওয়াজ জীবন এবং রায়হান হাসান। শেখ জামালের হয়ে ফিলিপিন্সে এএফসি কাপে খেলতে যাওয়ার কারণে রিপোর্টিং করতে পারেননি তপু বর্মণ, জুয়েল রানা, মোনায়েম খান রাজু, মোহাম্মদ লিংকন, কেষ্ট কুমার বোস এবং মাজহারুল ইসলাম হিমেল। ডেনমার্কে অবস্থান করায় রিপোর্টিং করতে পারেননি জামাল ভুঁইয়া।

৩৪ জনের প্রাথমিক দলে শৃঙ্খলা ভঙ্গ ও অসদাচরণের জন্য নিষিদ্ধ চার ফুটবলার মামুনুল ইসলাম, জাহিদ হোসেন, সোহেল রানা ও ইয়াসিন খান ডাক পাননি। বাফুফে আগেই জানিয়েছিল ক্ষমা প্রার্থনা করলেই শুধু সুযোগ দেয়া হবে তাদের। সেক্ষেত্রে ক্ষমা প্রার্থনার সঙ্গে সঙ্গেই নিষিদ্ধ চার ফুটবলার দলে ফিরবেন এবং তাজিকিস্তানে যেতে পারবেন দলের সঙ্গে।

৩৪ জনের দলে নতুন মুখ পাঁচজন। তারা হচ্ছেন : ডিফেন্ডার খালেকুজ্জামান সবুজ, মিডফিল্ডার কৌশিক বড়ুয়া এবং তিন ফরোয়ার্ড মান্নান রাব্বি, নুরুল আবসার ও সৈয়দ রাশেদ তূর্য। এদিকে বুধবার যে ২১ জনকে নিয়ে টিটু অনুশীলন করান, তারা হলেন : রাসেল মাহমুদ লিটন, শহীদুল আলম সোহেল, আশরাউফুল ইসলাম রানা, নাসিরুল ইসলাম, আতিকুর রহমান মিশু, মামুন মিয়া, শাকিল আহমেদ, আরিফুল ইসলাম, রেজাউল করিম, খালেকুজ্জামান সবুজ, ফয়সাল মাহমুদ, ওয়ালি ফয়সাল, শাহেদুল আলম শাহেদ সিনিয়র, শাহেদুল আলম শাহেদ জুনিয়র, মাসুক মিয়া জনি, ইমন মাহমুদ, আমিনুর রহমান সজীব, মান্নান রাব্বি, নুরুল আবসার, সৈকত মাহমুদ ও সৈয়দ রাশেদ তুর্য।

বাফুফে ভবনে সংবাদ মাধ্যমকে আতিকুর রহমান মিশু বলেন, ‘যা হবার হয়েছে। আমরা অতীতে কেমন খেলেছি, তা ভুলে সামনের দিকে তাকাতে চাই। সবকিছু শুরু করতে চাই আবার নতুন করে। আশাকরি ভাল অনুশীলনের মাধ্যমে আমরা সামনের দুটি ম্যাচেই ভাল ফুটবল খেলবো।’ চার ফুটবলারের শাস্তি মওকুফ প্রসঙ্গে মিশুর ভাষ্য, ‘এ বিষয়ে কোন কিছু মন্তব্য করা সমীচীন হবে না। এটা বাফুফের ব্যাপার। তবে তারা যে ভাল খেলোয়াড়- তাতে কোন সন্দেহ নেই। নাসিরুল ইসলাম বলেন, ‘ক্রুইফ কোচ হওয়াতে ভালই হবে। কেননা তিনি আমাদের আগে থেকেই চেনেন-জানেন। নতুন যে পাঁচজন ক্যাম্পে এসেছে, আশাকরি ক্রুইফ অল্প সময়েই তাদের সম্পর্কে ধারণা পেয়ে যাবেন। মান্নাফ রাব্বি বলেন, ‘জাতীয় দলে ডাক পাওয়াটা অনেক সম্মানের। চেষ্টা করবো নিজের যোগ্যতা দিয়ে চূড়ান্ত স্কোয়াডে জায়গা করে নিতে এবং দেশের জন্য ভাল কিছু করতে।’