২১ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

আবেগ বনাম বেগ


স্বাগত আদিত্য

মানব সভ্যতার ইতিহাসে আদি প্রতিষ্ঠান হলো পরিবার। সমাজ গঠনেও প্রধান ধাপ হলো পরিবার গঠন। যে সমাজে পারিবারিক কাঠামো যত শক্ত, সে সমাজ তত উন্নত ও সুস্থ। মা-বাবা আর ভাই-বোন মিলেই পরিবারের চিরন্তন রূপ গঠিত হয় যা মূল্যবোধের বিকাশ থেকে শুরু করে পরিবারের সদস্যদের সামাজিকীকরণেরও প্রথম ও প্রধান বাহন অর্থাৎ পরিবার, মানুষের মাঝে আচার-ব্যবহার, রীতিনীতি, নিয়ম-কানুন, অভ্যাস, ভাল-মন্দ, ন্যায়-অন্যায় বোধ, আবেগ, অনুভূতি, শ্রদ্ধা, ভালবাসা ইত্যাদি জাগিয়ে তোলে। নৈতিকতা, নিয়মানুবতির্তা, খাদ্যাভ্যাস, পোশাক-পরিচ্ছদ, ধর্মচর্চা, শিক্ষাগ্রহণ ইত্যাদি বিষয়গুলো সম্পর্কেও পারিবারিক সংস্কৃতির প্রতিফলন সরাসরি ব্যক্তির ওপর পড়ে। এমন এক সময় ছিল যখন পরিবারেই ছিল সব রকম আমোদ প্রমোদ বা বিনোদনের কেন্দ্রস্থল। যেমন- পারিবারিক পরিমণ্ডলে সকল সদস্যের মিলেমিশে আড্ডা দেওয়া, বনভোজন করা, কোন দর্শনীয় স্থানে বেড়াতে যাওয়া, ঘরে বসে টিভি দেখা, কারও জন্মদিন পালন করা ইত্যাদি। কিন্তু দুঃখের বিষয়, পারিবারিক সম্প্রীতির এই ‘আবেগগুলো’ শিল্প সভ্যতার বিকাশের সঙ্গে সঙ্গে ‘বেগে’ পরিণত হয়েছে। সবাই এখন নিজেকে নিয়ে ব্যস্ত। ফলে পারিবারিক সম্প্রীতিও ধরেছে চিড়। একান্নবর্তী পরিবারগুলো ভেঙে অণুপরিবারে পরিণত হচ্ছে। এর পেছনে সভ্যতার বিকাশ ছাড়াও পরিবারের সদস্যদের স্বার্থপরতা ও মূল্যবোধের অবক্ষয়ও অনেকাংশে দায়ী। ফলে নতুন প্রজন্মের সঠিক সামাজিকীকরণ ব্যাহত হচ্ছে এবং ধীরে ধীরে সমাজে অস্থিতিশীলতা ও অপরাধ প্রবণতা বৃদ্ধি পাচ্ছে। তাই এখন সময়, পারিবারিক সম্প্রীতি বজায় রেখে ভবিষ্যৎ প্রজন্মের জন্য একটি সুন্দর ও স্থিতিশীল সমাজ রেখে যাওয়া।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়, গাজীপুর থেকে