১৮ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

জাতীয় দলের ক্যাম্পে পাঁচ নতুন মুখ


স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ ঘরোয়া ফুটবলের ব্যস্ততা শেষে আবারও আন্তর্র্জাতিক ম্যাচ। এবার এএফসি এশিয়ান কাপ ২০১৯ কোয়ালিফায়ার্সের প্লে অফ ম্যাচ আগামী ২ জুন তাজিকিস্তানে। সেজন্যই মঙ্গলবার প্রাথমিক দল ঘোষণা করেছে বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন (বাফুফে)। ৩৪ সদস্যের দলে নতুন ৫ জন ফুটবলার ডাক পেয়েছেন। তবে শৃঙ্খলা ভঙ্গ ও অসদাচরণের জন্য নিষিদ্ধ চার ফুটবলার মামুনুল ইসলাম, জাহিদ হোসেন, সোহেল রানা ও মোঃ ইয়াসিন খান অবশ্য ডাক পাননি। বাফুফে আগেই জানিয়েছিল ক্ষমা প্রার্থনা করলেই শুধু সুযোগ দেয়া হবে তাদের। কিন্তু এখন পর্যন্ত ক্ষমা না চাওয়ার কারণে দলে সুযোগ পাননি তারা। তবে বাফুফে জানিয়েছে ক্ষমা প্রার্থনার সঙ্গে সঙ্গেই নিষিদ্ধ চার ফুটবলার দলে ফিরবেন এবং তাজিকিস্তানে যেতে পারবেন দলের সঙ্গে। এদিকে আবারও জাতীয় দলের কাজে যোগ দিতে কয়েকদিনের মধ্যেই ডাচ কোচ লোডভিক ডি ক্রুইফ আসবেন। এর আগে পর্যন্ত জাতীয় দলের ম্যানেজার সত্যজিৎ দাস রূপুর অধীনে মতিঝিলের বাফুফে ভবনে আবাসিক ক্যাম্প চলবে। আজই ম্যানেজার রূপুর কাছে ডাক পাওয়া ফুটবলারদের আনুষঙ্গিক ক্রীড়া সামগ্রীসহ রিপোর্ট করার জন্য জানিয়েছে বাফুফে।

নতুন করে আবার ক্রুইফ অধ্যায়ের সূচনা হচ্ছে বাংলাদেশ ফুটবলে। দায়িত্ব শেষ করে তিনি ফিরে গিয়েছিলেন। এরপর যুব দলের ইতালিয়ান কোচ ফ্যাবিও গঞ্জালো সানচেজ এবং শফিকুল ইসলাম মানিককে দিয়ে দল পরিচালনার চেষ্টা করেছে বাফুফে। কিন্তু ব্যর্থতার বৃত্ত থেকে বেরোতে পারেনি বাংলাদেশ দল। দল ব্যর্থ হলে নানাবিধ সমস্যার সৃষ্টি হয়। জাতীয় দল বিশৃঙ্খল হয়ে পড়েছিল। দলের ফুটবলারদের মধ্যে পারস্পরিক সম্পর্কেও ফাটল তৈরি হয়েছিল। এমনকি নানা অভিযোগ, শৃঙ্খলা ভঙ্গ আর অসদাচরণের জন্য দল থেকে বহিষ্কৃত হন অধিনায়ক মামুনুল ছাড়াও জাহিদ, সোহেল ও ইয়াসিন। তবে তাদের ওপর কিছুটা শিথিল হয়েছে বাফুফে। ঘোষণা দেয়া হয়েছে এ চার ফুটবলার কৃতকর্মের জন্য ক্ষমা চাইলে আবারও জাতীয় দলে ফিরিয়ে নেয়া হবে। চারজনই অবশ্য ক্ষমা চাওয়ার ব্যাপারে সম্মত হয়েছেন। কিন্তু এর আগেই বাফুফে প্রাথমিকভাবে ৩৪ জনের আবাসিক অনুশীলন ক্যাম্প ঘোষণা করল। আগামী ২ জুন তাজিকিস্তানের বিরুদ্ধে তাদের মাঠেই মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ। এবার মিশন এএফসি এশিয়ান কাপ বাছাই। হোম এ্যান্ড এ্যাওয়ে ভিত্তিতে তাজিকিস্তানের সঙ্গে খেলবে ক্রুইফের দল। সেটারই প্রথম প্লে-অফে স্বাগতিকদের বিরুদ্ধে খেলবে বাংলাদেশ। সে জন্যই এই আবাসিক ক্যাম্প ডাকা হলো। ৭ জুন বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে ফিরতি লেগে আরেকটি ম্যাচ তাজিকিস্তানের বিরুদ্ধেই।

এখনও ক্রুইফ আসেননি। কিন্তু আগামী সপ্তাহের শুরুতেই বাংলাদেশে এসে পৌঁছুনোর কথা তার। এসেই দলের অনুশীলন পরিচালনা করবেন তিনি। এবার দ্বিতীয় মেয়াদে নেয়া হবে তার দায়িত্ব। এর আগে মোটামুটি সফলতার সঙ্গেই বাংলাদেশ দলকে এগিয়ে নিচ্ছিলেন। কিন্তু বাফুফের সঙ্গে বনিবনা না হওয়াতে চুক্তির নবায়ন করেননি। ক্রুইফ আসার আগে ম্যানেজার রূপু পরিচালনা করবেন জাতীয় দলের এ আবাসিক ক্যাম্প।

৩৪ জনের দলে নতুন মুখ পাঁচজন। তারা হচ্ছেন ডিফেন্ডার খালেকুজ্জামান সবুজ, মিডফিল্ডার কৌশিক বড়ুয়া এবং তিন ফরোয়ার্ড মান্নান রাব্বি, মোহাম্মদ নুরুল আবসার ও সৈয়দ রাশেদ তূর্য। অচিরেই চার অপরিহার্য ফুটবলার ক্ষমা চাইবেন বলে জানিয়েছেন। ক্রুইফ আসার আগেই এ সমস্যাটা মিটে যাবে বলে আশা প্রকাশ করেছে বাফুফে। সেক্ষেত্রে তারা দলে ফিরবেন এবং ক্রুইফের সঙ্গে প্রথম থেকেই অনুশীলন করতে পারবেন।

প্রাথমিক দল ॥ গোলরক্ষকÑ মোঃ রাসেল মাহমুদ লিটন, মোঃ শহিদুল আলম সোহেল, মোহাম্মদ মাজহারুল ইসলাম হিমেল ও আশরাফুল ইসলাম রানা। ডিফেন্ডার- মোঃ রায়হান হাসান, মোহাম্মদ নাসিরউদ্দিন চৌধুরী, তপু বর্মণ, মোঃ নাসিরুল ইসলাম নাসির, আতিকুর রহমান মিশু, ইয়ামিন আহমেদ চৌধুরী মুন্না, মোঃ মামুন মিয়া, মোঃ শাকিল আহমেদ, মোঃ লিঙ্কন, মোঃ আরিফুল ইসলাম, কেষ্ট কুমার বোস, মোঃ রেজাউল করিম, মোঃ খালেকুজ্জামান সবুজ, মোঃ ফয়সাল মাহমুদ ও মোঃ ওয়ালি ফয়সাল। মিডফিল্ডার- জামাল ভুঁইয়া, মোঃ মোনায়েম খান রাজু, মোঃ শাহেদুল আলম শাহেদ সিনিয়র, শাহেদুল আলম শাহেদ, মাসুক মিয়া জনি, কৌশিক বড়ুয়া ও মোঃ ইমন মাহমুদ। ফরোয়ার্ড- মোঃ জুয়েল রানা, মোঃ আমিনুর রহমান সজিব, রুবেল মিয়া, মান্নান রাব্বি, মোহাম্মদ নাবিব নেওয়াজ জীবন, মোহাম্মদ নুরুল আবসার, মোঃ সৈকত মাহমুদ ও সৈয়দ রাশেদ তূর্য।

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: