১৮ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

রিয়ালের জন্য ‘বদদোয়া’ মেসির!


রিয়ালের জন্য ‘বদদোয়া’ মেসির!

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ সব সময় যুদ্ধংদেহী মনোভাব থাকে দুই চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী রিয়াল মাদ্রিদ ও বার্সিলোনা শিবিরে। বিষয়টি আরও একবার স্মরণ করিয়ে দিলেন কাতালানদের সবচেয়ে বড় তারকা লিওনেল মেসি। এক সাক্ষাতকারে ফিফা সেরা ফুটবলার স্পষ্টভাবে জানিয়ে দিয়েছেন, কোনভাবেই যেন চ্যাম্পিয়ন্স লীগের শিরোপা রিয়ালের ঘরে না যায় সে প্রার্থনাই করছেন বার্সার সবাই!

চলমান মৌসুমে লা লিগার শিরোপা জয়ের দৌড়ে এ্যাটলেটিকো মাদ্রিদই ছিল বার্সিলোনার প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী। কিন্তু সবশেষ ম্যাচে লেভান্তের কাছে ২-১ গোলে হেরে ছিটকে পড়েছে দিয়াগো সিমিওনের দল। এখন সেই রোনাল্ডো-রামোসরাই হুমকি বার্সার জন্য। চ্যাম্পিয়ন্স লীগ থেকে তো বার্সাকে বিদায় নিতে হয়েছে এ্যাটলেটিকোর কাছে শেষ আটে হেরে। কিন্তু এখন বার্সার প্রধান তারকা মেসি সমর্থন দিচ্ছেন সেই এ্যাটলেটিকোকেই। চাম্পিয়ন্স লীগের ফাইনালে এ্যাটলেটিকো যেন রিয়ালকে হারিয়ে চ্য্যাম্পিয়ন হয় সে দোয়া করছেন আর্জেন্টাইন সুপারস্টার। অর্থাৎ ব্যাপারটা এমন, রিয়ালের জন্য ‘বদদোয়া’ করছেন মেসি!

গত মৌসুমের মতো এবারও ট্রেবল জয়ের হাতছানি ছিল বার্সিলোনার সামনে। লা লিগা ও কোপা ডেল রে জয়ের দ্বারপ্রান্তে চলে গেলেও চ্যাম্পিয়ন্স লীগের কোয়ার্টার ফাইনাল থেকে বিদায় নিতে হয়েছে বার্সাকে। এ্যাটলেটিকোর কাছে হেরে স্বপ্নভঙ্গ হলেও বার্সিলোনার অনেকেই এখন চাইছেন, শেষ পর্যন্ত চ্যাম্পিয়ন্স লীগ শিরোপাটা যেন ভিসেন্টে ক্যালডেরনেই যায়। ইউরোপ সেরার লড়াইয়ে ফাইনালে যে লড়বে রিয়াল ও এ্যাটলেটিকো। ২৮ মে ইতালির মিলানে ইউরোপ সেরার লড়াইয়ে মুখোমুখি দুই ‘মাদ্রিদ’ রিয়াল ও এ্যাটলেটিকো। এ প্রসঙ্গে সাক্ষাতকারে মেসি বলেছেন, এটা খুবই স্পষ্ট যে, বার্সিলোনার মানুষ চায় রিয়াল মাদ্রিদ যেন কোন কিছুই জিততে না পারে। বার্সিলোনা খুবই খুশি হবে যদি চ্যাম্পিয়ন্স লীগ ফাইনালে এ্যাটলেটিকো তাদের হারাতে পারে। তার মানে, ফাইনালে রিয়ালকে ‘ট্রফিশূন্য’ রাখার কামনায় বার্সিলোনার পূর্ণ সমর্থনই পাবেন এ্যাটলেটিকোর যোদ্ধারা। ফাইনালে এ্যাটলেটিকোর সম্ভাবনা নিয়েও কথা বলেছেন মেসি। বলেন, এ্যাটলেটিকো মোটেও সহজ কোন প্রতিপক্ষ নয়। তারা দুর্দান্ত দল। শক্ত দল। এ ধরনের শিরোপা দিয়াগো সিমিওনের মতো একজন কোচের প্রাপ্য। সিমিওনের জন্যই তো তাদের এই দুর্দান্ত পারফর্মেন্স। ট্রেবল জয়ের স্বপ্ন ভেস্তে যাওয়ার পর আপাতত ডাবলেই চোখ রাখছেন সময়ের অন্যতম সেরা এই তারকা। মেসি বলেন, চ্যাম্পিয়ন্স লীগের কোয়ার্টার ফাইনাল থেকে বাদ পড়াটা আমাদের জন্য বিরাট এক ধাক্কা ছিল। প্রথম লেগে আমরা এ্যাটলেটিকোর চেয়ে ভাল খেলেও হেরেছি। আমরা লড়াইটা ওখানেই শেষ করে দিয়ে আসতে পারতাম, কিন্তু পারিনি। ভিসেন্টে ক্যালডেরনে পরিস্থিতি খুবই কঠিন হয়ে পড়েছিল। তবে আশা করছি লা লিগার শিরোপাটা ঘরে তুলতে পারব। সেই সঙ্গে কোপা ডেল রে। ব্যাপারটা খুব যে সহজ হবে তা নয়। আমাদের সামনে এখনও দুটি অগ্নিপরীক্ষা বাকি। একটি লা লিগা অপরটি কোপা ডেল রে। লীগে আমরা প্রচুর পয়েন্ট নষ্ট করেছি। তবে খুশির কথা, ঠিক সময় আমরা ঘুরে দাঁড়াতে পেরেছি সাফল্যের সঙ্গেই।

এদিকে যুক্তরাষ্ট্রে হতে যাওয়া শতবর্ষী কোপা আমেরিকার আর্জেন্টিনা দলে থাকলেও অলিম্পিকে খেলা হচ্ছে না মেসির। বিশ্বের সর্ববৃহৎ ক্রীড়াযজ্ঞে থাকতে পারছেন না বলে হতাশা ব্যক্ত করেছেন রেকর্ড সর্বোচ্চ পাঁচবারের বর্ষসেরা এই ফুটবলার। আগামী ৩ থেকে ২৬ জুন পর্যন্ত যুক্তরাষ্ট্রে বসবে কোপা আমেরিকার বিশেষ আসর। আর ৫ থেকে ২১ আগস্ট ব্রাজিলের রিও ডি জেনিরোতে হবে অলিম্পিক। দুই প্রতিযোগিতাতেই জাতীয় দলের হয়ে খেলার ইচ্ছা ছিল মেসির, কিন্তু কোচ জেরার্ডো মার্টিনো পাঁচবারের বর্ষসেরা ফুটবলারকে শুধু কোপা আমেরিকার জন্যেই বেছে নিয়েছেন।

যে কোন এক আসরে বেছে নেয়ার সিদ্ধান্ত মেসি মেনে নিয়েছেন বলে জানিয়েছিলেন মার্টিনো। তবে ইএসপিএনকে দেয়া সাক্ষাতকারে অলিম্পিকে খেলতে না পারার হতাশা লুকিয়ে রাখেননি মেসি। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, আমি (অলিম্পিকে) যেতে চাইতাম কারণ (২০০৮) অলিম্পিকে খেলাটা চমৎকার এক অভিজ্ঞতা ছিল। ঠিক (২০০৫) অনুর্ধ-২০ বিশ্বকাপে খেলার মতো। মেসি আরও বলেন, অলিম্পিক ভিলেজে থাকা, অন্য ক্রীড়াক্ষেত্রের ওপরের সারির সব এ্যাথলেটদের সঙ্গে দেখা হওয়া এবং তাদের মধ্যে শুধুই আরেকজন এ্যাথলেট হওয়াটা এক দারুণ অভিজ্ঞতা। আমরা অলিম্পিক ভিলেজে খুব বেশি সময় কাটাইনি, তারপরও সেটা দারুণ অভিজ্ঞতা ছিল।

বিশ্বকাপ আর অলিম্পিকের তুলনায় তিনি বলেন, বিশ্বকাপ দারুণ কিন্তু অলিম্পিক বিশেষ কিছু।

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: