১৩ ডিসেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

ফের দূরপাল্লার ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা ইরানের


ইরান আরও একটি দূরপাল্লার ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্রের সফল পরীক্ষা চালিয়েছে। চলতি বছরের প্রথমদিকে বিশ্বশক্তির সঙ্গে পরমাণু চুক্তি বাস্তবায়নের পর ইরান এ পরীক্ষা চালাল। দেশটির আধাসরকারী বার্তা সংস্থা তাসনিম সোমবার এ খবর জানিয়েছে। খবর ইয়াহু নিউজের।

ইরানের সামরিক বাহিনীর ডেপুটি চিফ অব স্টাফ ব্রিগেডিয়ার জেনারেল আলী আব্দুল্লাহি বলেছেন, দুই সপ্তাহ আগে ব্যালিস্টিক এ ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা করা হয়েছে এবং এর পাল্লা দুই হাজার কিলোমিটার, যা সহজেই মধ্যপ্রাচ্যের যে কোন লক্ষ্যবস্তুতে আঘাত হানতে পারে। ইরানের সামরিক কমান্ডাররা এ ক্ষেপণাস্ত্রকে কৌশলগত সম্পদ ও শক্তিশালী নিরোধক বলে অভিহিত করেছেন। ইরানে হামলা হলে এটি মার্কিন ঘাঁটি ও ইসরাইলে হামলা চালাতে সক্ষম। জেনারেল আলী আব্দুল্লাহি জানান, নতুন পরীক্ষা করা ক্ষেপণাস্ত্র নিখুঁতভাবে লক্ষ্যবস্তুতে আঘাত হানতে পারে। তবে তিনি এ বিষয়ে বিস্তারিত কিছু জানাননি। পশ্চিমা বিশ্বের ইরানের ক্ষেপণাস্ত্র কর্মসূচীর ওপর বিশেষ নজরদারি এবং যুক্তরাষ্ট্রের আপত্তি সত্ত্বেও ইরান একের পর এক ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা করছে। যুক্তরাষ্ট্র বলেছে, এ ধরনের ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা করা পরমাণু চুক্তির লঙ্ঘন। তবে ইরান জোর দিয়ে বলেছে, ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষার মাধ্যমে ইরান জাতিসংঘে পাস হওয়া প্রস্তাব লঙ্ঘন করেনি। দেশটি আরও বলেছে, অপ্রচলিত যুদ্ধাস্ত্র নিয়ে তাদের কোন কর্মসূচী নেই এবং এসব ক্ষেপণাস্ত্র পরমাণু ওয়ারহেড বহনে সক্ষম নয়। ইরানের রেভ্যুলেশনারি গার্ডের এয়ারস্পেস ডিভিশনের প্রধান জেনারেল আমির আলী হাজিজাদেহ গত মাসে বলেছিলেন, সাজিল ক্ষেপণাস্ত্রের উন্নত সংস্করণ শীঘ্রই প্রস্তুত করা হবে। ১২শ’ মাইল পাল্লার এই সাজিল ক্ষেপণাস্ত্র ২০০৮ সালে প্রথম পরীক্ষা করা হয়েছিল।