১৭ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

বাগেরহাটে দখলবাজির কবলে নদী-খাল


বাবুল সরদার, বাগেরহাট ॥ অধিকাংশ নদী-খাল হারিয়ে যাচ্ছে। ভরাট আর দখলদারদের কারণে এ অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে। ফলে জলাবদ্ধতা ও পরিবেশ বিপর্যয় ক্রমেই বাড়ছে। ব্যাহত হচ্ছে কৃষি কাজ, নৌ যোগাযোগ। রামপাল, চিতলমারী, কচুয়া, ফকিরহাট, মোল্লাহাট ও সদর উপজেলার এ অবস্থা মারাত্মক রূপ নিয়েছে।

স্থানীয় লোকজন জানান, গত ৩০ বছরে এ অঞ্চলের নদী ও খাল খনন না করার ফলে অধিকাংশ ভরাট হয়ে গেছে। আর এ সুযোগ কাজে লাগিয়ে অধিকাংশ স্থানে নদী ও খালের পাশে বসবাসকারী প্রভাবশালী লোকজন নদী-খাল দখল করে অবৈধ স্থাপনা গড়ে তুলেছে। এছাড়া কিছু অসাধু লোকজন খালের মধ্যে বাঁধ দিয়ে মাছ চাষ করছে। ফলে নৌ যোগাযোগ ও ফসলের মাঠে পানি ওঠানামা দারুণভাবে ব্যাহত হচ্ছে। পানি নিষ্কাশন ব্যবস্থা না থাকায় সামান্য বৃষ্টিতে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়। এর প্রভাবে প্রতিবছর এখানে অধিকাংশ গ্রাম, হাট-বাজার, শত শত চিংড়ি ঘের প্লাবিত হয়। এতে অসংখ্য মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত হয়।

চিতলমারী চিত্রা নদী, বলেশ্বর নদী, রামপাল নদী, দাউদখালী নদীর অস্তিত্ব এখন নেই বললেই চলে অথচ কয়েক বছর আগেও এসব নদী দিয়ে বড় বড় লঞ্চ, স্টিমার, কার্গো চলাচল করেছে।

চিতলমারী উপজেলার বড়বাড়িয়া, কলাতলা, হিজলা, শিবপুর, চিতলমারী সদর, চরবানিয়ারী, সন্তোষপুরসহ মোট ৭টি ইউনিয়নে তিনটি প্রধান নদী ও ৫০টি খাল এবং শতাধিক শাখা খাল রয়েছে। যার অধিকাংশ এখন নাব্য সঙ্কটে। রামপাল, ফকিরহাট, কচুয়া, বাগেরহাট সদর উপজেলার অবস্থাও অনুরূপ। এক সময়ের খরস্রোতা বলেশ্বর, মধুমতি ও চিত্রা নদী এখন মৃতপ্রায়। জরুরীভাবে যদি এলাকার নদী ও খাল খনন করা না হয় এবং অবৈধ দখলবাজি রোধ করা না যায় তাহলে কৃষি ও পরিবেশ চরম হুমকির মুখে পড়বে বলে স্থানীয় কৃষি ও পরিবেশ অধিদফতর মনে করে।

মাদকাসক্ত পুত্রকে পুলিশে দিলেন মা

স্টাফ রিপোর্টার, রাজশাহী ॥ দুর্গাপুরে মাদকাসক্ত পুত্রকে পুলিশের হাতে তুলে দিলেন মা। পরে ভ্রাম্যমাণ আদালতে তার তিন মাসের কারাদ- দেয়া হয়।

পুলিশ জানায়, উপজেলার ভবানিপুর গ্রামের মৃত গোলাম রসুলের ছেলে জসিমুদ্দিন রেন্টু (২৭) মাদকাসক্ত হয়ে পড়ে। প্রতিনিয়ত মাদকসেবন করে বাড়িতে ভাংচুর, মারধরসহ বিভিন্ন তা-ব চালিয়ে আসছিল। সোমবার জসিমুদ্দিন আবারো নেশা করে বাড়ি ফিরে তার মা ও স্ত্রীকে গালি-গালাজ ও আসবাবপত্র ভাংচুর শুরু করে। পরে মা জোসনা বেগম অতিষ্ঠ হয়ে জসিমুদ্দিনকে পুলিশের হাতে তুলে দেন।

পরে পুলিশ মাদকাসক্ত জসিমুদ্দিনকে ভ্রাম্যমাণ আদালতে হাজির করলে আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আক্তারুন্নাহার তাকে তিন মাসের বিনাশ্রম কারাদ- প্রদান করেন। দুপুরে তাকে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় অগ্নিকা-ে শিশুর মৃত্যু

স্টাফ রিপোর্টার, ব্রাহ্মণবাড়িয়া ॥ সোমবার দুপুরে ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহরের খয়াসার মহল্লায় অগ্নিকা-ে ৬টি ঘর পুড়ে গেছে। এ সময় অগ্নিদগ্ধ হয়ে আড়াই বছরের শিশুর মৃত্যু হয়েছে। স্থানীয়রা জানায়, দুপুর ১২টায় এ মহল্লার সুরুজ মিয়ার বাড়িতে গ্যাসের চুলা থেকে অসাবধানতাবশত অগ্নিকা-ের ঘটনা ঘটে। এতে ৬টি ঘর পুড়ে যায়। এ ঘটনায় আড়াই বছরের শিশু আশামণি মৃত্যুবরণ করেন।

কঙ্কাল চুরি

নিজস্ব সংবাদদাতা, ফরিদপুর, ৯ মে ॥ সদর উপজেলার কানাইপুর ইউনিয়নের ফুসরা কবরস্থান থেকে নারী-পুরুষের পাঁচটি কঙ্কাল চুরির ঘটনা ঘটেছে। স্থানীয়রা জানায়, রবিবার রাতের যে কোন সময় চোরের দল কবর খুঁড়ে ফুসরা গ্রামের হালিম মোল্লা, রহিমা বেগম, তারা বেগম, ডালিম বেগম ও হাজেরা বেগমের কঙ্কাল নিয়ে যায়। এসব মৃতদেহ ছয়মাস থেকে এক বছর আগে এই কবরস্থানে কবর দেয়া হয়েছিল।

বাল্যবিয়ে থেকে রক্ষা

নিজস্ব সংবাদদাতা, ৯ মে, বাউফল ॥ বাউফলে বাল্যবিয়ের হাত থেকে রক্ষা পেয়েছে, রিপা পাল (১৩) নামের অষ্টম শ্রেণীর স্কুলছাত্রী। রবিবার রাতে তাকে জোর করে বাল্যবিয়ে দেয়া হচ্ছিল, এ খবর পেয়ে বাউফল উপজেলা নির্বাহী অফিসার বগার পালপাড়া অভিযান চালিয়ে বিয়ে ভেঙ্গে দেন। এ সময় বরপক্ষের লোকজন পালিয়ে যায়। পরে রিপাকে শিশু বয়সে বিয়ে না দেয়ার শর্তে তার বাবা সুমন পালের কাছ থেকে মুচলেকা নেয়া হয়।