২১ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

জোকোভিচের কাছে শিরোপা হারালেন মারে


জোকোভিচের কাছে শিরোপা হারালেন মারে

অনলাইন ডেস্ক ॥ অ্যান্ডি মারের ওপর নোভাক জোকোভিচের আধিপত্য চলছেই! এবার মাদ্রিদ ওপেনের ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়নকে হারিয়ে ২৯টি মাস্টার্স টাইটেল জেতার রেকর্ড গড়ে ফ্রেঞ্চ ওপেনের প্রস্তুটিটা ভালোভাবেই সেরে নিলেন ওয়ার্ল্ড নাম্বার ওয়ান।

এ নিয়ে মারের বিপক্ষে সবশেষ ১৩ বারের দেখায় ১২টিতেই জিতলেন জোকোভিচ। ২০১১ সালের পর মাদ্রিদ ওপেনের শিরোপা পুনরুদ্ধার করেছেন সার্বিয়ান টেনিস তারকা। ম্যাচ হেরে ৠাংকিংয়েও মারের অবনমন হলো।

দুই থেকে তিনে নেমে গেছেন ব্রিটিশ টেনিস সেনসেশন। আর দ্বিতীয় স্থানে উঠে এসেছেন সুইডিশ কিংবদন্তি রজার ফেদেরার, যিনি পিঠের ইনজুরির কারণে এ আসরে খেলতেই পারেননি।

স্পেনের মাদ্রিদে অনুষ্ঠিত ফাইনালের প্রথম সেটটি ৬-২ গেমে জিতে নেন জোকোভিচ। পরের সেটেই (৬-৩) ঘুরে দাঁড়ান গত আসরের চ্যাম্পিয়ন মারে। তবে তৃতীয় সেটে প্রতিদ্বন্দ্বীকে আর সুযোগ দেননি সার্বিয়ান টেনিস আইকন। ৬-৩ গেমের জয়ে শিরোপা উল্লাসে মাতেন। এর মধ্য দিয়ে রাফায়েল নাদালের ২৮টি মাস্টার্স টাইটেলের রেকর্ড টপকে গেছেন জোকোভিচ।

জোকোভিচের মুখোমুখি হলেই যেন দুঃস্বপ্ন ঘ্রাস করে মারেকে। গ্র্যান্ড স্লাম ইভেন্ট ২০১৩ উইম্বলডন ফাইনালে হারানোর পর থেকেই জোকোভিচের বিপক্ষে নিজের ছায়া হয়ে থাকেন ব্রিটেনের এক নম্বর টেনিস তারকা! সবশেষ গত বছর কানাডায় অনুষ্ঠিত রজার্স কাপের ফাইনালে জোকোভিচকে হারের স্বাদ উপহার দিয়েছিলেন মারে।

চলতি বছর দুর্দান্ত ফর্মে থাকা জোকোভিচ ইতোমধ্যেই চারটি শিরোপায় চুমু খেয়েছেন। কাতার ওপেন দিয়ে ২০১৬ সাল শুরু। এরপর ষষ্ঠবারের মতো বছরের প্রথম গ্র্যান্ড স্লাম ইভেন্ট অস্ট্রেলিয়ান ওপেনে চ্যাম্পিয়ন তকমা গায়ে লাগান। চোখের ইনফেকশনের কারণে দুবাই টেনিস চ্যাম্পিয়নশিপের কোয়ার্টার ফাইনাল থেকে ছিটকে গেলেও দ্রুত সেরে ওঠে ইন্ডিয়ান্স ওয়েলস মাস্টার্স ও মিয়ামি ওপেনে ব্যাক টু ব্যাক শিরোপা উদযাপন করেন সার্বিয়ান টেনিস তারকা। এবার যোগ হলো মাদ্রিদ ওপেনের শিরোপা।

আগামী ২২ মে বছরের দ্বিতীয় গ্র্যান্ড স্লাম ইভেন্ট ফ্রেঞ্চ ওপেনের ১১৫তম আসরের পর্দা উঠবে। এটিই এখনো জোকোভিচের কাছে অধরা। ক্লে-কোর্টের (লাল মাটির কোর্ট) এই মর্যাদাপূর্ণ টুর্নামেন্টে তিন তিনবার ফাইনাল (২০১২, ২০১৪, ২০১৫) খেলেও স্বপ্নভঙ্গের হতাশায় ডোবেন ১১ বারের গ্র্যান্ড স্লাম জয়ী।

সর্বাধিক পঠিত:
পাতা থেকে: