২৩ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই ঘন্টায়  
Login   Register        
ADS

যশোরে নাশকতা মামলায় ৬৭ জন অভিযুক্ত


স্টাফ রিপোর্টার, যশোর অফিস ॥ যশোর শহরের আরএন রোডের হোমিও কলেজের সামনের একটি নাশকতা ও বিস্ফোরক মামলায় বিএনপি জামায়াতের ৬৭ জনকে অভিযুক্ত করে চার্জশীট দিয়েছে পুলিশ। ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগ ও পূর্ণাঙ্গ ঠিকানা না পাওয়ায় ১২ জনে অব্যাহতির আবেদন করা হয়েছে। মামলার তদন্ত শেষে সোমবার আদালতে চার্জশীট দিয়েছেন তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই সোয়েব উদ্দিন আহম্মেদ।

অভিযুক্ত আসামিরা হলো শাকির হোসনে শামীম, সিরাজুল ইসলাম, অধ্যাপক আব্দুর রশীদ, জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পদাক সাবেরুল হক সাবু, যশোর নগর বিএনপির সভাপতি মারুফুল ইসলাম, সাবেক মন্ত্রী তরিকুল ইসলামের পুত্র অনিন্দ ইসলাম অতিম, জেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক দেলোয়ার হোসনে খোকন, গোলাম রেজা দুলু, রবিউল ইসলাম, নাজমুল হোসেন বাবুল, মুন্না, রব মেম্বার, রিপন চৌধুরী, সাপুড়ে আক্তার, রাজু মেম্বার, নবাব মেম্বার, একরাম, শাফিয়ার রহমান, অধ্যাপক গোলাম রসুল, জামায়াত নেতা মাস্টার নুরুন্নবী, তুহিন খান, হবিবুল্লাহ, মোস্তফা কামাল শেফা, ডিস শাহীন, ছোট হিরু, কালো কবিল, মিন্টু খান, টেরা তপন, কালা কবির, মিন্টু, ছোট জয়নাল, বাবু, শহিদুল ইসলাম, হেকমত আলী, আলী কদর, আব্দুল গফ্ফার কিসলু, আব্দুর রাজ্জাক, অধ্যাপক আবুল হাশিম রেজা, নুরে আলা আল মামুন, বিল্লাল হোসনে, এ্যাডভোকেট রুহুল কুদ্দুস খান, আব্দুল মান্নান, জীবন হোসেন, আবুল কালাম আজাদ, ইদ্রিস আলী, সাগর, রাজ্জাক, মামুন, বিপুল হোসেন, খায়রুজ্জামান বাবু, শেখ আব্দুর রাজ্জাক, আলমগীর সিদ্দিক, লোকমান হোসেন, কামরুজ্জামান, সৈয়দ জহিরুল ইসলাম মুকুল, শাওন, কেফায়েত হোসেন, সবুজ, নূর ইসলাম, মতিয়ার রহমান, ফজলে রাব্বী মোফাসা, শরিফুল ইসলাম, হাবিবুল্লা ও আব্দুস সামাদ আজাদ। জানা গেছে, ২০১৫ সালের ১৫ জানুয়ারি সকাল-সন্ধ্যা হরতালে নাশকতা করে তারা।

রাজশাহীতে তিন ছাত্রকে পেটাল বই বিক্রেতারা

স্টাফ রিপোর্টার, রাজশাহী ॥ রাজশাহী কলেজের তিন ছাত্রকে ধরে বেধড়ক পিটিয়েছে বই বিক্রেতারা। পুরাতন বই বিক্রি নিয়ে কথা-কাটাকাটির জেরে ছাত্রদের পেটায় তারা। সোমবার সকালে নগরীর সোনাদীঘি এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

নগরীর বোয়ালিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শাহাদাত হোসেন খান জানান, পুরাতন বই বিক্রি নিয়ে দুপক্ষের মধ্যে উত্তেজনার খবর পেয়ে তাৎক্ষণিক পুলিশ গিয়ে তা নিয়ন্ত্রণে নেয়। এর আগেও কয়েকবার একইভাবে ছাত্রদের পিটিয়েছেন পুরাতন বই বিক্রেতারা।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, সকালে রাজশাহী কলেজের তিন ছাত্র সোনাদীঘি মসজিদের সামনে পুরাতন বই বিক্রেতা ‘রাফান বই ঘরে’ বেশকিছু বই বিক্রির জন্য যান। তারা বইয়ের দাম এক শ’ টাকা চাইলে বিক্রেতা সজিব ৩০ টাকা দিতে রাজি হন। এ সময় তাদের বই কিনতে পারবেন না বলে চলে যাচ্ছিলেন ওই তিন ছাত্র। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে তাদের আটকান সজিব। পরে কথা কাটাকাটির একপর্যায়ে তাদের ধরে সেখানেই পেটায় সজিব।

পরে রাজশাহী কলেজে গিয়ে মারপিটের শিকার ছাত্ররা তাদের সহপাঠীদের জানালে তারা দল বেঁধে দ্রুত ঘটনাস্থলে যান। তবে তার আগেই ঘটনাস্থল ত্যাগ করে সজিব। এ নিয়ে ছাত্রদের সঙ্গে দোকান মালিক আলতাফ হোসেনের কথা-কাটাকাটির একপর্যায়ে তিনিও ছাত্রদের ওপর চড়াও হন। তার সঙ্গে যোগ দেন সেখানকার পুরাতন বই বিক্রেতারা। অবস্থা বেগতিক দেখে ছাত্ররা পিছু হটলে তাদের মধ্য থেকে তিনজনকে ধাওয়া দিয়ে ধরে ফেলেন বই বিক্রেতারা। পরে তাদের বেদম মারপিট করে ছেড়ে দেয়। এ নিয়ে দু’পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা ছড়ালে পুলিশ গিয়ে তা নিয়ন্ত্রণে নেয়।

তবে বই বিক্রেতারা অভিযোগ করেন, ছাত্ররাই তাদের তাদের ওপর চড়াও হয়। এ নিয়ে তারা তাদের ধরে পিটিয়েছেন।