১৮ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট পূর্বের ঘন্টায়  
Login   Register        
ADS

সঙ্গীত অঙ্গনে শানের পথচলা


সঙ্গীত অঙ্গনে শানের পথচলা

স্টাফ রিপোর্টার ॥ বর্তমান সময়ে যে কয়েকজন মেধাবী সুরকার ও সঙ্গীত পরিচালক গান নিয়ে ব্যস্ত সময় পার করছেন তাদের মধ্যে সাইক উদ্দিন শান অন্যতম। তিনি নিয়মিত গানও করেন। সঙ্গীত পরিচালনা ও গান গাইলেও সুর করার বিষয়টা তিনি বেশ উপভোগ করেন। তিনি অডিও এবং চলচ্চিত্র দু’মাধ্যমেই ব্যস্ত সময় পার করছেন। ২০০০ সালে তার প্রথম ব্যান্ডের এ্যালবাম রিলিজ হয়। এরপর প্রথম সলো এ্যালবাম ‘মুসাফির প্রেম’ বাজারে আসে ২০০৭ সালে ওশান মিউজিকের ব্যানারে। দ্বিতীয় সলো এ্যালবাম ২০১১ সালে লেজার ভিশনের ব্যানারে প্রকাশ পায়। এ ছাড়া শানের ‘পুতুল শান যুগল শান’এ্যালবামটি বেশ জনপ্রিয়তা পায়।

বর্তমানে তিনি তার সলো এ্যালবামের কাজ করছেন। এটি আসছে পহেলা বৈশাখে রিলিজ দিতে চান। এ ছাড়া কাজ করেছেন জনপ্রিয় সঙ্গীতশিল্পী ফাহমিদা নবীর সলো এ্যালবামের। এ এ্যালবামে তিনি একটি গান ডুয়েট গেয়েছেন। এ্যালবামটি বাজারে আসবে পহেলা বৈশাখে। ইতোমধ্যে ফাহমিদা নবীর সঙ্গে ডুয়েট গানটি ভিডিও শ্রোতামহলে বেশ প্রশংসিত হয়েছে। কিছুদিন আগে তার সুর ও সঙ্গীত পরিচালনায় গান করেছেন কলকাতার রূপঙ্কর। এ প্রসঙ্গে শান বলেন, শিল্পী শায়লা মোস্তফার সলো এ্যালবামের সবগুলো গানের সুর ও সঙ্গীত পরিচালনা করছি। রুপঙ্করদা শায়লার সঙ্গে একটি গানে ডুয়েট গাইছেন। স্বাধীনতা দিবসে সাদাত হুসাইনের কথায় তার সুর সঙ্গীতে একটি দেশের গান করেছেন। গানটিতে তার সঙ্গে কণ্ঠ দিয়েছেন লুৎফর হাসান, নিশিতা, নাওমি ও নির্ঝর চৌধুরী। তার সঙ্গে গাওয়া মোমির সিঙ্গেল গান অচিরেই আসছে। তার সুর ও সঙ্গীত পরিচালনায় ভালবাসা দিবসে এসেছে ‘বসন্তে ভালবাসা’ সহ আরও বেশ কয়টি এ্যালবাম। শানের মা বাবা দুজনেই গান খুব পছন্দ করতেন। ছোটবেলা থেকেই তিনি গানের আবহে বড় হয়েছেন। তার বয়স যখন পাঁচ তখন থেকে পারিবারিক ভাবে গান গাওয়া শুরু করেন। ইতোমধ্যে তার সঙ্গীত পরিচালনায় গান করেছেন দেশের জনপ্রিয় অনেক শিল্পীই। সফল সঙ্গীত পরিচালক হওয়ায় শানের লক্ষ্য তবে সময় সুযোগ পেলে তিনি গানও করতে চান। সফল সঙ্গীত পরিচালক এ আর রহমানের ভীষণ ভক্ত শান। তার নিজের একান্ত চেষ্টায় তিনি সফল সঙ্গীত পরিচালনার দিকে অগ্রসর হচ্ছেন। ভবিষ্যৎ এ অডিও এর চেয়ে তিনি চলচ্চিত্রের গানে বেশি মনোনিবেশ করতে চান। বাংলা গান নিয়ে তার স্বপ্নের কথা বলতে গিয়ে তিনি বলেন, সারাজীবন বাংলা গানের সঙ্গে থাকতে চাই। শ্রোতারা যে ধরনের গান পছন্দ করে, সে ধরনের গান বেশি বেশি করতে চাই। আমি চাই বাংলাদেশের গান সারাবিশ্বের মানুষের কাছে পৌঁছুক। আমি আরও স্বপ্ন দেখি আমার সঙ্গীত পরিচালনায় দেশে ও দেশের বাইরের অনেক জনপ্রিয় শিল্পীরা গান গাইবে।