২৩ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই ঘন্টায়  
Login   Register        
ADS

গতি ফিরছে ভারতের অর্থনীতিতে


অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ বিশ্ব অর্থনীতির মেঘলা আকাশে ভারতই যে উজ্জ্বল বিন্দু, সম্প্রতি তা বারবার বলেছে আন্তর্জাতিক মুদ্রা ভা-ার (আইএমএফ), বিশ্ব ব্যাংক। তুলে ধরেছে, আগামী দিনে অর্থনীতির আন্তর্জাতিক আঙ্গিনায় অন্যতম প্রধান চালিকা শক্তি হিসেবে তার উঠে আসার সম্ভাবনার কথা। এ বার সেই আশার আগুনে ঘি ঢালল মার্কিন আর্থিক সংস্থা মর্গ্যান স্ট্যানলিও।

এক সমীক্ষায় তাদের ভারতীয় শাখার দাবি, গতি ফিরতে শুরু করেছে গত কয়েক বছরে কিছুটা ঝিমিয়ে পড়া ভারতীয় অর্থনীতির চাকায়। আগামী অর্থবর্ষে তা আরও স্পষ্ট বোঝা যাবে। কারণ, বাজারে ক্রেতা-গ্রাহকদের তরফে চাহিদা দ্রুত বাড়বে। পছন্দের পণ্য-পরিষেবা কিনতে বেশি টাকা ঢালবেন তারা। চাহিদা বাড়িয়ে বেসরকারী লগ্নিকে উৎসাহ দিতে পরিকাঠামো উন্নয়নে মোটা অঙ্ক লাগাবে কেন্দ্র। তার ওপর এই মুহূর্তে মূল্যবৃদ্ধির হারও নিয়ন্ত্রণে। সব মিলিয়ে, অর্থনীতির ঘুরে দাঁড়ানোর জমি তৈরি বলে মনে করছে সংস্থাটি। বাজি ধরছে ২০১৬-১৭ অর্থবর্ষে বৃদ্ধির গতি ত্বরান্বিত হওয়ার ওপর।

মতিঝিল ব্যাংকপাড়া স্বাভাবিক ছিল

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম বহাল রাখার দাবিতে জামায়াতের ডাকা হরতালে কোন প্রভাব নেই রাজধানীর ব্যাংক পাড়া মতিঝিলে। স্বাভাবিক নিয়মে চলছে ব্যাংক, বীমা, আর্থিক প্রতিষ্ঠান ও শেয়ারবাজারের কার্যক্রম। ব্যাংকগুলোতে কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের পাশাপাশি গ্রাহকের উপস্থিতিও অন্যান্য দিনের মতোই স্বাভাবিক ছিল।

সোমবার সকাল থেকে এমন চিত্রই দেখা গেছে রাজধানীর ব্যাংক পাড়ায়। এ সময় রাজধানীর ব্যস্ততম এলাকা মতিঝিল, দৈনিক বাংলা, কমলাপুর ও ফকিরাপুল এলাকার সড়কে যানবাহন চলাচল অনেকটা স্বাভাবিক ছিল। এসব এলাকায় রাস্তার মোড়ে মোড়ে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের নিয়মিত টহল দিতে দেখা গেছে।

এছাড়া রাজধানীর বেশ কিছু পয়েন্টে রায়ট কার (পুলিশের সাজোয়া জান) নিয়ে টহল দিতেও দেখা গেছে। হরতালে ব্যাংকিং লেনদেনে কোন প্রভাব পড়ছে কিনা জানতে চাইলে জনতা ব্যাংকের এক উর্ধতন কর্মকর্তা বলেন, ‘হরতালে কর্মকর্তা-কর্মচারীদের পাশাপাশি গ্রাহক উপস্থিতিও স্বাভাবিক ছিল। ফলে ব্যাংকিং লেনেদেনে কোন প্রভাব নেই বললেই চলে।’

এদিকে মতিঝিল এলাকায় বিভিন্ন ব্যাংকে ঘুরে দেখা গেছে, সকালের দিকে দু-একটি ব্যাংকের সামনের গেটে বাড়তি নিরাপত্তা নেয়া হলেও বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে সেসব স্থানও স্বাভাবিক হয়ে উঠতে দেখা গেছে।