২০ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট ৪ ঘন্টা পূর্বে  
Login   Register        
ADS

কিশোরগঞ্জের দুই রাজাকারের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠনের শুনানি ২৬ এপ্রিল


স্টাফ রিপোর্টার ॥ একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধের সময় মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় পলাতক কিশোরগঞ্জের নিকলির রাজাকার কমান্ডার সৈয়দ মোঃ হুসাইন ও মোহাম্মদ মোসলেম প্রধানের বিরুদ্ধে আগামী ২৬ এপ্রিল অভিযোগ গঠনের শুনানির দিন ধার্য করেছে ট্রাইব্যুনাল। অন্যদিকে মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় গ্রেফতারকৃত মৌলভীবাজারের বড়লেখা উপজেলার আব্দুল মান্নান মনাই মিয়া ও আব্দুল আজিজ হাবুলকে সেফহোমে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদের অনুমতি দিয়েছে ট্রাইব্যুনাল। চেয়ারম্যান বিচারপতি আনোয়ারুল হকের নেতৃত্বে তিন সদস্য বিশিষ্ট আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল-১ এ আদেশ প্রদান করেছেন।

রাজাকার কমান্ডার সৈয়দ মোঃ হুসাইন ও মোহাম্মদ মোসলেম প্রধানের বিরুদ্ধে আগামী ২৬ এপ্রিল অভিযোগ গঠনের শুনানির দিন ধার্য করেছেন ট্রাইব্যুনাল। গত ১৫ ফেব্রুয়ারি সৈয়দ মোঃ হুসাইনকে আত্মসমর্পণের জন্য সাত দিনের মধ্যে একটি বাংলা ও একটি ইংরেজী দৈনিকে পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের নির্দেশ দেয় ট্রাইব্যুনাল। রবিবার এ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশনার আদেশ তামিল ও হুসাইনের আত্মসমর্পণ অথবা গ্রেফতার সংক্রান্ত প্রতিবেদন দাখিল এবং মামলার পরবর্তী আদেশের দিন ধার্য ছিল।

প্রসিকিউটর ব্যারিস্টার তুরিন আফরোজ জানান, পলাতক হুসাইনের বিরুদ্ধে পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হলেও তিনি আত্মসমর্পণ করেননি বা তাকে গ্রেফতার করা যায়নি। হুসাইনের অনুপস্থিতিতে মামলার বিচারিক কার্যক্রম শুরুর আবেদন জানান তিনি। পরে আগামী ২৬ এপ্রিল অভিযোগ গঠনের শুনানির দিন ধার্য করেন ট্রাইব্যুনাল। মোসলেম প্রধানের আইনজীবী আব্দুস সাত্তার পালোয়ান ট্রাইব্যুনালে উপস্থিত ছিলেন। গত ৭ জানুয়ারি হুসাইন-মোসলেমের বিরুদ্ধে আনুষ্ঠানিক অভিযোগ (ফরমাল চার্জ) আমলে নেন ট্রাইব্যুনাল। গত বছরের ৩ ডিসেম্বর এ আনুষ্ঠানিক অভিযোগ দাখিল করেন প্রসিকিউটর ব্যারিস্টার তুরিন আফরোজ। হুসাইন-মোসলেমের বিরুদ্ধে আনুষ্ঠানিক অভিযোগে হত্যা-গণহত্যা, ধর্ষণ, লুটপাট, অগ্নিসংযোগ, আটক, অপহরণ ও নির্যাতনের ছয়টি মানবতাবিরোধী অপরাধের অভিযোগ আনা হয়েছে। এর মধ্যে রয়েছে ৬২ জনকে হত্যা-গণহত্যা, ১১ জনকে অপহরণ, আটক ও নির্যাতন এবং দু’শ’ ৫০টি বাড়িঘরে লুটপাট ও অগ্নিসংযোগের অভিযোগ।

জিজ্ঞাসাবাদের অনুমতি ॥ মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় গ্রেফতারকৃত মৌলভীবাজারের বড়লেখা উপজেলার আব্দুল মান্নান মনাই মিয়া ও আবদুল আজিজ হাবুলকে সেফহোমে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদের অনুমতি দিয়েছেন আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্র্রাইব্যুনাল-১। এ মামলার তিন আসামির মধ্যে আবদুল মতিন পলাতক আছেন। রবিবার মনাই ও হাবুলকে সেফহোমে জিজ্ঞাসাবাদের অনুমতি চেয়ে আবেদন জানান প্রসিকিউটর মোখলেসুর রহমান বাদল। শুনানি শেষে হাবুলকে আগামী ৩ এপ্রিল ও মনাইকে ৪ এপ্রিল জিজ্ঞাসাবাদের অনুমতি দেন চেয়ারম্যান বিচারপতি আনোয়ার-উল হকের নেতৃত্বে তিন সদস্যের ট্র্রাইব্যুনাল। আগামী ২ মে তিন আসামির বিরুদ্ধে তদন্তের অগ্রগতি প্রতিবেদন দাখিলের দিন ধার্য রয়েছে।

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: