২১ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

বিশ্ব নাট্য দিবসের সম্মাননা পেলেন ফেরদৌসী মজুমদার


স্টাফ রিপোর্টার ॥ রবিবার ছিল বিশ্ব নাট্য দিবস। সারা পৃথিবীর মতোই বাংলাদেশেও আনন্দ-উচ্ছ্বাসে উদযাপিত হয়েছে দিবসটি। বিকেলে মহিলা সমিতি মিলনায়তনে ভিড় জমে নাট্যকর্মীদের। নাট্যশিল্পীদের আড্ডায় জমে ওঠে প্রীতি সম্মিলনী। সন্ধ্যায় অনুষ্ঠিত হয় নাট্য দিবসের আলোচনা। নাট্য দিবসের সম্মাননা প্রদান করা হয় বরেণ্য অভিনয়শিল্পী ফেরদৌসী মজুমদারকে। আয়োজনে বিশ্ব নাট্য দিবসের বাণী পাঠ করা হয়। সবশেষে মঞ্চস্থ হয় পালাশিল্পী ইসলাম উদ্দিন পালাকারের পালা ‘কমলা রানীর সাগর দীঘি’। এর আগে অনুষ্ঠানের অংশ হিসেবে শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় নাট্যশালার সামনে নাট্যকর্মী তনু হত্যাকা-ের বিচারের দাবিতে অনুষ্ঠিত হয় বিক্ষোভ সমাবেশ। সমাবেশ শেষে তনু হত্যার প্রতিবাদে বের করা হয় প্রতিবাদী শোভাযাত্রা। শিল্পকলা একাডেমি থেকে শুরু হয়ে মহিলা সমিতি মঞ্চে গিয়ে শেষ হয় এই শোভাযাত্রা। যৌথভাবে নাট্য দিবসের অনুষ্ঠানের আয়োজন করে ইন্টারন্যাশনাল থিয়েটার ইনস্টিটিউট (আইটিআই), শিল্পকলা একাডেমি, গ্রুপ থিয়েটার ফেডারেশন ও পথনাটক পরিষদ।

আমার সোনার বাংলা আমি তোমায় ভালাবসিÑ এই প্রাণের গানের মধ্য দিয়ে শুরু হয় মহিলা সমিতি মঞ্চের অনুষ্ঠান। এর পর বিশ্ব নাট্য দিবসের বাণী পাঠ করেন অভিনয়শিল্পী লাকী ইনাম। নাট্য দিবসের বক্তৃতা দেন গ্রুপ থিয়েটার ফেডারেশনের চেয়ারম্যান ও শিল্পকলা একাডেমির মহাপরিচালক লিয়াকত আলী লাকী। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন ফেডারেশনের সেক্রেটারি জেনারেল আকতারুজ্জামান।

ফেরদৌসী মজুমদারের হাতে এ বছরের বিশ্ব নাট্য দিবসের সম্মাননা তুলে দেন আইটিআই বাংলাদেশ কেন্দ্রের সভাপতি নাসির উদ্দিন ইউসুফ। ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানান উপদেষ্টাম-লীর সদস্য ঝুনা চৌধুরী। সম্মাননার অর্থমূল্য প্রদান করেন আইটিআই বাংলাদেশ কেন্দ্রের সাধারণ সম্পাদক দেবপ্রসাদ দেবনাথ। ফেরদৌসী মজুমদারের জীবনী পাঠ করেন আনিকা মাহিন একা। পুরস্কার প্রদানের সময় মিলনায়তনভর্তি দর্শক-শ্রোতা আসন থেকে উঠে দাঁড়িয়ে ফেরদৌসী মজুমদারকে অভিবাদন জানান। সঙ্গে ছিল মুহুর্মুহু করতালি ও হর্ষধ্বনি।

নাট্য দিবসের সম্মাননাপ্রাপ্তির প্রতিক্রিয়ায় ফেরদৌসী মজুমদার বলেন, জীবনে আমি অনেক পুরস্কার পেয়েছি। তবে এই পুরস্কার আমাকে বিশেষভাবে আলোড়িত করেছে। এই সম্মাননা প্রদানের সময় মিলনায়তনভাির্ত দর্শক উঠে দাঁড়িয়ে আমাকে করতালি দিয়ে অভিনন্দন জানিয়েছেন, এটা আমাকে অনেক বেশি আনন্দিত করেছে। আগে অনেক সম্মাননা পেলেও এতটা ভালবাসার প্রকাশ দেখিনি। নাট্যকর্মী ও বন্ধুদের এই ভালবাসা আমাকে মুগ্ধ করেছে। অনুভূতি প্রকাশের একপর্যায়ে তাঁর কথায় উঠে আসে নাট্যকর্মী তনু হত্যার বিচারের দাবি। বলেন, আজ আমরা এমন সময় অতিক্রম করছি যখন আমাদেরই একজন নাট্যকর্মী তনুর হত্যাকা- আমাদের মর্মাহত করেছে। সারাবিশ্বেই যেন পঙ্কিলতা বেড়ে গেছে। নিরীহ মানুষের ওপর নির্যাতন বেড়ে গেছে। তারই প্রমাণ ও উদাহরণ হচ্ছে তনু হত্যা। আমরা এই হত্যাকা-ের বিচার চাই। এই হত্যার বিচার শেষ না হওয়া পর্যন্ত আমরা নাট্যকর্মীরা মাঠে থাকব। অপরাধীদের শাস্তি না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন চলমান থাকবে।

ময়নার চর নাটকের উদ্বোধনী মঞ্চায়ন ॥ মঞ্চে এলো অনুরাগ থিয়েটারের নতুন নাটক ময়নার চর। আবদুল হাই দুর্বারের রচনা থেকে প্রযোজনাটির নির্দেশনা দিয়েছেন নাসির আহমেদ। রবিবার সন্ধ্যায় শিল্পকলা একাডেমির স্টুডিও থিয়েটার হলে নাটকটির উদ্বোধনী মঞ্চায়ন হয়।

প্রযোজনাটির বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করেছেনÑ সাদেকুর রহমান সাদেক, দেলোয়ার হোসেন লিটন, জাহাঙ্গীর আলম, মোবারক হোসেন, দাদু সিরাজ, জগলুল হায়দার, আমিনুল ইসলাম, মীর মিজানুর রহমান, প্রেমনাথ রায়, নিজাম নূর, নীরা হোসেন প্রমুখ।

নাগরিক নাট্যাঙ্গনের থিয়েটার কর্মশালা ॥ পথচলার ২০ বছর পূর্ণ করেছে নাগরিক নাট্যাঙ্গন। দীর্ঘপথ পেরিয়ে পদার্পণ করেছে আনন্দময় যাত্রার ২১ বছরে। হেঁটে আসা এই যাত্রাপথে থিয়েটারের হাত ধরে দলটি মানুষ থেকে মানুষে ছড়িয়ে দিয়েছে আদর্শ, দর্শন ও নান্দনিক মূল্যবোধ। দলটি চায় আরও অনেক নবপ্রাণের স্রোতে নিজেদের মিশিয়ে দিতে। চায় উদ্যমী বন্ধুর পাশে থেকে সমৃদ্ধ করতে তার সাধনা। সেই চাওয়া পূরণের লক্ষ্যে নাগরিক নাট্যাঙ্গন বাংলাদেশ সাজিয়েছে তিন দিনের থিয়েটার কর্মশালা। যে কেউ অংশ নিতে পারবেন এই কর্মশালায়। বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমিতে নিবন্ধন চলবে ২৮ মার্চ পর্যন্ত।

মুন্সীগঞ্জে বেদের মেয়ে মঞ্চস্থ ॥ মুন্সীগঞ্জে ‘বেদের মেয়ে’ মঞ্চস্থ হয়েছে। পল্লীকবি জসীমউদ্দীনের এই নাটক শনিবার রাতে শহরের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে মঞ্চস্থ হয়। নাকটির নির্দেশনা দেন নাট্যকার জাহাঙ্গীর আলম ঢালী। জনকণ্ঠের মুন্সীগঞ্জ প্রতিনিধি জানান, থিয়েটার সার্কেলের পরিবেশনায় এই নাটক দেখতে রাত সোয়া ১১টা অবধি মনোমুগ্ধ হয়ে দর্শক অবস্থান করে। এর আগে একই স্থানে মঞ্চস্থ হয় ‘লাশ নিয়ে ব্যবসা’। হুমায়ুন ফরিদের রচনা ও নির্দেশনায় মুন্সীগঞ্জ থিয়েটার পরিবেশিত নাটকটি চলে রাত ১০টা পর্যন্ত। জেলা প্রশাসন আয়োজিত শহরের সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে এত রাতেও সরব থাকা ছিল লক্ষণীয়। এর আগে আলোচনায় প্রধান অতিথির ভাষণ দেন স্থানীয় সাংসদ মৃণাল কান্তি দাস। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন জেলা প্রশাসক মোঃ সাইফুল হাসান বাদল। আলোচনায় অংশ নেনÑ পুলিশ সুপার বিপ্লব বিজয় তালুকদার, সরকারী হরগঙ্গা কলেজের অধ্যক্ষ ড. মীর মাহফুজুল হক, এডিসি মোহা. হারুন-অর-রশীদ, সাবেক মেয়র এ্যাডভোকেট মুজিবুর রহমান, পিপি এ্যাডভোকেট আব্দুল মতিন, সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি মতিউল ইসলাম হিরু ও প্রেসক্লাবের সভাপতি মীর নাসিরউদ্দিন উজ্জ্বল। ‘মুক্তিযুদ্ধ, স্বাধীনতা ও সুখী সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গঠনের লক্ষ্যে ডিজিটাল প্রযুক্তির ব্যবহার’ শিরোনামে প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন সরকারী হরগঙ্গা কলেজের সহকারী অধ্যাপক মোহাম্মদ রাসেল কবির। এছাড়া অনুষ্ঠানে আবৃত্তি, সঙ্গীত ও নৃত্য পরিবেশন করে জেলা ও সদর উপজেলা শিল্পকলা একাডেমি।

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: