১৮ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

মুক্তিযুদ্ধের আরও নাটক মঞ্চে আসা জরুরী ॥ মোমেনা চৌধুরী


মুক্তিযুদ্ধের আরও নাটক মঞ্চে আসা জরুরী ॥ মোমেনা চৌধুরী

অভিনয়শিল্পী মোমেনা চৌধুরী। দীর্ঘদিন ধরে মঞ্চ, টিভি ও চলচ্চিত্রে সুনামের সঙ্গে অভিনয় করছেন। শূন্যনের প্রযোজনায় ‘লাল জমিন’ নাটকে একক অভিনয় করে দর্শকপ্রিয়তা পেয়েছেন। মান্নান হীরার রচনা ও সুদীপ চক্রবর্তী নির্দেশিত এ নাটকটির শততম মঞ্চায়ন শিল্পকলা একাডেমির এক্সপেরিমেন্টাল থিয়েটার হলে ৩১ মার্চ সন্ধ্যা ৭টায়। এ বিষয়ে গুণী এ অভিনেত্রীর সঙ্গে তার বাসায় বিশেষ আড্ডার আয়োজন করেন। এখানে তার সঙ্গে কথা হয়।

‘লাল জমিন’ নাটকের শততম মঞ্চায়নে, অনুভূতি কেমন?

মোমেনা চৌধুরী ॥ সত্যি কথা বলতে, এই অনুভূতি ভাষায় প্রকাশ করা যাবে না। আল্লাহর কাছে আমার হাজার শুকরিয়া যে, তিনি আমাকে এতগুলো শো করার তৌফিক দিয়েছেন। আমার ৩০ বছরের থিয়েটার জীবনে একটি নাটকে একক অভিনয় নিয়ে এতদূর আসার পেছনে সবার কাছে আমি কৃতজ্ঞ, যারা আমাকে এতে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন। আমি দারুণভাবে আনন্দিত ও আবেগাপ্লুত। এ নাটকটি নিয়ে দেশে এবং দেশের বাইরেও যে সুনাম বয়ে আনতে পেরেছি তার জন্যও সবার কাছে আমার কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি।

নাটকে একক অভিনয়ে আপনার অভিজ্ঞতা কেমন?

মোমেনা চৌধুরী ॥ অভিজ্ঞতার ঝুড়ি এত বেশি ভারি হয়েছে যে, মুক্তিযুদ্ধকে হৃদয়ের গভীর থেকে খুব ভালবাসতে শিখেছি। পাশাপাশি মানুষের ভেতর এই ভালবাসার প্রভাব ঘটাতে সক্ষম হয়েছি।

এ নাটকে দর্শকের প্রতিক্রিয়া কেমন?

মোমেনা চৌধুরী ॥ ঢাকাসহ দেশের প্রায় ২০টিরও অধিক জায়গায় নাটকটি মঞ্চায়ন হয়েছে। এছাড়া বিদেশেও এ নাটকের মঞ্চায়ন হয়েছে। বিশেষ করে মুক্তিযোদ্ধা দর্শকরা নাটকটি দেখার পর বেশি আবেগাপ্লুত হয়েছেন। আর যাঁরা সে সময়ের প্রত্যক্ষদর্শী তাঁরা অনেকে নাটকটি দেখে মন্তব্য করেছেন যেন মুক্তিযুদ্ধে ফিরে গেছেন। এছাড়া যারা এ যুদ্ধ দেখেনি তারা বলেছে আমরা যেন মুক্তিযুদ্ধ দেখলাম।

নাটকের উদ্দেশ্য কতটা সফল?

মোমেনা চৌধুরী ॥ যারা মুক্তিযুদ্ধ দেখেনি, মূলত সেই তরুণ প্রজন্মের জন্য নাটকটি মঞ্চে আনা হয়েছে। সেই উদ্দেশ্য নিয়ে আমরা দেশের বিভিন্ন জেলা শহর থেকে উপজেলা পর্যায়েও নাটকটির প্রদর্শনী করেছি এবং এখনও করছি। এসব প্রদর্শনীতে স্কুল-কলেজের ছেলেমেয়েদের অংশগ্রহণ বেশি দেখা যাচ্ছে। আমরা খুবই আশাবাদী।

এ নাটকে কত দিন মঞ্চে নিয়মিত থাকতে চান?

মোমেনা চৌধুরী ॥ এ নাটকে শারীরিকভাবে অনেক পরিশ্রম হয়। আমার শারীরিক সামর্থ্য যতদিন থাকবে, ততদিনই নাটকটি নিয়ে কাজ করতে চাই।

এ ধরনের নাটক আরও বেশি মঞ্চে আসা প্রয়োজন?

মোমেনা চৌধুরী ॥ অবশ্যই মনে করি। শিল্পকলা থেকে মুক্তিযুদ্ধের অনেক নাটক মঞ্চে আসছে। তবে ছোট পরিসরে মুক্তিযুদ্ধের এ ধরনের নাটক বেশি বেশি আসা জরুরী। তাহলে মঞ্চায়নের ক্ষেত্রে এ ধরনের নাটক দেশের মধ্যে দ্রুত ছড়িয়ে দেয়া সহজ হবে।

আমাদের মঞ্চ নাটকের বর্তমান অবস্থা কেমন?

মোমেনা চৌধুরী ॥ আমরা থিয়েটারের মানুষ দারুণভাবে আশাবাদী। মঞ্চকে ভালবাসার কারণেই আমরা বিনা পারিশ্রমিকে কাজ করে যাচ্ছি। একটা নাটক মঞ্চে আনতে গেলে অনেক অর্থ ব্যয় হয়। আমাদের সে খরচ উঠে আসে না, তবুও আমরা মঞ্চের প্রতি দর্শকের আগ্রহ সৃষ্টির কাজ করে যাচ্ছি। নিরন্তর চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি যাতে দর্শকরা মঞ্চ নাটকের প্রতি আরও আকৃষ্ট হয়।

-গৌতম পাণ্ডে

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: