১৯ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট পূর্বের ঘন্টায়  
Login   Register        
ADS

ঘুষ নেয়ায় এসআই এএসআই সাসপেন্ড


স্টাফ রিপোর্টার ॥ ঘুষ নেয়ার অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় রাজধানীর শেরেবাংলা নগর থানার এক উপপরিদর্শক (এসআই) ও এক এএসআইকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করেছে ঢাকা মহানগর পুলিশ (ডিএমপি)। বরখাস্তকৃতরা হলেন এসআই দেবাশীষ ও এএসআই শফিয়ার। শনিবার রাতে তাদের বরখাস্ত করার বিষয়টি নিশ্চিত করেন ডিএমপি তেজগাঁও জোনের উপকমিশনার (ডিসি) বিপ্লব কুমার সরকার। এছাড়া এ ঘটনায় সম্পৃক্ত থাকার অভিযোগে শেরেবাংলা নগর থানার তদন্ত কর্মকর্তা আবুল কালাম আজাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার প্রক্রিয়া চলছে বলে জানা গেছে।

বরখাস্তের বিষয়টি নিশ্চিত করে তেজগাঁও বিভাগের উপকমিশনার (ডিসি) বিপ্লব কুমার সরকার জনকণ্ঠকে বলেন, শুক্রবার রাতে ‘হোপ হিউম্যান রিসোর্স’ নামে একটি রিক্রুটমেন্ট এজেন্সির ৩ সদস্যকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে এসআই দেবাশীষ। রাতেই ওসি বিষয়টি আমাকে জানালে আমি তাদের হয়রানি না করে ছেড়ে দিতে বলি। ওসিও পরে তাদের ছেড়ে দিতে বলে মানিক মিয়া এ্যাভিনিউ চলে যান ডিউটিতে। শনিবার সন্ধ্যায় একজন ফোন করে জানান, শেরেবাংলা নগর থানা পুলিশ ৩ জনকে আটকে রেখে ৩ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করেছে। এর মধ্যে আত্মীয়-স্বজনের মাধ্যমে টাকাও নিয়েছে ৭৫ হাজার। এ খবর পাওয়ায় গোপনে ব্যক্তিগত তদন্ত শুরু করি। ডিসি বলেন, তদন্তে জানতে পারি এএসআই শফিয়ারের বাড়ি কুড়িগ্রামে। আর যাদের আটক করে থানায় নেয়া হয়েছিল তাদেরও বাড়ি কুড়িগ্রামে। আটকের পর পরিবারের মাধ্যমে ভিকটিমরা ছুটিতে গ্রামের বাড়িতে থাকা শফিয়ারের হাতে ৭৫ হাজার টাকা তুলে দেন। বাকি টাকার জন্য ৪৫টি পাসপোর্টসহ শনিবার সকাল সাড়ে নয়টা পর্যন্ত তাদের আটকে রেখেছিল। তদন্তে জানা গেছে, এই ঘটনায় ইন্সপেক্টর অপারেশনও জড়িত। প্রাথমিক তদন্তের ভিত্তিতে এসআই দেবাশীষ ও এএসআই শফিয়ারকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। এছাড়া এ ঘটনায় থানার তদন্ত কর্মকর্তা আবুল কালাম আজাদের সম্পৃক্ততা মেলায় তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য ডিএমপি কমিশনারের কাছে চিঠি দেয়া হয়েছে বলে ডিসি বিপ্লব সরকার জানান।

সর্বাধিক পঠিত:
পাতা থেকে: