১৮ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

মন্ত্রী কামরুল ও মোজাম্মেল ফের আদালতে হাজির হচ্ছেন আজ


স্টাফ রিপোর্টার ॥ একাত্তরে মুক্তিযুদ্ধের সময় মানবতাবিরোধী অপরাধে মৃত্যুদন্ডপ্রাপ্ত জামায়াত নেতা মীর কাশেম আলীর আপীলের রায় ঘোষণার আগে মন্তব্যের ব্যাখ্যা দিতে খাদ্যমন্ত্রী কামরুল ইসলাম ও মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী আ.ক.ম মোজাম্মেল হক আজ রবিবার পুনরায় সুপ্রীমকোর্টের আপীল বিভাগে হাজির হচ্ছেন। প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার নেতৃত্বাধীন আপীল বিভাগের পুনাঙ্গ বেঞ্চ গত ২০ মার্চ দুইমন্ত্রীকে ফের আদালতে হাজির হতে এই নির্দেশ দেন। আপীল বিভাগের আজকের কার্যতালিকায় এ বিষয়টি শুনানির জন্য এক নম্বরে রয়েছে। অন্যদিকে সংবিধানের অষ্টম সংশোধনীর মাধ্যমে ইসলামকে রাষ্ট্রধর্মের মর্যাদা দেয়া সংক্রান্ত বিষয়ে হাইকোর্টের দেওয়া রুল শুনানি সোমবারের কার্যতালিকায় অন্তভুক্ত করা হয়েছে। শনিবার সন্ধ্যায় সুপ্রীমকোর্টের ওয়েবসাইটে প্রকাশিত দৈনন্দিন কার্যতালিকায় (কজলিস্ট) এ মামলাটি সোমবার দুপুর ২টায় শুনানির জন্য রাখা হয়েছে। বিচারপতি নাঈমা হায়দারের নেতৃত্বাধীন তিন সদস্যের বৃহত্তর বেঞ্চে রুলের এই শুনানি হবে।বেঞ্চের অপর দুই সদস্য হলেন-বিচারপতি কাজী রেজা-উল হক ও বিচারপতি মো. আশাফুল কামাল।

আজ খাদ্যমন্ত্রী কামারুল ইসলাম ও মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী আ.ক.ম মোজাম্মেল হককে ফের আদালতে হাজির হচ্ছেন। গত ৫ মার্চ রাজধানীর বিলিয়া মিলনায়তনে এক আলোচনা সভায় মীর কাশেম আলীর রায় প্রকাশ নিয়ে প্রধান বিচারপতি ও বিচার বিভাগ সম্পর্কে আগাম মন্তব্য করেন খাদ্যমন্ত্রী ও মুক্তিযুদ্ধ বিষয়কমন্ত্রী। ৮ মার্চ প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বাধীন আপীল বিভাগের পুর্ণাঙ্গ বেঞ্চ দুই মন্ত্রীকে ১৫ মার্চ আদালতে স্বশরীরে হাজির হয়ে ব্যাখ্যা দিতে নির্দেশ দেন।এই আদেশের পর দুইমন্ত্রী আইনজীবীর মাধ্যমে আদালতে নিঃশর্ত ক্ষমা চেয়েও আবেদন করেন। খাদ্যমন্ত্রী দেশের বাইরে থাকায় তার পক্ষে আদালতে হাজিরা দিতে সময় চাওয়া হয়েছিল। এর পর আপিল বিভাগ বিষয়টি শুনানির জন্য ২০ মার্চ পুনঃনির্ধারণ করেন এবং দুইমন্ত্রীকে হাজির হতে নির্দেশ দেন। ২০ মার্চ দুইমন্ত্রী আদালতে হাজির হয়ে ক্ষমা চাইলেও এতে সন্তুষ্ট হননি আপীল বিভাগ। পরে আদালত ২৭ মার্চ দুইমন্ত্রী ফের আদালতে হাজির হতে নির্দেশ দেন।

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: