১৯ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই ঘন্টায়  
Login   Register        
ADS

বাংলাদেশের শেষ ম্যাচে আজ প্রতিপক্ষ নিউজিল্যান্ড


বাংলাদেশের শেষ ম্যাচে আজ প্রতিপক্ষ নিউজিল্যান্ড

মিথুন আশরাফ, কলকাতা থেকে ॥ একদল টানা তিন ম্যাচ জিতেছে। সেমিফাইনালে খেলা নিশ্চিত করে নিয়েছে। আরেকটি ম্যাচ বাকি আছে। জিতলে অপরাজিত থেকেই সেমিফাইনালে খেলবে। দলটি হচ্ছে-নিউজিল্যান্ড। আরেকদল টানা তিন ম্যাচই হেরেছে। টি২০ বিশ্বকাপ থেকে বিদায় নিয়েছে। গ্রুপ পর্বে নিজেদের শেষ ম্যাচটি জিতলে অন্তত একটি জয়ের স্মৃতি নিয়ে দেশে ফিরতে পারবে। দলটি হচ্ছেÑ বাংলাদেশ। এ দুই দলের মধ্যকারই আজ ম্যাচ হবে। বাংলাদেশ সময় বেলা সাড়ে তিনটায় কলকাতার ইডেন গার্ডেনে ম্যাচটি শুরু হবে। যে ম্যাচটিতে দুই দলই জেতার নেশায় বুঁদ হয়ে আছে।

দুপুর হতেই ইডেন গার্ডেনে সুনসান নীরবতা! শুধু আজকের ম্যাচকে উপলক্ষ করে ৬৬ হাজার দর্শকধারণ ক্ষমতার গ্যালারিতে বসার সিটগুলো মোছা এবং স্পন্সর প্রতিষ্ঠানের ব্যানারগুলো লাগানোর জন্য লোকগুলো আছে। এছাড়া আর কেউই নেই। যে সৌরভ গাঙ্গুলীকে ভারত-পাকিস্তান ম্যাচের আগে প্রতিদিন ইডেন গার্ডেনে দেখা গেছে, তিনিও উধাও! তবে আজ এখানেই দুপুর থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত লোকে-লোকারণ্য হয়ে উঠবে। ম্যাচ যে দুপুর থেকে।

দুপুরের মধ্যেই দুই দলেরই সব কাজ শেষ। সকালে নিউজিল্যান্ডের ক্রিকেটাররা অনুশীলন করেছেন। বাংলাদেশ ম্যাচকে সামনে রেখে কঠোর অনুশীলনই করেছেন। সেখানে বাংলাদেশ দলের ক্রিকেটাররা তো ইডেন গার্ডেন মুখীই হলেন না। শুধু মাশরাফি আসলে সংবাদ সম্মেলনে। সেই সংবাদ সম্মেলন না থাকলে মাশরাফিকেও ইডেন গার্ডেনে পাওয়া যেত না। হাতে আছে অল্প সময়। আজকের ম্যাচটি শেষ হলে রবিবারই দেশের মাটিতে পা রাখবেন বাংলাদেশ দলের ক্রিকেটাররা। মাঝে আজ শনিবার আছে একদিন। সেই দিনটিতে আবার ম্যাচ রয়েছে। তাই শুক্রবার দিনটিকে ভালভাবেই কাজে লাগালেন মাশরাফিরা। পরিবার-পরিজনের জন্য শপিং করেই সময় কাটালেন। ভারতের বিপক্ষে হেরে যে হতাশায় আছেন, সেটি কাটানোর চেষ্টাও করেছেন ক্রিকেটাররা। ফুরফুরে মেজাজ কোনভাবেই থাকার কথা নয়। কিন্তু নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ম্যাচে ভাল করতে হলে অতীত ভুলে এগিয়ে যেতেই হবে। তাই অনুশীলন না করে নিজেদের কিভাবে আরও স্বস্তিতে ফেরানো যায়, সেই চেষ্টাই করেছেন। তাতে এখন ফল মিলে গেলেই হলো।

দুই দলেরই গ্রুপ পর্বের শেষ ম্যাচ আজ। নিউজিল্যান্ড জিততে মরিয়া ম্যাচটিতে। কারণ, অপরাজিত থাকবে। সেক্ষেত্রে ‘গ্রুপ-১’ এর দ্বিতীয় সেরা দলের বিপক্ষে ম্যাচ খেলার সুযোগ মিলবে। যে ম্যাচটিতে জিতলে প্রথমবারের মতো টি২০ বিশ্বকাপের ফাইনালে খেলবে নিউজিল্যান্ড। আর বাংলাদেশও একই পথের পথিক। যদি ম্যাচটিতে জেতা যায়, তাহলে দেশের মাটিতে খালি হাতে ফেরা হবে না। অন্তত একটি জয়ের স্মৃতি নিয়ে মাঠ ছাড়তে পারবে। দেশের ক্রিকেটপ্রেমীদের একটি জয় উপহার দিতে পারবে। ভারতের বিপক্ষে হারের ক্ষত খানিকটা হলেও তখন দূর হবে।

বাংলাদেশ অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা সেইদিকেই নজর দিচ্ছেন। বলেছেন, ‘পাকিস্তানের সঙ্গে ম্যাচটা বাদ দিলে আমরা অস্ট্রেলিয়া ও ভারতের সঙ্গে ভাল ক্রিকেট খেলেছি। প্রথম ম্যাচে আমরা পাকিস্তানের সঙ্গে এই মাঠে (ইডেন গার্ডেন) বাজে ভাবে হেরেছি। ভারতের সঙ্গে আমরা মনে করি, শেষ পর্যন্ত ম্যাচেই ছিলাম। এবং অস্ট্রেলিয়ার রান রেট প্রয়োজন ছিল, এজন্য নিজেদের অনেক পুশ করেছিল। তারপরও ওই অবস্থা থেকে আমরা খুব একটা খারাপ ক্রিকেট খেলিনি। শেষ দুইটা ম্যাচ আমরা ভাল খেলেছি। ওখানে অনেক ইতিবাচক জিনিস আমরা অর্জন করেছি। এসব যদি আমরা নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষেও প্রদর্শন করতে পারি। সেক্ষেত্রে ভাল সম্ভাবনা আছে আমাদের।’

সঙ্গে যোগ করেন, ‘নিউজিল্যান্ড দল হিসেবে এই কন্ডিশনে যেমনই হোক। তারা কন্ডিশনের সঙ্গে খুব ভালভাবে মানিয়ে নিয়েছে। তারা এই টুর্নামেন্টে খুব ভাল অবস্থায় আছে। আমাদের এই মুহূর্তে হারানোর কিছু নেই। আশা করি আমরাও ভাল ক্রিকেট খেলতে পারব। সবাই হতাশ। প্রত্যেকটা মানুষই ভেঙ্গে পড়েছে। চেষ্টা করব সামনের ম্যাচটায় আমাদের সেরা খেলাটা খেলার। যদি সুযোগ থাকে ম্যাচটা জেতার।’

নিউজিল্যান্ড কী তা হতে দেবে? দলটির দুই স্পিনারই বিশ্বকাপ মাতিয়ে রেখেছেন। বাঁহাতি মিচেল সান্টনার ও ডানহাতি ইস সোধিই প্রতিপক্ষের বারোটা বাজিয়ে দিচ্ছেন। এখন পর্যন্ত নিউজিল্যান্ড যে শক্তিশালী ভারত, অস্ট্রেলিয়া ও পাকিস্তানের বিপক্ষে জিতেছে, এ দুই স্পিনারই আসল কাজগুলো করে দিয়েছেন। ইডেন গার্ডেনেতো ব্যাটিংটাও যেমন দুর্দান্ত হয়, তেমনি স্পিনটাও ধরে। নিউজিল্যান্ডের বিপদের সময় ব্রেক থ্রু এনে দিচ্ছেন। বাংলাদেশের বিপক্ষেও সেই কাজটিই করতে চান সোধি। বলেছেন, ‘আমরা অন্য ম্যাচগুলোর মতোই বাংলাদেশ ম্যাচকে ভাবছি। আমরা কন্ডিশনে ভালভাবেই মানিয়ে নিয়েছি।’ সঙ্গে ভারতের বিপক্ষে এমন ম্যাচ খেলায় সোধির কাছ থেকেও বাহবা পাচ্ছেন মাশরাফিরা। সোধি বলেছেন, ‘ভারতের বিপক্ষে এত ক্লোজ ম্যাচ হয়েছে। ১ রানে হেরেছে বাংলাদেশ। এটা আসলেই দুর্দান্ত। এ ম্যাচটির বুঝিয়ে দিচ্ছে বাংলাদেশ কতটা ভাল দল। আমাদের জেতার জন্য উপায় বের করতে হবে।’ নিউজিল্যান্ড ক্রিকেটাররা যখন বলছে জিততে হলে উপায় বের করতে হবে, তার মানে বাংলাদেশকে নিয়ে তারাও চিন্তায় আছে। দুই দলেরই গ্রুপ পর্বের শেষ ম্যাচ আজ। এখন নিউজিল্যান্ডের চিন্তা বাংলাদেশকে জয় এনে দিলেই হয়।

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: