১৮ ফেব্রুয়ারী ২০১৮, ৬ ফাল্গুন ১৪২৪, রবিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
 
সর্বশেষ

রূপগঞ্জে ভণ্ডপীর ফের তৎপর

প্রকাশিত : ২৬ মার্চ ২০১৬
  • আস্তানা ঘেরাও করে বিক্ষোভ

নিজস্ব সংবাদদাতা, রূপগঞ্জ, ২৫ মার্চ ॥ রূপগঞ্জ উপজেলার মাসাবো এলাকায় গত এক মাস আগে এক কিশোরীকে বৃদ্ধ ভ-পীরের বিয়ে করা ও অসামাজিক কর্মকা-ের পর ভ-পীরের আস্তানা আগুন জ্বালিয়ে দিয়ে ও ভেঙ্গে গুঁড়িয়ে দিয়েছিল বিক্ষুব্ধ জনতা। তখন জনতার বিক্ষোভের মুখে ভ-পীরসহ তার ভক্তরা কৌশলে পালিয়ে যায়। এদিকে ভ-পীর আনিছুল হকসহ প্রতারক চক্র ফের মাসাবো এলাকার ময়ফুলনগর দরবার শরীফ নামে আস্তানায় আসার জন্য মরিয়ে হয়ে উঠেছে। এছাড়া এলাকার প্রতিবাদীদের হয়রানি করতে নারায়ণগঞ্জ আদালতে মামলা দায়ের করেছে। এসবের প্রতিবাদে শুক্রবার বিকেলে মাসাবোসহ আশপাশের শত শত মুসল্লি একত্রিত হয়ে ভ-পীরের আস্তানা ঘেরাও করে বিক্ষোভ মিছিল শুরু করে। প্রত্যক্ষদর্শী ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার মাসাবো চৌরাস্তা এলাকায় ময়ফুলনগর দরবার শরীফ রয়েছে। ওই দরবার শরীফের পীর দাবি করে আসছেন আনিছুল হক নামে এক ভ-। দীর্ঘদিন ধরে বিভিন্ন এলাকার কিশোরী, যুবতীসহ বিভিন্ন বয়সের নারীরা ভ-পীর আনিছুল হকের প্রতারণার ফাঁদে পড়েছেন। কিশোরী সুমাইয়া আক্তারের পরিবারের লোকজনও ওই ভ-পীরের ভক্ত বলে জানা গেছে। পার্শ্ববর্তী সোনারগাঁ উপজেলার জামপুর ইউনিয়নের পেরাব এলাকার শহীদ মিয়ার মেয়ে কিশোরী সুমাইয়া আক্তার তার পরিবারের সঙ্গে ভ-পীরের আস্তানায় বসবাস করতেন। ভ-পীর আনিছুল হক স্বপ্ন ধর্ষণের ব্যাখ্যা দিয়ে কিশোরীর পরিবারকে জানায়, তিনি ও তার ভক্তবৃন্দ স্বপ্নে দেখেন কিশোরী সুমাইয়া আক্তারের সঙ্গে ভ-পীরের দৈহিক মিলন ঘটে। এছাড়া ওই কিশোরীকে বিয়ে না করলে ভ-পীর আনিছুল হক মারা যাবেন। এরপর বিষয়টি সুমাইয়া আক্তারের পরিবারকে জানানো হয়। পরে পরিবারের লোকজনের সঙ্গে কথা বলে বিয়ে পাকা হয় এবং গত ২০ ফেব্রুয়ারি রাতে বিয়ের দিন ধার্য করা হয়। এছাড়া ভূরিভোজের মাধ্যমে এলাকার অনেক ভক্তবৃন্দকেই ওই বিয়েতে দাওয়াত করা হয়।

প্রকাশিত : ২৬ মার্চ ২০১৬

২৬/০৩/২০১৬ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

দেশের খবর



শীর্ষ সংবাদ: