২৩ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে বিদায় বললেন ওয়াটসন


জিএম. মোস্তফা ॥ অবশেষে ঘোষণাটা দিয়েই দিলেন অস্ট্রেলিয়ার অলরাউন্ডার শেন ওয়াটসন। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে বিদায় বলে দিলেন তিনি। ভারতে চলমান টি২০ বিশ্বকাপের পরই আনুষ্ঠানিকভাবে অবসরে চলে যাবেন তিনি। এমনকি প্রথম শ্রেণীর ক্রিকেটেও দেখা যাবে না এই অলরাউন্ডারকে। তবে বিগব্যাশসহ ঘরোয়া টি২০ টুর্নামেন্ট খেলবেন ৩৪ বছর বয়সী শেন ওয়াটসন।

নিজের অবসর নিয়ে শেন ওয়াটসন বলেন, ‘ধর্মশালায় এক সুন্দর সকালে ঘুম থেকে উঠেই কী জানি হলো। তবে এটা মনে হলো এখনই সঠিক সময়। অস্ট্রেলিয়া স্কোয়াডে থাকাটা সব সময়ই উপভোগ করেছি। তবে সময়টা এখন ভিন্ন। যাদের সঙ্গে খেলে এ পর্যায়ে এসেছি তারা কেউই এখন দলে নেই। তাই মনে হয়েছে আমি সঠিক সিদ্ধান্তই নিচ্ছি। যেসব চোট নিয়ে খেলে এসেছি এখন আর আলো খোঁজে পাচ্ছি না।’ আর অস্ট্রেলিয়াকে অসামান্য সব কীর্তি উপহার দেয়ায় ওয়াটসন গর্ব করতে পারে বলে মন্তব্য করেছেন ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার প্রধান নির্বাহী জেমস সুদারল্যান্ড। এ বিষয়ে এক বিবৃতিতে তিনি বলেন, ‘অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেটে যে অবদান রেখেছেন তাতে ওয়াটসন গর্ব করতে পারেন।’ শেন ওয়াটসনের ক্রিকেট ক্যারিয়ার নিয়ে দেশটির সাবেক অধিনায়ক স্টিভ ওয়াহ গুরুত্বপূর্ণ মন্তব্য করেছেন।

জানিয়ে রাখা ভাল যে, গত বছরের শেষ দিকেই টেস্ট ক্রিকেট থেকে অবসরে চলে যান ওয়াটসন। গত বছরের সেপ্টেম্বরের পর থেকে আর কোন একদিনের ম্যাচ খেলা হয়নি অসি এই ক্রিকেটারের।

২০০২ সালের ২৪ মার্চে সেঞ্চুরিয়নে, দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে একদিনের ম্যাচ দিয়ে অভিষেক হয় শেন ওয়াটসনের। তখন সে ২০ বছরের টগবগে এক যুবক। কাকতালীয় হলেও বৃহস্পতিবারের তারিখটাও সেই ২৪ মার্চ! ক্রিকেটকে বিদায় ঘোষণা করার এমন দিনটিকেই বেছে নিলেন তিনি। ঠিক ১৪ বছর আর্ন্তজাতিক ক্রিকেটে শতভাগ উজার করে দেয়ার সর্বাত্মক চেষ্টা করে গেছেন অলরাউন্ডার শেন ওয়াটসন।

এই সময়ের মধ্যে ১৯০ একদিনের ম্যাচ খেলেছেন ওয়াটসন। ৪০.৫৪ গড়ে তার মোট রান ৫৭৫৭। ৩১.৭৯ গড়ে তার উইকেটের সংখ্যা ১৬৮। শুধু তাই নয়, একদিনের ক্রিকেটে অস্ট্রেলিয়ানদের মধ্যে সর্বোচ্চ ইনিংসটাও তার দখলে। ২০১১ সালে ঢাকায় বাংলাদেশের বিপক্ষে ১৮৫ রানের অনবদ্য ইনিংসটি খেলেছিলেন তিনি। সাদা পোশাকে অস্ট্রেলিয়ার হয়ে ৫৯ ম্যাচ খেলেছেন ওয়াটসন। ৩৫.১৯ গড়ে টেস্ট ক্রিকেটে তার মোট রান ৩,৭৩১। ৩৩.৬৮ গড়ে টেস্টে তার উইকেট সংখ্যা ৭৫। আর টি২০ ক্রিকেটে ইতোমধ্যেই ৫৬ ম্যাচ খেলে ফেলেছেন তিনি। যেখানে ২৮.০০ গড়ে তার রান ১৪০০। আর ২৪.৭১ গড়ে তার উইকেটসংখ্যা ৪৬। টেস্ট ক্রিকেটে মাঝে মাঝে হতাশাজনক পারফর্মেন্স উপহার দিলেও সংক্ষিপ্ত ফরমেটে সবসময়ই ধারাবাহিক ছিলেন ওয়াটসন। তার সেরা সময়ে আইসিসি টি২০ আর্ন্তজাতিক ক্রিকেট র‌্যাঙ্কিংয়ের র্শীষস্থানটাও দখল করেছিলেন তিনি। শুধু তাই নয়, দীর্ঘ দুই বছর এক নাম্বার অলরাউন্ডার হিসেবে দাপট দেখিয়েছেন ক্রিকেট বিশ্বকে। ২০১১ সালে অলরাউন্ডার হিসেবে একদিনের ক্রিকেটেও ১ নাম্বার জায়গাটি নিজের করে নিয়েছিলেন শেন ওয়াটসন। আর ব্যাটসম্যান হিসেবে সর্বোচ্চ তিন নাম্বার স্থান দখল করেছিলেন এই অসি ক্রিকেটার।

বর্তমানে ৩৪ বছর বয়সী ওয়াটসন দুই সন্তানের জনক। অসিদের হয়ে ৩ বিশ্বকাপে খেলেছেন তিনি। ২০০৭ ও ২০১৫ সালে চ্যাম্পিয়ন হওয়া অস্ট্রেলিয়া দলের গুরুত্বপূর্ণ সদস্য এই ওয়াটসন। সেই সঙ্গে ২০০৬ ও ২০০৯ সালে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির ফাইনালে ম্যাচ সেরার পুরস্কারও জিতেছেন তিনি। ইতিহাসের সপ্তম ক্রিকেটার হিসেবে সব ফরমেটে ১০,০০০ রান এবং ২৫০ কিংবা তারও বেশি উইকেট লাভের মাইলফলক স্পর্শ করেছেন ওয়াটসন। অস্ট্রেলিয়াকে তিন ফরমেটে অধিনায়কত্ব করার রেকর্ডও রয়েছে তার। কিন্তু দুর্ভাগ্য শেন ওয়াটসন এখন পর্যন্ত টি২০ বিশ্বকাপটাই শুধু জিততে পারেননি। ভারতে কী তাহলে সেই আক্ষেপটাও মিটে যাবে এবার? তবে সেই উত্তর দেবে সময়। তার আগে আজ পাকিস্তানের বিপক্ষে ম্যাচে অবশ্যই জিততে হবে শেন ওয়াটসনের অস্ট্রেলিয়াকে।