২০ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

উত্তেজনাপূর্ণ ম্যাচে মুখোমুখি ব্রাজিল-উরুগুয়ে


স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ বিশ্ব ফুটবলের দুই নান্দনিক শক্তি ব্রাজিল ও উরুগুয়ে। দেশ দুটি সাতবার বিশ্বকাপও জিতেছে। এ দু’দলের খেলা হলে তাই সাজ সাজ রব পড়ে যায় ফুটবলবিশ্বে। এমন উপলক্ষ আবারও দোয়ারে। বিশ্বকাপ বাছাই ফুটবলে দক্ষিণ আমেরিকা অঞ্চলের ম্যাচে একে অপরের মুখোমুখি হচ্ছে ব্রাজিল ও উরুগুয়ে।

উত্তেজনাপূর্ণ এই ম্যাচটি হবে ব্রাজিলের রেসিফেতে। গুরুত্বপূর্ণ ও মর্যাদার ম্যাচটি বাংলাদেশের দর্শকরা দেখতে পারবেন শনিবার সকাল ৬টা ৪৫ মিনিটে। সরাসরি দেখাবে সনি ইএসপিএন চ্যানেল। এই ম্যাচের মধ্য দিয়ে দীর্ঘ নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে আন্তর্জাতিক ফুটবলে ফিরছেন উরুগুয়ের লুইস সুয়ারেজ। ম্যাচটিতে দুই বার্সিলোনা সতীর্থ নেইমার ও সুয়ারেজের লড়াই দেখতেও উন্মুখ ফুটবলবিশ্ব। তবে সাবেক লিভারপুল তারকাকে যেন ভয়ই পাচ্ছে সেলেসাওরা! পাঁচবারের বিশ্বকাপজয়ী দলটির বিভিন্ন ফুটবলারের মুখ থেকে এমন শব্দই উচ্চারিত হয়েছে।

বর্তমানে ৪ ম্যাচ শেষে ১২ পয়েন্ট নিয়ে এককভাবে শীর্ষে ইকুয়েডর। ৯ পয়েন্ট নিয়ে উরুগুয়ের অবস্থান দ্বিতীয়। তৃতীয় স্থানে থাকা ব্রাজিলের পয়েন্ট ৭। সেলেসাওদের সমান পয়েন্ট আছে আরও দুই দলের। চলতি মৌসুমেও অপ্রতিরোধ্য ছন্দে এগিয়ে চলেছেন সুয়ারেজ। প্রায় দুই বছর পর উরুগুয়ের এই গোলমেশিন আন্তর্জাতিক নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে ব্রাজিলের বিপক্ষে বিশ্বকাপ বাছাইয়ের ম্যাচে জাতীয় দলের হয়ে খেলার অপেক্ষায়। তাকে নিয়েই মূলত ছক কষতে হচ্ছে ব্রাজিল কোচ কার্লোস দুঙ্গাকে। যে কোন প্রতিপক্ষের জন্যই এখন আতঙ্কের নাম সুয়ারেজ। বিষয়টি মানছেন ব্রাজিলের ডিফেন্ডার জিল। রিওতে সংবাদ সম্মেলনে সুয়ারেজ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, আমার কোন উপায় জানা নেই সুয়ারেজকে আটকে রাখার। সে দুর্দান্ত স্ট্রাইকার। ফুটবলার হিসেবে সে অপ্রতিরোধ্য। সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হলো আমাদের পরিকল্পনামাফিক খেলতে হবে। প্রতিপক্ষের নির্দিষ্ট একজনকে নিয়ে ভাবলে হবে না।

জিল আরও বলেন, সুয়ারেজকে আটকে রাখার মতো আমরা চেষ্টা করব তার সতীর্থদেরও রুখে দিতে। আমাদের সে আত্মবিশ্বাস আছে। আমরা জানি সর্বোচ্চ পর্যায়ে আমাদের কঠিন পরীক্ষার মুখোমুখি হতে হবে। নিজেদের সেরাটা দিয়েই আমরা ভাল পারফর্ম করতে চাই। অনুশীলনের মাঠে সুয়ারেজকে নিয়ে আমি অতিরিক্ত কাজ করতে চাই। সুয়ারেজকে নিয়ে চিন্তিত ব্রাজিলিয়ান গোলরক্ষক দিয়াগো আলভেসও। তিনি বলেন, অবশ্যই সুয়ারেজের ওপর আমাদের বিশেষ দৃষ্টি থাকবে। অসাধারণ সময় যাচ্ছে তার। উল্লেখ্য, ৯ ম্যাচের নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে আন্তর্জাতিক ফুটবলে ফিরতে রাখতে যাচ্ছেন সুয়ারেজ। ২০১৪ সালে ব্রাজিল বিশ্বকাপে ইতালিয়ান ডিফেন্ডার জিওর্জিও চিয়েল্লিনিকে কামড় দিয়ে নিষিদ্ধ হন সাবেক লিভারপুল তারকা।

ব্রাজিল-উরুগুয়ে ম্যাচে সবার দৃষ্টি নেইমার-সুয়ারেজের দিকে। এ প্রসঙ্গে সুয়ারেজ বলেন, নেইমারের সঙ্গে আমার বাজি আছে। বিজয়ী একটা বার্গার পাবে। সে দারুণ এক সতীর্থ এবং বার্সিলোনায় আমরা সব সময় মজা করি। যেই ম্যাচটি জিতুক উপভোগ করবে। আমরা (বার্সিলোনায়) সতীর্থ আর বন্ধু। সাবেক লিভারপুল স্ট্রাইকার আরও বলেন, আমরা দু’জনই নিজেদের দল আর দেশের জন্য সর্বস্ব দেয়ার চেষ্টা করব। নেইমার আমাকে খুব ভাল করে চেনে। আমিও তাকে খুব ভাল চিনি। যদিও মাঠে সবকিছুই আলাদা। ব্রাজিল বিশ্বকাপে সেই আলোচিত কামড় কা- প্রসঙ্গে সুয়ারেজ বলেন, অতীতে যা ঘটেছে সেটা আমাকে চাপ সামলে নেয়ার বিষয়টিতে সাহায্য করেছে। নিজের খেলা প্রসঙ্গে বার্সা তারকা বলেন, আমি একইভাবে খেলে যাব। কারণ আমি এভাবেই খেলি। যে সুযোগগুলো পেয়েছি তার সর্বোচ্চটা কাজে লাগাতে চাই। আমার সেরাটা করতে চাই এবং জাতীয় দলে ফেরা আর মানুষের ভালবাসা উপভোগ করতে চাই।

আগামীতে কামড় কা-ের মতো অযাচিত ঘটনা সুয়ারেজ আর ঘটাবেন না বলে আশাবাদী উরুগুয়ে কোচ অস্কার তাবারেজ। তিনি বলেন, বিষয়টি সম্পর্কে তার অবশ্যই বোধোদয় ঘটবে। আর আমাদের লক্ষ্য বস্তুর মধ্যে একটি হচ্ছে তাকে শুধু ফুটবলের দিকেই মনোযোগী করে তোলা।