মেঘলা, তাপমাত্রা ৩১.১ °C
 
২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ১০ আশ্বিন ১৪২৪, সোমবার, ঢাকা, বাংলাদেশ

আইজিসিসিতে গাইলেন দুই বাংলার শিল্পী

প্রকাশিত : ২৫ মার্চ ২০১৬
আইজিসিসিতে গাইলেন দুই বাংলার শিল্পী

স্টাফ রিপোর্টার ॥ রবীন্দ্রগানের শ্রোতাদের জন্য আসরটি ছিল চমৎকার। একই আসরে তিন শিল্পীর কণ্ঠে গাওয়া একের পর এক রবীন্দ্রসঙ্গীতে মুগ্ধ হয় আইজিসিসির শ্রোতা। বসন্ত পূর্ণিমাা উপলক্ষে বুধবার সন্ধ্যায় ‘পূর্ণ চাঁদের মায়ায়’ শীর্ষক এ আয়োজন করে ঢাকার ইন্দিরা গান্ধী সাংস্কৃতিক কেন্দ্র। অনুষ্ঠানে সঙ্গীত পরিবেশন করেন কলকাতার শিল্পী অভিজিৎ মজুমদার, বাংলাদেশের সুকান্ত চক্রবর্তী ও সেজুঁতি বড়ুয়া। শিল্পী অভিজিতের কণ্ঠে ‘বসন্তে হে ভুবন মোহিনী’ গান দিয়ে শুরু হয় অনুষ্ঠান। তিনি পরপর আরও দুটি রবীন্দ্রসঙ্গীত পরিবেশন করেন। গান দুটি হচ্ছে ‘যুগে যুগে বুঝি আমায়’ ও ‘একটুকু ছোঁয়া লাগে একটুকু কথা শুনি’। শ্রোতারা নিবিড় চিত্তে শুনছিল শিল্পীর গান। গানের শেষে সবাই হাততালি দিয়ে শিল্পীকে অভিনন্দ জানাচ্ছিল। এরপর মঞ্চে আসেন শিল্পী সেজুঁতি বড়ুয়া। তার পরিবেশনায়ও ছিল তিনটি গান। ‘আহা আজি এ বসন্তে’ গানটি দিয়ে শুরু হয় তার পরিবেশনা। পরের গান দুটি ছিল ‘দিয়েগেনু বসন্তের এই গান খানি’ ও ‘ফাগুন হাওয়ায় হাওয়ায় করেছি যে দান’। একক পরিবেশনার শেষ শিল্পী ছিলেন সুকান্ত চক্রবর্তী। তিনি পরপর রবীন্দ্রনাথের তিনটি গান পরিবেশন করেন। গান তিনটি হচ্ছে ‘ও আমার চাঁদের আলো’, ‘পুরানো সেই দিনের কথা’ ও ‘ফাগুনের পূর্ণিমা’। প্রত্যেকের একক পরিবেশনার পর শুরু হয় দ্বৈত পরিবেশনা।

শিল্পী অভিজিৎ মজুমদার ও সুকান্ত চক্রবর্তীর দ্বৈত পরিবেশনায় ছিল পর পর পাঁচটি রবীন্দ্রসঙ্গীত। এগুলো হচ্ছে- আজকি তাহার বারতা, এ বেলা ডাক পড়েছে, লাবনী পূর্ণপ্রাণ ও চাঁদ তোমায় দোলা ও তোমার আনন্দ। তিন শিল্পী একত্রে কণ্ঠ মেলালেন শেষ গানে। গানের প্রথম চরণ ‘রাঙিয়ে দিয়ে যাও’।

প্রকাশিত : ২৫ মার্চ ২০১৬

২৫/০৩/২০১৬ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


শীর্ষ সংবাদ: