২০ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট ৮ ঘন্টা পূর্বে  
Login   Register        
ADS

তিন ব্রাসেলস হামলাকারী শনাক্ত চতুর্থ জনকে খুঁজছে পুলিশ


বেলজিয়ামের রাজধানী ব্রাসেলসে মঙ্গলবারের সন্ত্রাসী হামলায় অংশ নেয়া আত্মঘাতী তিন হামলাকারীকে বুধবার শনাক্ত করা হয়েছে এবং চতুর্থ হামলাকারীকে খুঁজছে পুলিশ। জাভেনতেম বিমানবন্দরে যার স্যুটকেস বোমা বিস্ফোরিত হয়নি। এদিকে ইব্রাহিম আল বাকরাউয়িকে গত বছর নেদারল্যান্ডসে ফেরত পাঠানো হয়েছিল জানিয়ে তুরস্ক বলেছে, ফেরত পাঠানো ওই ব্যক্তি জঙ্গী ছিল এবং এমনটি জানানোর পরও বেলজিয়াম সতর্ক হয়নি। খবর এএফপি ও বিবিসির।

ব্রাসেলসের জাভেনতেম বিমানবন্দরে ইব্রাহিম আল বাকরাউয়ি (২৯) ও ম্যালবিক মেট্রো স্টেশনে তার ভাই খালিদ আল বাকরাউয়ি (২৭) মঙ্গলবার সকালে কাছাকাছি সময়ে ভয়াবহ সন্ত্রাসী হামলা চালায়। বিমানবন্দরের সিসিটিভিতে ধরা পড়া ট্রলি নিয়ে হাঁটতে থাকা তিন সন্দেহভাজনের মাঝের জন ইব্রাহিম। বিস্ফোরণের ঘটনার ঠিক আগে ব্যাগভর্তি ট্রলি নিয়ে এই তিনজন বহির্গমন হলের দিকে এগিয়ে যাচ্ছিলেন। ছবিতে ইব্রাহিমের পাশের দুজনের একজন নাজিম লাশরাউয়ি (২৫)। বোমা প্রস্তুতকারী নাজিমই বিমানবন্দরের দ্বিতীয় হামলাকারী বলে পুলিশ শনাক্ত করেছে। অপরজন পালিয়ে গেছেন। সবার ডানে থাকা হ্যাট ও সাদা জ্যাকেট পরা পালিয়ে যাওয়া এই তৃতীয় জনকেই খুঁজছে পুলিশ। বিস্ফোরণের ঘটনার পর তিনি টার্মিনাল থেকে দৌড়ে পালিয়ে যান। এই হামলাকারীর সঙ্গে ফ্রান্সের প্যারিসে গত নবেম্বরের সন্ত্রাসী হামলায় জড়িত ইসলামিক স্টেট (আইএস) জঙ্গীদের সরাসরি সম্পর্ক ছিল বলে মনে করা হচ্ছে। এদিকে তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তায়েপ এরদোগান বুধবার আঙ্কারায় এক সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগ করে বলেন, ইব্রাহিম একজন জঙ্গী, বেলজিয়াম ও ডাচ কর্তৃপক্ষকে জানানো হলেও তারা তুর্কি সতর্কতাকে আমলে নেয়নি। তিনি বলেন, ইব্রাহিমকে সিরীয় সীমান্ত সংলগ্ন তুরস্কের দক্ষিণাঞ্চলীয় প্রদেশ গাজিয়ানতেপ থেকে আটক করা হয়। পরে তার অনুরোধে তাকে নেদারল্যান্ডসে ফেরত পাঠানো হয়। ইব্রাহিমের বিষয়ে নেদারল্যান্ডস কর্তৃপক্ষকে অবহিত করা হয়েছিল। আঙ্কারায় বেলজিয়ামের দূতাবাসকেও বিষয়টি জানানো হয়। নেদারল্যান্ডসের এক সরকারী কর্মকর্তা বলেছেন, এরদোগানের দাবি সতর্কভাবে খতিয়ে দেখা হচ্ছে। কিন্তু ইব্রাহিম নেদারল্যান্ডসে ছিলেন কিনা তা এখনও জানাননি তারা। আগের কয়েকটি ঘটনায় বেলজিয়ামের ফেডারেল প্রসিকিউটর ফ্রেডরিক ভ্যান লি ও কর্মকর্তারা জানিয়েছিলেন, কোন সাক্ষ্য-প্রমাণ ছাড়া শুধু সিরিয়ায় যুদ্ধ করেছে এমন তথ্যের ভিত্তিতে তুরস্ক থেকে পাঠানো কাউকে তারা কারাগারে আটক রাখতে পারে না। এসব ঘটনার মধ্যে সন্দেহভাজন প্যারিস হামলাকারী আবদেসালামের বিষয়টিও ছিল। তুরস্ক থেকে গত বছরের প্রথম দিকে তাকে বেলজিয়ামে ফেরত পাঠানো হয়। একই যুক্তিতে আবদেসালামকে আটক না রাখায় ওই বছরের নবেম্বরে আবদেসালাম ও তার সঙ্গীরা প্যারিসে ভয়াবহ জঙ্গী হামলা চালায়।