মেঘলা, তাপমাত্রা ৩১.১ °C
 
২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ৮ আশ্বিন ১৪২৪, শনিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
সর্বশেষ

জাসদের বিদ্রোহীদের আদালতে যাওয়ার ঘোষণা

প্রকাশিত : ২৪ মার্চ ২০১৬, ০৪:৩৫ পি. এম.
জাসদের বিদ্রোহীদের আদালতে যাওয়ার ঘোষণা

অনলাইন রিপোর্টার ॥ হাসানুল হক ইনু নেতৃত্বাধীন জাসদ থেকে বেরিয়ে যাওয়া অংশের নেতারা দলীয় প্রতীক মশাল এবং দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের দখল পেতে আইনের আশ্রয় নেওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন।

অবশ্য ঐক্যের জন্য দরজা এখনও খোলা বলে মন্তব্য করেছেন জাসদের এ অংশের নেতারা।

শরীফ নুরুল আম্বিয়া, মইন উদ্দীন খান বাদল ও নাজমুল হক প্রধান বৃহস্পতিবার জাতীয় সংসদ এলাকার এমপি হোস্টেলে এক সংবাদ সম্মেলনে এ ঘোষণা দেন।

গত ১২ মার্চ জাসদের জাতীয় কাউন্সিলের নির্বাচনী অধিবেশন থেকে বেরিয়ে এসে একই দলের নামে একটি কমিটি ঘোষণা করা হয়, যেখানে জাসদের বিদায়ী সাধারণ সম্পাদক নুরুল আম্বিয়াকে সভাপতি এবং সংসদ সদস্য নাজমুল হক প্রধানকে সাধারণ সম্পাদক করা হয়। সাংসদ মইন উদ্দীন খান বাদলকে করা হয়েছে কার্যকরী সভাপতি। এদিন সংবাদ সম্মেলনে কমিটির পরিসর আরও বাড়ানোর কথা জানানো হয়।

সহসভাপতি হিসেবে রেজাউল করিম তানসেন, ইন্দু নন্দন দত্ত, আবদুল হাই তালুকদার, খোরশেদ আলম খোকা, এটিএম মহব্বত আলী, কলন্দর আলী ও সৈয়দুল আলমের কথা জানান নাজমুল হক প্রধান।

খুব শিগগিরই পূর্ণাঙ্গ কমিটি দেওয়া হবে বলে নাজমুল হক প্রধান জানান। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে জাসদে ভাঙনের কারণ নিয়ে তিনি বলেন, ‘জাসদের নির্বাচনী কাউন্সিলে জনাব ইনুর অগণতান্ত্রিক আচরণের বিরুদ্ধে আমাদের প্রতিবাদ কোন আকস্মিক ঘটনা নয়, দীর্ঘদিনের পুঞ্জিভূত ক্ষোভের বহিঃপ্রকাশ মাত্র। তবে ঐক্যের দরজা আমরা খোলা রাখছি।’ এক প্রশ্নের জবাবে মঈন উদ্দীন খান বাদল বলেন, জাসদের কেন্দ্রীয় কার্যালয় চারজনের নামে। এরা হলেন- শ্রমিক নেতা আব্দুল কাদের, শরীফ নুরুল আম্বিয়া, কাজী আরেফ আহমেদ এবং হাসানুল হক ইনু। এর মধ্যে কাজী আরেফ মারা গেছেন। আব্দুল কাদের অসুস্থ, তিনি আমাদের সমর্থন জানিয়েছেন। কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের জন্য আমরা আদালতে যাব। বিবাদ মিটিয়ে দেয়ার আবেদন জানাব।

দলীয় প্রতীকের প্রসঙ্গে তিনি বলেন, যারা মেজরিটি নিবন্ধন তাদের, প্রতীকও তাদের। দলের স্ট্যান্ডিং কমিটির ১৪ জনের একজন মারা গেছেন। একজন অসুস্থ আর একজন তার অবস্থান পরিষ্কার করেননি। বাকি ১১ জনের মধ্যে মধ্যে সাতজন আমাদের সঙ্গে আছেন। তাদের মধ্যে- শরীফ নুরুল আম্বিয়া, নাজমুল হক প্রধান, আমি, ইন্দু নন্দন দত্ত, মনসুর আহমেদ আগা, ড. মুশতাক হোসেন, মোহাম্মদ খালেদ এখানে উপস্থিত আছেন।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে নাজমুল হক প্রধান বলেন, ‘হাসানুল হক ইনুর অগণতান্ত্রিক আচরণ, আর্থিক আচরণে অস্বচ্ছতা, দলের রাজনৈতিক সিদ্ধান্তকে নিজের ইচ্ছামতো তুলে ধরার প্রতিবাদ সংগঠনের ভেতরে বহু দিন ধরেই চলছিল। তিনি কখনোই নিজেকে সংশোধন করেননি।’

নিজেদের আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন ১৪ দলীয় জোটের অংশীদার দাবি করে তিনি বলেন, আমরা রাজনৈতিক কারণেই ১৪ দলের অংশীদার। ১৪ দলের ভেতরে আত্মসমালোচনার মাধ্যমে ভুল সংশোধন করে মহাজোট সরকারের সাফল্য নিশ্চিত করতে চাই।

প্রকাশিত : ২৪ মার্চ ২০১৬, ০৪:৩৫ পি. এম.

২৪/০৩/২০১৬ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

জাতীয়



শীর্ষ সংবাদ: