১৩ ডিসেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

স্মৃতির পাতা থেকে


দিতি যে সময় জনপ্রিয়তার তুঙ্গে, টিভি অভিনেত্রী তারিনের বয়স তখন খুবই কম। শিশুশিল্পী তখন তিনি। আনন্দকণ্ঠকে তারিন জানালেন দিতির সঙ্গে

তার প্রথম দেখার ঘটনা

১৯৮৮ সাল, ওই বছরই আমি দিতিকে প্রথম দেখি। বিটিভির মেকাপরুমে। ওই সময়ে তিনি ছিলেন বাংলা চলচ্চিত্রের সবচেয়ে জনপ্রিয় সুপারস্টার। আমি ছিলাম শিশুশিল্পী। প্রচুর উত্তেজনা নিয়ে তাকে দেখতে গিয়েছিলাম। প্রথম দৃষ্টিতেই দেখলাম, একজন সুন্দরী মহিলা চেয়ারে বসে আছেন, জোরে জোরে কথা বলছেন, প্রাণখুলে হাসছেন, শূটিংয়ের জন্য রেডি হচ্ছেন। আমি ধীরে ধীরে এগিয়ে গেলাম।

হেসে বললাম, ‘তোমারও আমার মতো লম্বা চুল, আমার বোনেরও তোমার মতো গালে তিল আছে।’ দিতি হেসে আমাকে জড়িয়ে ধরলেন। বললেন, আমার মতো তারও একটা মেয়ে আছে। এমনভাবে তিনি আমার সঙ্গে কথা বলতে থাকলেন যেন আমরা কতদিনের পরিচিত! এখনও মনে আছে তিনি আমাকে তার জুয়েলারি বক্স থেকে হেয়ারব্যান্ড, ক্লিপস এটা সেটা দিয়েছিলেন। ওই দিনই তিনি জয় করেছিলেন আমার মন!

অনেক বছর পেরিয়ে গেছে, কিন্তু দিতির উপস্থিতি, নম্র ব্যবহার, ভালবাসা একটুও বদলায়নি। দিতি কখনও কাউকে বুঝতে দেননি কত বড় মাপের শিল্পী তিনি! নিজের দুঃখ কাউকে বুঝতে তো দেননি কখনও। কীভাবে একজন মহিলাকে সাহসের সঙ্গে, আস্থার সঙ্গে, গর্বের সঙ্গে, মুখে হাসি নিয়ে একাই সংগ্রাম চালিয়ে যেতে হয়, দিতি হচ্ছেন তার একটা জ্বলজ্বলে উদাহরণ। দিতি ছিলেন একজন শক্ত মনের মানুষ, অসাধারণ ব্যক্তিত্ব, বিশুদ্ধ আত্মা। আমি এই দিতি আপাকে স্যালুট করি। সারাজীবন মনে থাকবে তাকে।