২৫ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

ইংলিশদের সামনে আফগান-চ্যালেঞ্জ


স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ আগানিস্তানকে বলা হয় ক্রিকেটের আগামীর শক্তি। কিন্তু যুদ্ধবিধ্বস্ত দেশটির মাঠে যেভাবে নিজেদের মেলে ধরছে, তাতে বড় দলগুলোর জন্য এরই মধ্যে তারা চ্যালেঞ্জ হিসেবে আবির্ভূত হয়েছে। একাধিক বিশ্বকাপে অংশগ্রহণের সুযোগ করে নিয়েছে মোহাম্মদ নবী-আসগর স্টানিকজাইর দল। ভারতে চলমান টি২০ বিশ্বকাপের কথাই ধরা যাক। টেস্ট খেলুড়ে জিম্বাবুইয়েকে ছিটকে দিয়ে সুপার টেনে খেলছে স্টানিকজাই বাহিনী। নিজেদের প্রথম দুটি ম্যাচে হারলেও প্রতাপশালী শ্রীলঙ্কা ও দক্ষিণ আফ্রিকাকে কাঁপিয়ে দিয়েছিল আফগানিস্তান। সেমির রেসে টিকে থাকতে ইংলিশদের আজ সত্যিই আফগান-চ্যালেঞ্জের মুখে পড়তে হতে পারে।

ব্যাটিং-দানব ক্রিস গেইলের টর্নেডো সেঞ্চুরির ফলে ওয়েস্ট ইন্ডিজের কাছে ৬ উইকেটের হার দিয়ে শুরু করা ইংল্যান্ড অবশ্য প্রোটিয়াদের বিপক্ষে ২২৯ রান তাড়া করে তাক লাগানো এক জয় তুলে নেয়। ইয়ন মরগানদেরও আত্মবিশ্বাসে ঘাটতি থাকার কথা নয়। ব্যাট হাতে দুরন্ত ফর্মে দলের সেরা ব্যাটসম্যান জো রুট। দিল্লীর ফিরোজ শাহ কোটলার ইতিহাস বলে এখানে স্পিনাররা বাড়তি সুবিধা পেয়ে থাকেন। ইংলিশরা আজ তাই তিন স্পিনার নিয়ে মাঠে নামতে পারে। তারকা অলরাউন্ডার মঈন আলি বলেন, ‘তিন স্পিনার নিয়ে নামার বিষয়ে আলোচনা হচ্ছে। এটা চমৎকার চিন্তা। আমরা কেবল একটি জয় পেয়েছি। গুরুত্বপূর্ণ এই ম্যাচ নিয়ে তাই বিশেষ পরিকল্পনা করতেই হচ্ছে। শেষ পর্যন্ত যেটি ভাল মনে করেন, ম্যানেজমেন্ট সেই সিদ্ধান্ত নেবেন।’ এক্ষেত্রে মঈন, আদিল রশীদের সঙ্গে স্পিনে বাঁ-হাতি নতুন মুখ লিয়াম ডসন ভাল বিকল্প হতে পারেন। তিনি আরও যোগ করেন, ‘অবশ্যই এমন সম্ভাবনা রয়েছে। কোটলার পিচ অতীতের মতো স্বাভাবিক স্পিন-সহায়ক মনে হলে, সেটি কেন নয়?’ আফগানিস্তানের বিপক্ষে জয় পেলে সেমির রেসে ফিরে আসবে ২০১০ টি২০ বিশ্বকাপের চ্যাম্পিয়ন ইংল্যান্ড। মুম্বাইয়ে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে অবিশ্বাস্য জয় ইংলিশদের আত্মবিশ্বাস বাড়িয়ে দিয়েছে। মঈন বলেন, ‘টি২০তে সময়টা ভাল যাচ্ছিল না। ওই জয় আমাদের আত্মবিশ্বাস ফিরিয়েছে। সবাই গা ঝাড়া দিয়ে জেগে উঠেছে, তবে আকাশে নয়। কারণ আমরা জানি প্রতিপক্ষ আফগানিস্তান একটি বিপজ্জনক দল। আমাদের তাই আর দশটা ম্যাচের মতোই সেরা খেলাটা খেলতে হবে।’ মুম্বাইয়ে সেদিন ব্যাট হাতে চার-ছক্কার ফল্গুধরা বইয়ে দিয়েছিলেন জো রুট। ৪৪ বলে ৬ চার ও ৪ ছক্কায় খেলেন ৮৩ রানের ম্যারাথন ইনিংস। সৌজন্যে ২৩০ রান করে ২ উইকটের নাটকীয় জয় পায় তার দল ইংল্যান্ড। আফগানদের জন্য আজও ভয়ঙ্কর হয়ে উঠতে পারেন সেনসেশনাল এই ব্যাটসম্যান। তবে সহযোগী দেশগুলোর মধ্যে আগ্রাসী ক্রিকেট খেলে দৃষ্টি কাড়া আফগানরাও ছেড়ে কথা বলবে না। হেরে যাওয়া দুটি ম্যাচেই তারা আশাজাগানিয়া নৈপুণ্য দেখিয়েছে। মুম্বাইয়ে পরাক্রমশালী দক্ষিণ আফ্রিকার ২০৯ রানের জবাবে ১৭২ রান তুলে নিয়েছিল স্টানিজাইর দল।

সর্বাধিক পঠিত:
পাতা থেকে: