২১ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট ৮ ঘন্টা পূর্বে  
Login   Register        
ADS

২৫ মার্চকে ‘আন্তর্জাতিক গণহত্যা দিবস’ ঘোষণার দাবি


স্টাফ রিপোর্টার ॥ পঁচিশে মার্চকে ‘আন্তর্জাতিক গণহত্যা দিবস’ ঘোষণার জন্য বিশ্ব সম্প্রদায়ের প্রতি দাবি জানিয়েছে আন্তর্জাতিক যুদ্ধাপরাধ গণবিচার আন্দোলন। এ ব্যাপারে এখনই কার্যকর ব্যবস্থা নিতে সরকারের সংশ্লিষ্টদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন সংগঠনটির নেতারা।

মঙ্গলবার ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে সংগঠনের আহ্বায়ক ও নৌমন্ত্রী শাজাহান খান সংগঠনের পক্ষে এ দাবি তুলে ধরেন। এসময় মুক্তিযোদ্ধা, সুশীল সমাজের প্রতিনিধি, সাংবাদিক সহ বিভিন্ন সেক্টরের বিশিষ্টজনরা উপস্থিত ছিলেন। আন্তর্জাতিক যুদ্ধাপরাধ গণবিচার আন্দোলন এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে। এতে নৌমন্ত্রী শাজাহান খান বলেন, ‘গত শতাব্দীতে অনেক দেশেই গণহত্যার ঘটনা ঘটেছে। কিন্তু তার অনেক ক্ষেত্রেই বিচার হয়নি। এখনো ক্ষতিগ্রস্থরা বিচারের অপেক্ষায় রয়েছেন। শুধু পঁচিশে মার্চ রাতে বাংলাদেশে প্রায় এক লাখ লোককে হত্যা করা হয়েছিল। যা গণহত্যার ইতিহাসে এক ভয়াবহতম ঘটনা।

মন্ত্রী বলেন, ‘পঁচিশে মার্চ আন্তর্জাতিক গণহত্যা দিবস ঘোষণার দাবি আমরা দেশবাসীর কাছে উত্থাপন করছি। শুধু বাংলাদেশের জন্য নয়, আজকের সুসভ্য বিশ্ব সমাজ ও বিশ্ব মানবতার অগ্রযাত্রার স্বার্থেও অন্তত একটি দিন গণহত্যার মতো পৈশাচিকতার বিরুদ্ধে প্রতিবাদের জন্য নির্ধারিত থাকা দরকার।’

জাতিসংঘের বিধান অনুযায়ী প্রস্তাবটি কোনো দেশের সরকারের পক্ষ থেকে আসতে হবে বিধায় জনগণের এই যৌক্তিক দাবির আলোকে গণহত্যার নির্মম শিকার বাঙালি ও বিশ্বের সকল হতভাগ্য মানুষের পক্ষ থেকে আমরা আমাদের সরকারের কাছে এই প্রস্তাব তুলে ধরছি। একই সঙ্গে ১৯৭১ সালে বাংলাদেশের গণহত্যাকেও জাতিসংঘ কর্তৃক স্বীকৃতি দেয়ার জন্য যথাযথ ব্যবস্থা নেয়ারও প্রস্তাব করেন তিনি।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন সাংবাদিক আবেদ খান, মুক্তিযোদ্ধা ইসমত কাদির গামা, মুক্তিযোদ্ধা ওসমান আলী, মাহবুব উদ্দিন বীর বিক্রম, কামাল পাশা চৌধুরী, কামরুল আলম সবুজ, মো. কামাল উদ্দিন, অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম, হাসান খসরু, রুহুল আমিন মজুমদারসহ প্রমুখ।

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: