মেঘলা, তাপমাত্রা ৩১.১ °C
 
২৪ আগস্ট ২০১৭, ৯ ভাদ্র ১৪২৪, বৃহস্পতিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
সর্বশেষ

সন্ত্রাসমুক্ত নগরী গড়তেই তথ্য সংগ্রহের কাজ চলছে ॥ ডিএমপি কমিশনার

প্রকাশিত : ২২ মার্চ ২০১৬

স্টাফ রিপোর্টার ॥ ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) আছাদুজ্জামান মিয়া বলেছেন, পুলিশ জনগণের বন্ধু হয়ে কাজ করবে। পুলিশ জনগণকে হয়রানি করবে এটা কোনভাবেই মেনে নেয়া যাবে না। সোমবার দুপুরে রাজধানীর গাউসিয়া মোড়ে বিট পুলিশিং সমাবেশে তিনি এ কথা জানান। তিনি বলেন, সন্ত্রাসীদের আইনের আওতায় এনে আমরা রাজধানীকে সম্পূর্ণ নিরাপদ নগরী হিসেবে গড়ে তুলব। নিউমার্কেট থানা পুলিশ সমাবেশের আয়োজন করে।

ডিএমপি কমিশনার বলেন, পুলিশ এখন থেকে রাজধানীর দুই কোটি নাগরিকের সঙ্গে ‘ওয়ান টু ওয়ান’ কথা বলবে। বিটের অফিসাররা রাজধানীবাসীর কাছে যাবে। তাদের সমস্যার কথা শুনবে। তাদের বিপদে-আপদে সহায়তা করবে। নগরীর বাড়িওয়ালা, ভাড়াটিয়া ও ব্যবসায়ীসহ সংশ্লিষ্টদের তথ্য সংগ্রহের কাজ চলছে। নগরীতে বসবাসকারীদের তথ্য সংশ্লিষ্ট থানায় থাকলে অপরাধীরা অপরাধ করতে ভয়ও পাবে। ডিএমপি কমিশনার বলেন, পুলিশই জনগণ, জনগণই পুলিশ। পুলিশ জনগণের নিরাপত্তা দেবে, শৃঙ্খলার মধ্যে রাখবে। পুলিশ জনগণের বন্ধু হয়ে কাজ করবে। পুলিশ জনগণকে হয়রানি করবে এটা কোনভাবেই মেনে নেয়া যাবে না। সন্ত্রাসীদের আইনের আওতায় এনে আমরা রাজধানীকে সম্পূর্ণ নিরাপদ নগরী হিসেবে গড়ে তুলব। তিনি বলেন, ‘নাগরিকদের দেয়া তথ্য সম্পূর্ণ গোপন রাখা হবে। এ তথ্য শুধুমাত্র অপরাধীদের খুঁজে বের করার কাজে ব্যবহৃত হবে। এ তথ্য কোন সরকারী-বেসরকারী প্রতিষ্ঠান বা সাংবাদিকসহ কাউকে দেয়া হবে না। প্রতিটি থানায় দশ জন করে পুলিশ সদস্যকে আইটি প্রশিক্ষণ দেয়া হবে। যাতে করে তারা প্রাপ্ত তথ্যগুলো সঠিকভাবে নিবন্ধন করতে পারে।

সমাবেশে ডিএমপির অতিরিক্ত কমিশনার (ক্রাইম এ্যান্ড অপস্) শেখ মুহাম্মদ মারুফ হাসান বলেন, পুলিশ-জনগণের সম্পৃক্ততায় আইনের শাসন করা হবে। বাড়িওয়ালার কাছে তথ্য না থাকায় অপরাধীদের গ্রেফতার করা সম্ভব হচ্ছে না। তাই সবার তথ্য সংগ্রহ করা হচ্ছে।

ডিএমপির রমনা বিভাগের উপ-কমিশনার আব্দুল বাতেন বলেন, নগরবাসীর তথ্য সংগ্রহের জন্য বিট পুলিশ কাজ করছে। প্রতিটি থানা এলাকার সংশ্লিষ্ট বিটের দায়িত্বে থাকা পুলিশ সদস্যরা জনগণের সঙ্গে যোগাযোগ করবে। তাদের তথ্য নেবে, জনগণকে সহায়তা করবে। বিট পুলিশিং সমাবেশে আরও উপস্থিত ছিলেন ডিএমপির যুগ্ম-কমিশনার (ক্রাইম) কৃষ্ণপদ রায়, উপ-কমিশনার (মিডিয়া) মারুফ হোসেন সরদার, রমনা জোনের সহকারী কমিশনার জসিম উদ্দিন, রমনা থানার অফিসার্স ইনচার্জ (ওসি) মশিউর রহমান, নিউমার্কেট থানার অফিসার্স ইনচার্জ (ওসি) ইয়াসিন আরাফাত, গাউসিয়া মার্কেট সমিতির সভাপতি মোঃ ফারুক ও ঢাকা মহানগর দোকান মালিক সমিতির সভাপতি তৌফিক এহসান প্রমুখ।

প্রকাশিত : ২২ মার্চ ২০১৬

২২/০৩/২০১৬ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

শেষের পাতা



শীর্ষ সংবাদ: