১৯ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

ঝুঁকিপূর্ণ দুই ব্রিজ


নিজস্ব সংবাদদাতা, পটিয়া, ২১ মার্চ ॥ চট্টগ্রামের পটিয়া উপজেলার আশিয়া ইউনিয়নের মোসলেম খাঁ’র ব্রিজ একটি গুরুত্বপূর্ণ ব্রিজ। এ ব্রিজ দিয়ে প্রতিদিন উপজেলার আশিয়া, কাশিয়াইশ, ছনহরা, জঙ্গলখাইন, বড়লিয়া ইউনিয়নের হাজার হাজার নারী-পুরুষ ও স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীরা যাতায়ত করে থাকেন। মেয়াদোত্তীর্ণ ব্রিজটি দীর্ঘ ১৪ বছর সংস্কার না হওয়ায় বর্তমানে এটি মৃত্যুকূপে রূপ নিয়েছে। যে কোন মুহূর্তে ধসে পড়ে প্রাণহানির আশঙ্কা রয়েছে। ঝুঁকি ঠেকাতে গ্রামবাসী ব্রিজের উত্তর পাশের একটি অংশে ডালপালা গেড়ে ভারি যানবাহন চলাচল বন্ধ করে দিয়েছে। শুধু রিক্সা কিংবা সিএনজি চলাচলের জন্য সামান্য পথ রয়েছে। ওই পথ দিয়েই এলাকার লোকজন জীবনের ঝুঁকি নিয়ে যাতায়ত করে থাকেন। মোসলেম খাঁ’র ব্রিজটি সিমেন্ট দিয়ে নির্মাণের জন্য স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদফতর সম্প্রতি ২ কোটি ৭০ লাখ টাকা বরাদ্দ চেয়ে উর্ধতন কর্তৃপক্ষের কাছে প্রস্তাবনার একটি চিঠি পাঠায়। এর আগেও বরাদ্দ চেয়ে একাধিকবার চিঠি পাঠানো হয়। কিন্তু বরাদ্দ মেলেনি।

জানা গেছে, চট্টগ্রাম-কক্সবাজার আরকান মহাসড়কের পটিয়া আমজুর হাট হয়ে আশিয়া বাংলাবাজার সড়কে রয়েছে গুরুত্বপূর্ণ মোসলেম খাঁ’র এই ব্রিজ। চান্দখালী খালের শাখা আশিয়া বাংলাবাজার খালের উপর ব্রিজটি এখন যাত্রী ও পরিবহন শ্রমিকদের কাছে মূর্তিমান আতঙ্ক। আমজুর হাট হতে প্রতিদিন আশিয়া বাংলাবাজার পর্যন্ত সিএনজি চলাচল করে থাকে। ব্রিজ পার হওয়ার সময় সিএনজি ও রিক্সা থেকে যাত্রীরা ভয়ে নেমে পড়ে। তাছাড়া ভারি যানবাহন চলাচল কয়েক বছর ধরে বন্ধ থাকায় এলাকার লোকজনকে বিকল্প পথে মালামাল নিতে হচ্ছে। উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বিএনপি নেতা অধ্যাপক মোজাফফর আহমদ চৌধুরী টিপুর বাড়ি আশিয়া ইউনিয়নে। ব্রিজ ভেঙ্গে ধসে পড়ার আশঙ্কায় চেয়ারম্যান নিজেই এই ব্রিজ দিয়ে চলাচল করেন না। সিএনজি চালক খোরশেদ আলম বলেন, মোসলেম খাঁ’র ব্রিজটি মারাত্মক ঝুঁকিপূর্ণ। ভয়ে ভয়ে ব্রিজের ওপর তারা গাড়ি চালান। এটি সংস্কার করা না হলে ধসে পড়ে যোগাযোগ ব্যবস্থা বন্ধ হয়ে যেতে পারে।

টেকনাফ শাহপরীর দ্বীপে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন

স্টাফ রিপোর্টার কক্সবাজার থেকে জানান, টেকনাফ সদর নাজিরপাড়ার বেইলি ব্রিজ ভেঙ্গে যাওয়ায় টেকনাফ শাহপরীরদ্বীপ সড়ক যোগাযোগ বন্ধ হয়ে পড়েছে। এতে নির্বাচনী কাজে ব্যবহৃত মালামাল বহনে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হয়েছে সংশ্লিষ্টদের। সড়ক ও জনপথ বিভাগ দায়সারাভাবে ব্রিজটি মেরামত করায় কয়েক দিন আগে লবণবোঝাই ট্রাক চলাচলে তা ভেঙ্গে যায়। ফলে টেকনাফ শাহপরীরদ্বীপ সড়কে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে। টেকনাফে সড়ক ও জনপথ বিভাগের সহকারী প্রকৌশলী জানান, কয়েক দিনের মধ্যে সেতুটি মেরামত করা হবে।