২২ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

লঙ্কানদের উড়িয়ে টানা দ্বিতীয় জয় উইন্ডিজের


জাহিদুল আলম জয় ॥ বর্তমান চ্যাম্পিয়ন শ্রীলঙ্কাকে ৭ উইকেটের বিশাল ব্যবধানে হারিয়ে চলমান টি২০ বিশ্বকাপে টানা দ্বিতীয় জয় পেয়েছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। রবিবার রাতে বেঙ্গালুরুর এম চিন্নাস্বামী স্টেডিয়ামে সুপার টেনের এক নম্বর গ্রুপের ম্যাচে টস হেরে ব্যাটিংয়ে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৯ উইকেটে ১২২ রানের স্বল্প পুঁজি পায় লঙ্কানরা। জবাবে ১০ বল হাতে রেখে ১৮.২ ওভারে ৩ উইকেট হারিয়ে জয়ের বন্দরে পৌঁছে যায় ২০১২ সালে চতুর্থ আসরের শিরোপাধারী ওয়েস্ট ইন্ডিজ।

ব্যাটিংয়ে নেমে শুরুতে থেকেই ক্যারিবীয় বোলাদের তোপের মুখে পড়েন লঙ্কান ব্যাটসম্যানরা। ইনিংসের চতুর্থ ওভারের প্রথম বলে দলীয় ২০ রানে কার্লোস ব্রাথওয়েটের বলে এলবিডব্লিউ হয়ে তিলকারতেœ দিলশান (১২) সাজঘরে ফিরলে বিপদে পড়ে এ্যাঞ্জেলো ম্যাথুসের দল। নিজেদের প্রথম ম্যাচে আফগানিস্তানের বিপক্ষে একাই দলকে জিতিয়েছিলেন দিলশান। ওই ম্যাচের নায়ককে হারনোর ধাক্কা সামলে উঠার আগেই জনসন চার্লসের অসাধারণ ফিল্ডিংয়ে দিনেশ চান্ডিমাল (১৬) রানে রানআউট হয়ে বিদায় নেন দলীয় ৩২ রানে। এরপর স্পিনার স্যামুয়েল বদ্রি ঝলক দেখান। প্রথম দুই ওভারে ৮ রান খরচ করলেও তৃতীয় ওভারের প্রথম বলেই লাহিরু থিরিমান্নেকে আন্দ্রে ফ্লেচারের ক্যাচ দিয়ে সাজঘরে ফেরান।

নিজের চতুর্থ ওভারে এসে আবারও প্রথম বলেই চামারা কাপুগেদারাকে তুলে নেন। চতুর্থ বলে মিলিন্ডা সিরিবর্ধনেকেও আউট করন। শ্রীলঙ্কা এ সময় ৪৭ রানে ৫ উইকেট হারিয়ে ধুঁকতে থাকে। এই ধসের পরও লঙ্কানদের রান ১০০ এর কোটা অতিক্রম করে ষষ্ঠ উইকেটে অধিনায়ক ম্যাথুস ও থিসারা পেরেরার ৪৫ বলে ৪৪ রানের জুটিতে ভর করে। ৩২ বলে ২০ রানের অবাক করা ইনিংস খেলে ম্যাথুস ফিরে গেলেও অন্যপ্রান্তে পেরেরা হাত খুলে খেলেন। ইনিংসের শেষ ওভারের পঞ্চম বলে আউট হওয়ার আগে পেরেরা খেলেন ২৯ বলে ৪০ রানের ইনিংস। লঙ্কানদের মধ্যে যা ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ।

উইন্ডিজের বদ্রি ৩ ও ডোয়াইন ব্রাভো ২ উইকেট লাভ করেন। উইকেট না পেলেও শ্রীলঙ্কাকে বেশ ভুগিয়েছেন ওয়েস্ট ইন্ডিজের স্পিনার সুলিমান বেন। ৪ ওভারে মাত্র ১৩ রান খরচ করেন বাঁহাতি এই স্পিনার। ১২৩ রানের সহজ জয়ের লক্ষ্যে ব্যাটিংয়ে নেমে ওপেনার আন্দ্রে ফ্লেচারের বিস্ফোরক হার না মানা ৮৪ রানে ভর করে ১৮.২ ওভারে জয় নিশ্চিত করে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। ছয় চার ও পাঁচ ছয়ে ৬৪ বলে এই রান করেন তিনি।

সর্বাধিক পঠিত:
পাতা থেকে: